কিছু অনুভুতি – একটি মন- ছন্নছাড়া আবেগ – এই নিয়ে অর্থহীন একটি লেখা

ইচ্ছে ঘুড়ি রাত হয়েছে , আধার নেমেছে , রাত জাগা গল্প শুনাবো তোমায়, ঐ যে একটি দূর্বাঘাস আর ঘাসফড়িং এর গল্প- ইচ্ছে ঘুড়ি কোথায় তুমি – অনেক গুলো স্বপ্ন

জমিয়ে রেখেছি তোমার সাথে দেখব বলে । ইচ্ছে ঘুড়ি চলে এস । এই যে ইচ্ছে ঘুড়ি জানো সেদিন তোমার জন্য একটি কবিতা লিখেছিলাম , শুনবে কি ?
জানি শুনবে না , তবুও শোনাচ্ছি ঐ রাত এর বাতাস কে , ও আমার বন্ধু , অকে বলেছি তোমার ঠিকানাই উড়োচিঠি দিতে।।

” [[►ভালবাসি তাই অপেক্ষা করে যাই◄]]

ভালবাসি ভালবাসি ভালবাসি/
চিৎকার করি/ আকাশ কাপিয়ে ফূৎকার দিই-
মেয়ে, তোমাকে আমি অনেক ভালবাসি।
সে ভালবাসা অসংখ্য সজ্ঞায় সজ্ঞাহীন/
সে ভালবাসা পরিণত মস্তিস্কে কল্পনার অতীত.
প্রাপ্তিহীনতাই বিধ্বস্ত এক অমলিন ভালবাসা/
অনাবিল আশার হাতছানিতে-বিনিময়হীনতায় মুখরিত-
এক আধ্যাতিক হৃদয়ের রক্তে লিখিত ভালবাসা.
কেননা এটা তোমাকে দেওয়া ভালবাসা-
তোমার জন্য লিখিত এক চিরস্থায়ী হৃদয়র কথা।

ভালবাসি মেয়ে,তোমায় অনেক ভালবাসি/
তবে কেন এত ব্যাথা এই অসীম ভালবাসার কুলে?
মেয়ে তুমি কি জানো, শুনতে কি পাও মোর নীরবতা?
এ নীরবতা শুধু তোমাকে চাই-
প্রতিটা মুহূর্তে এ নীরবতা শুধু তোমাকে খুজে বেড়াই।

ভালবাসি মেয়ে,তোমাকে আমি অনেক ভালবাসি/
দিনে দিনে কত না নৌকা ভিড় করে ভালবাসার সাগর তীরে/
কত না মাঝি পার করে ভালবাসা-
এনে দেয় শত আশা কুল হতে কুলের তরে।
সব মাঝিকে ডাকি কাছে শান্ত মনে-
বলি তাদের ব্যাকুল স্বরে ফিসফিসিয়ে-
ওহে মাঝি- নিয়ে কি যাবে মোরে??
ঐ কুলেতে -যেথায় ভালবাসার মেয়েটি বাস করে‼‼
চলে যায় সকলে-মুখটি অমলিন করে//
ও ভাই, ভাই যেও নাকো চলে।
কম্পিত স্বরে ডাক ছুড়ে দিই তাদের পানে,
নিয়ে যাও মোরে- মোর ভালবাসার ঘাটে।

বৃথা কষ্টে বেদনাধারী হয় হৃদয়-
ব্যর্থতার আড়ালে-
অশ্রূ ঝরে ফোটা ফোটা বিন্দুরূপে-অঝোর শ্রাবনে,
অনাবিল প্রত্যাশায় বসে থাকি গ্রীষ্ম-বর্ষা-শীতে।

মেয়ে ভালবাসি তোমায়-অনেক ভালবাসি/
রাত দিন এক করে ভেবেছি তোমার কথা/
স্বপ্নগুলা সঙ্গী করে লিখেছি কতনা রঙিন কবিতা..
তবু কেন কাদালে আমাকে??
কেন ভাসিয়ে দিলে কুলহীন কষ্টের সাগরে‼
তবুও নেই অভিযোগ-নেই কোনো অনুযোগ,
আমি যে এক ভালবাসার রাস্তার পরিব্রাজক।

মেয়ে তোমাকে ভালবাসার সুরে কতনা আপন কন্ঠে ডাকি।
আসবে না কভু এই অসীম ভালবাসার তীরে,
আমি যে বসে আছি একা, তোমাকে নিব বলে.
কি মেয়ে আসবে না এই হৃদয়ের ব্যাকুল অনুভূতির তটে?
অপেক্ষেয়মান হয়েও অপেক্ষা করব মেয়ে
অসীম অর্থহীন সেই অপেক্ষা।

অশ্রুসিক্ত আখি তুলে-
তোমার ঐ পথপানে চেয়ে-
আবারও বলতে চাই চিৎকার করে-
”ভালবাসি মেয়ে-তোমায় আমি সীমাহীন ভালবাসি.”

