পোপ ফ্রান্সিস, আল্লামা শফী, মাননীয় রাষ্ট্রপতি এবং আইজুদ্দীনীয়

বাংলাদেশ করুন পর্যায়ের মধ্যে রয়েছে। চারিদিকে হাহাকার আর মৃত্যু। এই হাহাকার আর মৃত্যু কে উসকে দিল সাভার ট্রাজডি। এই রকম মৃত্যু আমি আমার জীবনে আর কখনো বেঁচে থাকা অবস্থায় দেখি নাই। আপাতত জতদিন না বোঝার ক্ষমতা। এই অবিচার এর প্রতি দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন দেশের এবং ধর্মের মানুষ।

আল্লামা শফী আপ্রান চেস্টা করে চলেছেন দেশে ইসলাম প্রতিষ্ঠা করে যাবার। তিনি অনেক ক্ষেত্রে সফল হয়েছেন। তার দলের শীর্ষ স্থানীয় নেতারা অনেক কিছুই আবিস্কার করেছেন যেটা ইসলামের ইতিহাসে মনে হয় স্বর্নাক্ষরে লেখা থাবে। যেমন ধরেন আল্লামা রুহী বলে বসলেন যে নবী করীম (সাঃ) মক্কা থেকে মদীনায় লং মার্চ করেছিলেন(!!!)। এই বিরট জিনিস কি কেউ কখনও উপলব্ধি করতে পেরেছিল? না পারে নাই। তাই বলা চলে ইসলামের ইতিহাসে হেফাজতে ইসলামের অবদান অনেক। তার উপর হেফাজতের এক নেতা মাওলানা মাসুদকে তাসলিমা নাসরিনের সাথে তুলনা করেছিলেন। সেই নেতাকে এবং তার চিন্তা ধারার সকলকে আমি সানি লিওনের সাথে তুলনাক করলাম।
এখন সমকালীন সাভার ট্রাজেডিতেও নাকি তাদের অবদান রয়েছে। রক্ত দান করেছেন নাকি শয়ে শয়ে প্যাকেট। ভালই তো। ভালো না?

যাক যখন এই সাভার ট্রাজেডিতে সারা বিশ্ব বিস্মিত হয়ে পড়েছে তখন পোপ ফ্রান্সিস সানডে প্রেয়ারে ডয়া করতে বললেন সাভারের ট্রাজেডিতে আক্রান্ত মানুষদের জন্য। অপর দিকে আমাদের দেশের ইসলামের বড় নেতা আল্লামা শফী যার কথায় সায় না দিলে আপনি হয়ে যাবেন নাস্তিক তিনি করে বেড়ালেন হেলিকপ্টার ভ্রমন আর ঢাকা অবরোধের অনুশীলন। না করলেন দোয়া না করলেন কিছু। এক্কেবারে লাউয়াছেড়ায় গিয়া পড়লেন। সমস্যা নাই কারন তিনি ইসলামের পথে আছেন। কথায় আছে না, “মানুষ ভালা পইট্টা মাছের রাজা লইট্টা?”

আল্লামা শফীকে আমি দেখি মাছের রাজার মত। কারন তিনি পিচ্ছিল। যত যাই করেন ইসলামের নাম দিয়ে পিছলে বেরিয়ে জাবেন। পোপ ফ্রান্সিস সুদুর বুয়েন্স এইরেস থেকে বলেন যে, বাংলাদেশের বিভিন্ন কারখানার মালিকরা শ্রমিকদের সাথে যে আচরন করেন তা সৃষ্টি কর্তার বিরোধী কাজ। আহা ! কি মধু। আল্লামা শফী এই সৃষ্টি কর্তার বিরোধী কাজের বিরুদ্ধে কিছুই করলেন না? নাকি হেলিকপ্টারে চরে তার মাথা ঘুরে গেছে? কিউরিয়াস মাইন্ড ওয়ান্টস টু নো !

