একজন ট্রাম্প কখন ও আমরা

কিছু বিষয় আছে যা আমাকে মাঝে মাঝে আঘাত দেয়।এই যেমন গত ৯ তারিখে নির্বাচন শেষ হলো আমেরিকায় অথচও মতি মিঞার আলো সহ আর কিছু টিলিভিশন বোঝাতে চাইছে এটা আমেরিকার পরাজয়।ধরে ধরে দু একজন হিলারী ফ্যানের বক্তব্য নিয়ে বলছে জনগন খুশি নয়।আসলে মতি মতি থেকে গেল।ট্রাম্প যে হিলারীকে জঘন্য ভাবে পরাজিত করছে তা মানতে মতিদের কষ্ট হয়।

অথচও হিলারী ওবামা সবাই ট্রাম্পের পাশে এসে দাড়িয়েছে।হুমম এটাই গনতন্ত্র।সুক্ষ স্থুল কারচুপি বলে নির্বাচন বর্জনের ডাক দেয়নি কেউ।এগুলো আধিকতর হচ্ছে অবৈধ মুসলিম অধিবাসিদের ক্ষোভের ফল(বিশেষ করে পাকিস্থান ও মিডিলিষ্টের মুসলিম গন)যাদের যে কোন দেশেই সন্দেহের চোখে দেখা হয়।আর কিছু অবৈধ ইমিগ্রান্ট।তাদের ক্ষোভ থাকতেই পারে।এর বাইরে হিলারীর কিছু অন্ধ সমর্থক আছে যারা প্রতিবাদ করবেই।

মতির সবচেয়ে বড় সমস্যা মতি পালস্ বুঝতে পারে না।সে যাই হোক সেটা ভিন্ন কথা।এবার আসি ট্রাম্প ও মুসলিম প্রসঙ্গে।

ট্রাম্প নির্বাচিত হওয়ায় আপনার গলা শুকায় কেন?এই আপনাদেরই কিছু অংশ ভারতে মদি সরকার আর কোলকাতায় মমতা আসার পর অভিনন্দন জানিয়েছিলেন।(বিএনপি.জামাত,হেফাজত,ওলামালীগ)তখন মনে হয়নি এর বিপরীত প্রতিক্রিয়া কত ভয়াবহ হতে পারে।আপনাদের স্বার্থেই সব করেছেন তবে এখন কান্না কেন?

নাসিরনগর,গাইবান্ধা,পাহাড়ে সিলেটে যখন পাহাড়ী সংখ্যা লঘু ও উপজাতি নির্যাতন করছিল মৌলবাদের দল,তখন আপনারা চুপ ছিলেন।অথবা বলেছেন নি্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে ইসলাম এটা সমর্থন করে না।প্রকৃত মুসলিম তা করতে পারে না।আমি বলছি আপনার এই নিরবতা বা তথাকথিত সাফাই।প্রকৃত মুসলমান কি করে সেটা আপনাকেই দেখিয়ে দেয়া উচিত ছিল।হয় প্রতিবাদ না হয় প্রতিরোধ নূন্যতম নিন্দা জানানো উচিত ছিল কিন্তু আপনি তা করেন নাই।কেন করেন নাই আপনিও জানেন আমিও জানি।

তাহলে ট্রাম্প যখন বলছে আমি আমার দেশে মুসলিমদের সাথে তেমন ব্যাবহারই করবো যেমনটা মুসলিম প্রধান দেশ গুলোতে আমুসলিম দের সাথে করে থাকে।তো এতে ভয়ের কি আছে?আপনারাই তো বলেন দেশে সংখ্যালঘু ভাল আছে।ভারতের থেকে ভাল আছে।তবে ভয় পান কেন?কান্দেন কেন?

বাদ দেন একটা কথা বলি।একটা নাটক সম্ভাবত(ক্যারম-২)নায়ক বলে একজনকে যে সবসময় নায়ককে কষ্ট দিত।”আজ তোকে আমি আমার নির্যাতিনের কষ্ট বুঝাবো,আজ বুঝবি তুই আমার যন্ত্রনা।কমরেড অমল সেন তোকে যা বুঝাতে পারেনি,আজ সেই প্রলেতারিয়েতের কষ্ট বুঝাবো) ব্যাপার টা এখানেই অমরা অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী রা সারাজীবন বলেছি আমি আপনি তারা মিলেই দেশ।হিন্দু.মুসলিম,বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ও পাহাড়ীয়া মিলেই দেশ একজনও খারাপ থাকলে দেশ ভাল থাকবে না।আপনি শোনেন নাই।নির্যাতন করছেন এখন নিজে সংখ্যালঘু হবার কষ্ট বুঝুন মুদ্রার আরেক পিঠ দেখেন।যদি তাও শিখতে পারেন কিছু।সবকিছুতে মজা নেয়া ভারত,আমেরিকার পিছে লাগা,আর কথায় কথায় মুখস্ত কথা বলা প্রকৃত মুসলিম এটা করতে পারে না ওটা করতে পারেনা।কি করতে পারে তা আজও দেখান নি।এক মুদ্রা দোষে পরিনত হয়েছে আপনার।কিছুদিন পর বলবেন-
“ইসলাম আমেরিকার তৈরি। মুসলমানরা এর জন্য দায়ী নয়।”
সময় থাকতে সাবধান হন।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 84 = 89