—-

শরীর , মন, আর মহাকাল ঐ দিগন্ত জুড়ে আধার নেমেছে -কেমন যেন অসংজ্ঞায়িত এক বাস্তবতা । ইচ্ছেঘুড়ি আজ নেই, কাল ও আসবে না।

খুব মনে পড়ছে তোমার কথা । নতুন কিছু নয় সর্বদায় ভাবি । কখনো হয়ত বেশি কখনো হয়ত কম ।
ঘাসের উপর একবিন্দু শিশির কণা তুমি । সেই শিশির কণা সহসা শুকিয়ে গিয়েছিল।। তবুও স্বপ্ন দিয়ে , ভালবাসা দিয়ে, কল্পনা
দিয়ে এখনও তুমি আজও আমার কাছে সেই সহসা পড়া এক বিন্দু ”শিশির কণা” ।।।বাস্তবে তুমি নেই । কলঙ্কিত ভাগ্য দুর্লভ পরিহাস এ মাতোয়ারা হয়েছে ,

”সুপ্রসন্নতার” সুভাস এখন ও যাত্রাপথে । পথের দৈর্ঘ্য আনুমান অতিত । ‘হইত’ -‘নইত’ একটি সংশয় , অপেক্ষার কালাজ্বর এ আক্রান্ত মস্তিস্ক ।। অপেক্ষা আজ নিজেই

অপেক্ষেয়মান ।

অনেক রাতে যখন তোমারর ভাবনায় রাত্রি যাপন করি , তখন অজস্র প্রশ্নের উত্তরে আপন সত্তা আমাকেই অকথ্য ভাষায়
গালিগালাজ করে । কেন ভালবাসি তোমাকে আমি ।?। উত্তর আসে আবেগের সহমর্মিতায় অসীম ভালবাসার সখ্যতাই ৷৷
পথের ধূলা গাত্রে লালন করে যখন পিচ ঢালা রাস্তা ধরে অজানা গন্তব্য পানে হেটে চলি তখনও তোমাই ভালবাসি ।

পথের ধারে নয়ত কোন এক শপিং মল এ বসে থেকে যখন মানুষ দেখি তখন ও হাজারো মানুষের ভিরে তোমাকে খুজি । তোমার মুখের অবাস্তব অবয়ব আকি ।

বন্ধুদের আড্ডায় অথবা কোনো এক পার্কের নির্জনতায় বসে থাকি, বাতাসের সাথে একত্মতা প্রকাশ তোমাকে তখন নতুন প্রত্যয়ে
ভালবাসি ।
প্রতি প্রভাতে ঘুম থেকে উঠে তোমাকে ভাবি। নতুন দিনের নতুন স্বপ্নে তোমার মুখ আকি । পবিত্র রঙের ছান্দসিক প্রয়োগে অনুভূতির তুলির বর্ণিল আচড়ে অঙ্কিত সেই

ভালবাসা যা তোমার জন্য লেখা তোমার জন্য আজীবন স্থায়িত্তের খোলসে মোড়া ।
গভীর রাত এ নিদ্রাবিভুরতাই তোমার কল্পে একফোঁটা মূর্ছনা তৈরি হয় তখন একমুঠো আধার এর হাতে যখন দুই মুঠো স্বপ্ন বন্দী করি। একটি স্বপ্ন তোমাকে নতুন

প্রত্যয়ে আর ও বেশি ভালবাসতে পারার স্বপ্ন, অপরটি তোমার মুখে এক চিলতে হাসি সারাটি জীবন দেখতে পারার স্বপ্ন । এমনি করে প্রতি রাতে এই দুটি স্বপ্নের

পুনরাবৃতি ঘটে । অনুচ্চারিত কিছু কল্প মুহূর্তের আবেগে বাস্তবতার স্পর্শে ছন্নছাড়া গল্পে পরিনত হয় । কেননা ”একতরফা” ভালবাসা, অপূর্ণতা আসবেই। দিগন্তের

আড়ালে আধার ঘুমিয়ে পড়ে , নতুন প্রভাত নতুন প্রত্যয়ে জেগে ওঠে । সেই ছন্নছাড়া গল্পে নতুন অধ্যায় আসে ,।। পদধূলির আস্ফালনে পথের কাব্যে স্বতন্ত্র এমনই কিছু

গল্প রেখে , এগিয়ে চলেছি আমি ।। ধুলার রাজ্যে অমলিন থেকে যায় দুই মুঠো স্বপ্নের সেই ছন্নছাড়া গল্প । তোমাকে ভালবাসার গল্প , তোমাকে ভালবেসে তীব্র আবেগের

গল্প।
অবুঝ হৃদয়ের ভালবাসা ।। জীবনের স্বতন্ত্র গল্পের একটি কথা , ছোট্ট একটি স্বপ্ন , আর একমুঠো রক্তে লিখিত ভালবাসার কাব্য ।

ইতিতে একটি কথা –

*তোমাকে গত কালও ভালবাসতাম, আজ ও ভালবাসি , আগামীকালও ইনশাহ-আল্লাহ ভালবাসব*

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “কিছু অনুভুতি – একটি মন- ছন্নছাড়া আবেগ – এই নিয়ে অর্থহীন একটি লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

96 − = 93