সালাত বা নামজ নিয়ে কিছু জিজ্ঞাসা!

আজ মুসলমানদের চাবি নিয়ে আলোচনা করব মানে সালাত। তারা নিজেরাও জানে না যে তারা কি পড়ছে। সালাতের মূল তত্ত্বীয় কিছুই কুরানে নাই। যা আছে হাদিসে তাই তো এত ঝামেলা এই সালাত নিয়ে। এই সালাত কে পূর্ন করার জন্য আশ্রয় নিতে হয়েছে প্রচুর পরিমান দোয়ার যার নাম গন্ধ কুরানে নাই। এসব ব্যপারে প্রায় ৯৯% মুসলমান-ই কিছু জানে না। কুরানে টপিক থাকবে আর তার ব্যাখ্যা হাদিস দিবে এটাই মুসলিমদের দাবি। কিন্তু,কুরানের বাইরের কোন দোয়া পাঠ করে কি আল্লাহর ইবাদত করা ঠিক? মনে করলাম নামাযের সিস্টেমটা হাদিস থেকে নিলেন কিন্তু দোয়াটাও কি হাদিস থেকে নিবেন নাকি কুরান থেকে? যদি তাই-ই নিতে হয় তবে আজ থেকে কুরানকে পরিপূর্ণ কিতাব বলা থেকে দূরে থাকুন।

আসুন এক নজরে দেখ নিব নামাজের কি কি নেই কুরানেঃ
★কুরানে ১৬ঃ৮৯ আয়াতে, আল্লাহ বলেন,”জীবন-যাপনের সকল দিক-ই কুরানে বর্ননা করেছি”কিন্ত,ভাইটাল জিনিস নামাজ এর ব্যপারে বিস্তারিত আলোচনা করে নাই আল্লাহ। এমনকি ওয়াক্ত গুলাও ঠিক করে দেন নাই। সূরা রুম এর ১৩-১৫ আয়াত নিয়ে আলেমেরা ঘষাঘষি করে অনেক কষ্টে ৫ ওয়াক্ত নামাজ বানাইছে। কিন্ত,উক্ত আয়াত গুলোতে ৩ ওয়াক্ত খুজে পাওয়া যায়।
★আল্লাহ কুরানে রোজার মাস পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করলেন কিন্ত,নামাজ এর ব্যপারে আল্লাহ ভূলে গেলেন?
★নামাজের নামাসমূহ কুরানে নাই। (ফজর,যোহর, আসর,মাগরিব এবং এশা)
★কত রাকাত নামাজ পড়তে হবে, কোনটা সুন্নত কোনটা ফরজ এসবের কিছুই উল্লেখ নাই কুরানে।
★নামাজে দুইটা সেজদাহ কেন দেওয়া লাগবে? কোন হাদিস থেকেই কি এর দলিল দিতে পারবেন? আল্লাহ এক সেজদাহ একটা হওয়াই কি যুক্তিগত নয়?
★নামাজের সময় কখন কোন সূরা পড়তে হবে তা কুরানে নাই?
★রাকাত শেষে পাঠিত আত্তাহিয়াতু যা কুরানে নাই। পুরা আস্তো একক্ষান দোয়া হায়ার করা হইছে কুরানের বাইরে থেকে? ইহাতে কি প্রমান হয় না কুরান পরিপূর্ণ নয়?
★ফরজ নামাজের সময় নবি আল্লাহকে সেজদাহ করতেন সুন্নত এর সময় তিনি কাকে সেজদাহ করতেন? কারণ,ফরজ আল্লাহর আর সুন্নত তো নবীর।
★আল্লাহু আকবর এই শব্দটা কুরানে কোথায় আছে?
★শিয়ারা ওযু পা থেকে শুরু করে সুন্নীরা হাত থেকে কোনটা সঠিক?
★ কুরানের কোন আয়াতে জানাজার নামাজের কথা বলা আছে?
★ইদুল ফিতর, ইদুল আযাহার নামাজের কথা কুরানের কোন আয়াতে বলা আছে?
★শিয়া সুন্নিদের আযান ভিন্ন কোনটা সঠিক?
★নামাজের দোয়া কুরানে নাই যেমনঃ সুবাহানা রব্বিয়াল আযিম,সামিয়াল্লাহ হুলিমান হামিদা,রব্বিয়াল আলা। কুরানের বাইরে এসব দোয়ার প্রচলন কি আল্লাহর উপর পণ্ডিতি করা নয়?
★সূরা ফাতিহার ব্যবহৃত সকল বিশেষ পদ বহুবচন ইহা জামতে পড়লে গ্রহণযোগ্য হলেও কিন্তু একাকি নামাজ পড়ার সময় ইহা পাঠ করা কি হাস্যকর নয়?
★নামাজ আল্লাহর জন্য কিন্তু সেখানে নবীর গুন গাওয়া কি শীরক নয়? নামাজে দুরুদ তা তো নবি আর তার পরিবার এর গুনগান। (ইত্যাদি)

★★মূলত,যদি মুসলমানরা শুধু কুরান মানে তবে তাদের প্রায় ৯৯% ইবাদত-ই বাদ হয়ে যাবে ।।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩ thoughts on “সালাত বা নামজ নিয়ে কিছু জিজ্ঞাসা!

  1. সালাতের বিষয় সবই আছে কোরানে ,
    সালাতের বিষয় সবই আছে কোরানে , আপনি কোরান পড়লেও বোঝেন নি। সেটা আপনার সমস্যা , কোরানের সমস্যা না। সব তথ্য ঠিক মত বুঝতে গেলে আপনাকে আরবীতে কোরান পড়তে হবে। আপনাদের এইসব লেখা আমাদের মত ইমানদার মুমিনদের ইমানকে ধ্বংস করতে পারবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 + 6 =