যাক এবারে আসা যাক রাষ্ট্রপতির কথায়। তাকে নিয়ে আর কি বলব? তিনি সাভার ট্রাজেডির দিন সাক্ষ গ্রহন করলেন জেন এই পদ ফুরিয়ে যাবে। মনে হল রাস্ট্রপতি পদ হচ্ছে হাওয়াই মিঠাই যা পলিথিন দিয়ে মোড়ান ছিল। পলিছিন খোলা হয়ে গেছে, তাই চুপসে যাবে। তাই যত তারাতারি সম্ভব খেয়ে নিতে হবে। শোক প্রকাশ করলেন মরহুম জিল্লুর রহমানকে নিয়ে কিন্তু সাভারে মৃত ব্যাক্তিদের নিয়ে শোকের শ টাও করলেন না। তাকে নিয়ে আমার আর কিছুই বলার নাই।

এই বার মামা আইজুর কথা বলি। দেখলাম অনেকেই আইজুরে নিয়া লাগসে। একে বারে মশা মারতে কামান দাগা। আর এই ভয়ে মশা বাংলা কমিউনিটি থেকে পালাইসে। জাক সেই কথায় না যাই। আমি নিজেও আইজুকে দেখতে পারি না। কিন্তু মাঝে মাঝে একেবারে উচিৎ কথাই বলত আইজু। আইজুর পরিচয় নিয়ে আমার কোন আগ্রহ নাই। সে বুইড়া না জোয়ান না হিজড়া আমার জানার ইচ্ছা নাই। আমি কথা বলব Darkjustice এর পোস্ট নিয়ে।(http://projonmoblog.com/darkjustice/12074.html)

সেইখানে তার অনেক কথাই আমার কাছে আবাল মার্কা মনে হয়েছে। পুরাই বাল ছাল। তিনি এখানে খুব শুন্দর করে লিখেছেন যে ২০০৯ সালেই আইজুর আসল অস্তিত্ব হ্যাকাররা খুজে পেয়েছিল। হা হা হা হা হা !!!!!!! এত দিন কই ছিলা মাম্মা? আইজুকে নাকি ট্রেস করা হয়েছে আইপি দিয়ে। একজন নিক আবার আই টি এক্সপার্ট। আমারে মাইরালা !! আপনি কইতে চাইতেসেন আইজু এবং তার নিক এতই আবাল যে তারা আইপি হাইডিং প্রসেস জানে না। যেখানে তাদের প্রথম প্রায়রিটি ছিল তাদের পরিচয় সুরক্ষিত রাখা? হাউ হাউ হাউ ফানি। আপনি আমার পোস্ট থেকে ট্রাক করেন। ইউ এস এর আইপি পাবেন যদিও আমি থাকি চট্টগ্রামের কোন এক চিপায়।

মিনেসোটায় বেশী বাঙালি থাকে না। তাও সেখানে আপনাদের পরিচিত লোক আছে। আমার মনে হয় আপনারা এতই লাকী যে জায়গাটা মিনেসেটায় না হয়ে আফ্রিকায় হলেও মনে হয় আপনাদের পরিচিত কেউ থাকত। আর আইজু এমন একটা সাইটে ঢুকে আপনাদের ফাঁদে পা দিয়েছে যেখানে কোন ইউজারই নাই? ইন্টারেস্টিং। আর যদি কেউ গনজাগরন মঞ্চের কারও বিপক্ষে কথা বললেই কি সে ছাগু বা জামাতী? আসিফ মহিউদ্দিন যারে কেউ দেখতে পারে না সেও গনজাগরনের পক্ষে তাকে নিয়ে কথা বল্লেও তাহলে তো আপনারাও জামাতী বা ছাগু হই গেলেন। কিউরিয়াস মাইন্ড ওয়ান্টস টু নো। আশা করি আবাল মার্কা কথা বন্ধ করবেন।

আপনারা হ্যাকাররা হাত ধুয়ে আইজুর পিছনে লেগেছিলেন। আপনারা যদি এই আইজুর পিছে না লেগে ২০০৯-২০১৩ এই চারটা বছর পর্ন সাইট গুলা নিয়ে লাগতেন তাহলে আরও ভালো হত। অনেক মেয়ের সম্ভ্রম দেহ পিপাসু মানুষের সামনে আসত না। সেই ক্ষেত্রে কাজ করে যদি আজকে এই darkjustice পোস্টটা দিতেন তাহলে আরও বেশী খুশি হতাম।

আর কথা বাড়াব না। আমি ছোট মানের ব্লগার, যাবার আগে একটা কথে বলে যাতে চাই,

নাস্তিক ব্লগারদের ফাঁসি আমিও চাই
কিন্তু, সেটা হতে হবে গলাপী ম্যাডামের জর্জেটের মত স্বচ্ছ এবং
তার প্লাগ করা ভ্রু এর মত আন্তর্জাতিক মানের।

জয় বাংলা, জয় জনতা

http://facebook.com/anampartho

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩ thoughts on “পোপ ফ্রান্সিস, আল্লামা শফী, মাননীয় রাষ্ট্রপতি এবং আইজুদ্দীনীয়

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

9 + 1 =