ব্লগারের মুক্তি আর আমাদের আইন এবং বিএনপি-জামাতের ফাঁদ

গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান
তৃতীয় ভাগঃ মৌলিক অধিকার
অনুচ্ছেদ ৩৮: চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতা

(১) চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতার নিশ্চয়তা দান করা হইল।

(২) রাষ্ট্রের নিরাপত্তা, বিদেশী রাষ্ট্রসমূহের সহিত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক, জনশৃঙ্খলা, শালীনতা বা নৈতিকতার স্বার্থে কিংবা আদালত অবমাননা, মানহানি বা অপরাধ সংঘটনে প্ররোচনা সম্পর্কে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসঙ্গত বাধা-নিষেধের সাপেক্ষে-
-(ক) প্রত্যেক নাগরিকের বাক ও ভাব প্রকাশের স্বাধীনতার অধিকারের, এবং
-(খ) সংবাদ ক্ষেত্রের স্বাধীনতার
নিশ্চয়তা দান করা হইল।

এই আইনে কি মনে হয়? আমাদের ৪ ব্লগারকে আটকায় রাখা অনিয়ম?
আসলেই তাই!! এবার দেখেন বিএনপি-জামাতের করা আইন।


তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন, ২০০৬ ( ২০০৬ সনের ৩৯ নং আইন ) [৮ অক্টোবর ২০০৬]

অষ্টম অধ্যায়ঃ অপরাধ, তদন্ত, বিচার, দন্ড ইত্যাদি

অনুচ্ছেদ ৫৭: ইলেক্ট্রনিক ফরমে মিথ্যা, অশ্লীল অথবা মানহানিকর তথ্য প্রকাশ সংক্রান্ত অপরাধ ও উহার দণ্ড

(১) কোন ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে ওয়েব সাইটে বা অন্য কোন ইলেক্ট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যাহা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেহ পড়িলে, দেখিলে বা শুনিলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হইতে উদ্বুদ্ধ হইতে পারেন অথবা যাহার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র ও ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করিতে পারে বা এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোন ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উস্কানী প্রদান করা হয়, তাহা ইহলে তাহার এই কার্য হইবে একটি অপরাধ।

(২) কোন ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন অপরাধ করিলে তিনি অনধিক দশ বত্সর কারাদণ্ডে এবং অনধিক এক কোটি টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হইবেন ।

আর আবার ‘রানা প্লাজা” খ্যাত রানার সর্বোচ্চ শাস্তি নাকি রাষ্ট্রীয় আইনে হবে ৫ বছরের জেল অনাদায়ে নাকি হাজারের বা, লাখের ঘরের অর্থদণ্ড!!! কিছুই বুজলাম না?
জিয়া- এরশাদ- খালেদাতো দেখি সংবিধানের স্বকীয়তা আর, উদারতার কিছুই রাখল না!!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১২ thoughts on “ব্লগারের মুক্তি আর আমাদের আইন এবং বিএনপি-জামাতের ফাঁদ

    1. সংবিধান শুধু উত্তম নয়, তাবৎ
      সংবিধান শুধু উত্তম নয়, তাবৎ দুনিয়ার অন্যতম শ্রেষ্ঠ!!
      কিন্তু, তার প্রয়োগে আমরা- আমাদের সরকারগুলো সফলভাবে ব্যর্থ!
      আর, সংবিধানের যে কলঙ্ক দিয়ে গেছেন জিয়া-এরশাদ তার মুচন কবে হবে কে জানে।।
      :মাথাঠুকি:

  1. “নাই মামার চেয়ে কানা মামা
    “নাই মামার চেয়ে কানা মামা ভালো”
    “দুষ্ট গরুর চেয়ে শুন্য গোয়াল ভালো”

    বাংলায় এই দুইটা প্রবাদই প্রচলিত আছে। পাশাপাশি বসাইলে কেমন মনে হয়? আমাদের আইনের অবস্থাও তদ্রুপ।

  2. সমাধান আপাতত জনসংখ্যা
    সমাধান আপাতত জনসংখ্যা কমানো!!
    জতদিন এই বাংলাই ১০-১২ কোটির মত মানুষ না হবে ততদিন এই পিঁপড়ার মত মানুষকে কুকুরের মত মৃত্যুর হাত থেকে কেউ বাঁচাতে পারবে না!! 🙁

    1. চরিত্র হারাতে এক মিনিটও লাগে
      চরিত্র হারাতে এক মিনিটও লাগে না কিন্তু তা উদ্ধার করতে যুগের পর যুগও লেগে যেতে পারে… আগে যারা সংবিধানের এমন দূষণ করল তাদের বিতাড়িত করতে হবে না হয় বারবার চরিত্রহানি চলতেই থাকবে!!!

      1. সংবিধানের স্বকীয়তা কে
        সংবিধানের স্বকীয়তা কে রাখলো?
        সংবিধানের স্বকীয়তা কে রাখলো?
        সংবিধানের স্বকীয়তা কে রাখলো?

        1. যে বা যারা সংবিধান রচনা
          যে বা যারা সংবিধান রচনা করেছিলেন তারা রেখেছেন।।
          তবে বর্তমানে সেই হারানো স্বকীয়তা উদ্ধারে তাদের সরকার যথেষ্ট জনসম্প্রিক্ত নয় বলেই জ্ঞান হচ্ছে… তাই আপনার প্রশ্নের তীরের গতিপথ বুঝে অবহেলিতকে বাঁচানোর চেষ্টা করলাম!!! ভাল থাকবেন…

          1. (No subject)
            :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি:
            :ভাবতেছি: :ভাবতেছি: :ভাবতেছি:
            :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

          2. ক্ষ্যাপার মত কি কিছু
            ক্ষ্যাপার মত কি কিছু বলেছি?
            আর কিসের অপেক্ষায় থাকবেন?
            বিপ্লবের? ভাবাভাবির কিছুই নাই…
            দেয়ালে পিঠ ঠেকেছে ঘুরে দাঁড়ানোর সময় পেরিয়ে যাচ্ছে বলে!!

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

75 − 71 =