ধর্ম না কর্ম? কোনটিতে বিশ্বাসী অপনি.?

অাসলে প্রশ্নটা কিন্তুু অামার করাই উচিত ছিলো। কিন্তুু তা হয়ে উঠলো না। প্রশ্নটা করা উচিত কিনা অামি জানি না কিন্তু অামি মনে করি সবার হয়তে প্রশ্নটা জাগতেই পারে।
আসলে ধর্ম কি? ‘ধর্ম’ হচ্ছে কোন কিছুর গুণ বা বৈশিষ্ট্য। জলের ধর্ম তারল্য, অগ্নির ধর্ম তাপ; তেমনিভাবে মানুষের ধর্ম হচ্ছে মনুষ্যত্ব। জলের ধর্ম যেমন জল নিজে সৃষ্টি করেনি বা এমনি এমনি সৃষ্টি হয়নি; ঠিক তেমনিভাবে মানুষের ধর্মও মানুষ নিজে সৃষ্টি করেনি, করেছেন ঈশ্বর। তাই প্রকৃতপক্ষে, ধর্ম হচ্ছে সৃষ্টিকর্তার প্রতি আনুগত্য পোষণের পাশাপাশি মনুষ্যত্বের বিকাশ করা। তাই ধর্মকে কিছু জাতিগত প্রথা ও সাম্প্রদায়িক মতাদর্শের মধ্যে সীমাবদ্ধ করাটা উচিৎ নয়। নিজের মনুষ্যত্ব বজায় রেখে, নিজের সৃষ্টিকর্তার প্রতি বিশ্বাস রাখা, ও একটি আধ্যাত্মিক আদর্শ অনুসরণ করে স্বাভাবিক জীবন যাপন করাটাই প্রকৃত ধর্ম।।

সুতরাং বোঝা যাচ্ছে যে জীবনে ধর্মের গুরুত্ব কতটুকু। আবার জীবন মানেই কর্ম। কর্মহীন জীবন অসম্ভব; তবে হ্যাঁ, নিস্কাম কর্মও কিন্তু এক ধরনের কর্ম। তাই ধর্ম ও কর্ম এই দুইটি বিষয়ের যেকোনো একটির সাপেক্ষে অপরটির শ্রেষ্ঠত্ব নিরূপণ করা সম্ভব নয়। জীবনে ধর্ম ও কর্ম উভয়ই সমান মাহাত্ন্যপূর্ণ, উভয়ই শ্রেষ্ঠ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “ধর্ম না কর্ম? কোনটিতে বিশ্বাসী অপনি.?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 4 = 3