পড়তে জানো না কী লাভ লিখে বলো?

পড়তে জানে না তাকে কী লাভ লিখে বলো?
প্রগতি ও প্রতিষ্ঠার নামে যে গুলি তোমরা ছোড়ো
মৃত্যু ভিন্ন অন্য পথ সে চেনে?
চেতনা চেতনা চিৎকারে সদ্য ধরালে যে চুরুটটা
ধ্বংস ভিন্ন অন্য স্বাদ সে বহে?
বাঁশির হাতে আজকাল খুব বুলেট নিয়ে ঘুরছ না?
অথচ কালকেও খেতে কথায় কথায় কবিতা!

পড়তে জানে না তাকে কী লাভ লিখে বলো?

ব্রেইল হাতেই তোমাদের মধ্যে যে অনুজ, বুঝতে-
প্রগতি কখনো গনশক্তির প্রেরণা ছিল না,

“আফিং”

এবং জনগণ নয় গণতন্ত্রের প্রতিপালক,

“আফিং”

এবং বুঝতে,
প্রত্যেকে এরা মিথ্যের চেয়েও প্রবীণ বয়সে।

শব্দ বেচে, সোয়া কেজি দরে আমরা যারা ব্যবসা করি,
গাঁজার ছাইয়ে চেতনায় যারা আগুন ধরাই
বছর বছরে এ ছাইপাঁশ আমরা জেনে গেছি
পড়তে জানো না কী লাভ লিখে বলো?
“মিথ্যের মত দূর্বার কিছু নাই”

যুদ্ধ মানুষকে একত্রিত করে (করুক)
কোনো কবিতা-ই ধ্বংস সমর্থ করে না

“কবিতা মূলত ঈশ্বরদেরই বাণী”

দেশ, পৃথিবী, মহাবিশ্ব-
প্রেমিক ভিন্ন স্রষ্টার কোনো রূপ নাই
পড়তে জানো? কী লাভ লিখে ছাই!

মূল-

http://himisir.blogspot.com/2016/11/blog-post.html?m=0

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 51 = 56