হিন্দু নির্যাতন এবং লাল পিপড়া

আমি বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতন নিয়ে কিছু বলিনা কেন জানেন?

আমি জানি হিন্দুদের নির্যাতনকারীদের এখন পর্যন্ত তেমন কোন শাস্তি হয়নি, হবেওনা। ৯০% মুসলমানের দেশে অন্যান্য ধর্মাবলম্বীরা সব ” মালাউনের বাচ্চা ”। বাংলাদেশে থাকতে হলে হয় নির্যাতন সহ্য কর, নইলে দেশ ছেড়ে চলে যাও, এই হল বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষের মনোভাব। নইলে ইসলাম ধর্ম গ্রহন কর, মাফ পেলেও পেতে পারো।

আমি যদিও কোন ধর্মের অনুসারী নই, তবুও মুসলমান নামক ধার্মিকদের নিরীহ হিন্দুদের প্রতি নির্যাতন আমি কোনভাবেই মেনে নিতে পারছিনা। একটু গুগল ঘুরে আসুন। ”হিন্দু গৃহবধূ” লিখে সার্চ দিন। কত হিন্দু গৃহবধূ যে ধর্ষণের শিকার হয়েছে, গুনে শেষ করতে পারবেন না। মন্দির ভাংচুর, দোকান লুটপাট বাদই দিলাম।

আমাদের এলাকায় একটা খ্রিস্টান পরিবার থাকতো। তাদের নিজস্ব নাম থাকা সত্ত্বেও তাদের খ্রিস্টান বলেই ডাকা হত। খ্রিস্টান, খ্রিস্টানের বউ, খ্রিস্টানের মেয়ে। তাদের যেন কোন নাম নেই। তারা বোধহয় অন্য গ্রহের কেউ। আমাদের সমাজের বাইরে।

এখন মন্ত্রী যে মালাউনের বাচ্চা বলে গালি দিলেন, তাকে কি করা হবে? অব্যাহতি দেয়া হতে পারে, ওই পর্যন্তই। এই যে হিন্দুদের ঘরবাড়ী ভাঙ্গা হল, তাদের মন্দির ভাংচুর করা হল, কারো কি শাস্তি হবে? কাকে শাস্তি দিবে? আসামী কে? আসামী সারা বাংলাদেশের মুসলমানরা। কেন জানেন? ফেসবুকে একটু চোখ বুলিয়ে আসুন। কাবার উপরে শিবের আসনের ছবির নিচের কমেন্টগুলি পরে আসুন। বাংলাদেশের মুসলমানরা হিন্দুদের মানুষ বলেও গন্য করে না। আপনারা আইসিস দেখেন ইরাক, সিরিয়ায়। আমি দেখি বাংলাদেশের প্রতি ঘরে ঘরে আইসিস জঙ্গী। যারা সরাসরি হামলা করেনা ঠিকই, কিন্তু হামলাকারীদের মৌন সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে সবসময়। এত হামলা হল, মুসলমানদের টু শব্দটি নেই। সব যেন স্বাভাবিক। আবার হিন্দুদের হোলীতে, পূজায় গিয়ে সেলফি তুলতেও এদের লজ্জা করেনা। তখন ” ধর্ম যার যার, উৎসব সবার ”।

”থু” মারি তোদের হিপোক্রেসির মুখে।

এমন দৃষ্টিকোণ কিছুদিন আগেও ছিলনা। হিন্দু মুসলমানরা একসাথে শান্তিতে বসবাস করত। পারস্পরিক ধর্মীয় সহনশীলতা ছিল। আর এখন হিন্দু মানেই লাল পিপড়া, ওরা খারাপ, ওদের মেরে ফেললেই ভাল।

বাংলাদেশের বিচারব্যাবস্থার উপর ভরসা উঠে গেছে অনেক আগেই। শত শত হিন্দু ঘরবাড়ী হারিয়ে রাস্তায় বৃষ্টিতে ভিজছেন, আর আমাদের প্রধানমন্ত্রী তার নাতির জন্মদিনের উৎসব পালন করছেন।

সুতরাং হুদাই চিল্লায়া লাভ নাই।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 + 3 =