আল্লার দুনিয়ায় ধর্ষন ও হালাল, তবে তা কেবল মুমিন বান্দাদের জন্য !

ইসলাম ই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম।ইসলামের ছায়াতলে যারা আছে তারা বড়ই ভাগ্যবান আপসোস ও দুর্ভাগ্য আমি এর ছায়াতলে নেই।আল্লা তার বান্দাদের জন্য কিই না করেন। আল্লার বান্দারা যখন যা চান আল্লা তখন ই তা মিলিয়ে দেন।আল্লার মহানুভবতার কথা বলে শেষ করা যাবে না।
?oh=60c0e91b144b76071c60b4c05ea5e20f&oe=58BA725F” width=”400″ />

সম্প্রতি তুরস্কে ধর্ষণ কে বৈধতা দিয়ে একটি আইন পাস হতে যাচ্ছে। তুরস্কের আলেম ওলামা গণ কোরান হাদিস বিশ্লেষণ করে এমনি একটি আইন প্রনয়ন করেছেন। যেখানে বলা হচ্ছে কোনো মুমিন বান্দা অপ্রাপ্ত বয়স্ক কোনো মেয়েকে ধর্ষণ করার পর যদি তাকে বিয়ে করে তাহলে ওই মুমিন বান্দা ধর্ষণ এর শাস্তি থেকে রেহাই পাবে।সত্যি কি দারুন আইন।ছয় বছরের একটি শিশু কে দেখে ঈমান দন্ড দাঁড়িয়ে গেলো সাথে সাথে তাকে ধর্ষণ করে ফেললাম। কেউ দেখে ফেললে বিয়ে করে নিয়ে কিছু দিন পর তালাক দিয়ে দিলাম।

আল্লা তার বান্দাদের জন্য যে কত রকমের সুখ লাভের ব্যবস্থা করেছেন তা অন্য কোনো ধর্মে এর ছিটে ফোটাও আছে কিনা সন্দেহ। তবুও নাস্তিক কাফেররা কেন যে এর ছায়াতলে আসেনা বুঝে আসেনা। আসুন মুমিন বান্দাদের আরো কিছু সুখ লাভের নমুনা দেখি…

?oh=2c9fcb490e142f334eda18c678c087db&oe=58C85704″ width=”400″ />

খবরটি কিছুদিন আগের আইএস ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসা ১২ বছরের এক ইয়াজিদ কিশোরী গণমাধ্যমের কাছে ধর্ষণের এমনই নির্মমতার কথা তুলে ধরেন।
প্রতিবার যখন সে আমাকে ধর্ষণ করতে আসতো আগে নামাজ পড়ে নিত! সে বলতো আমাকে ধর্ষণ করা নাকি নামাজ পড়ার মত!
আমি তাকে বললাম, তুমি যা করছো সেটা ভুল এবং সেটা তোমাকে খোদার কাছে নিয়ে যাবে না।
সে বলতো, না, এটা ইসলামে অনুমোদিত। আমাকে ধর্ষণ করলে আল্লাহর সান্নিধ্য লাভ করা যাবে।ইসলাম ধর্মে বিধর্মীকে ধর্ষণ অনুমোদিত এবং এটা “হালাল”!

নাস্তিক কাফিররা পতিতালয়ে যেয়ে মজা লুটবে আর আল্লার বান্দাগুলো দেখে আপসোস করবে তা কি করে হয়, তাই তো আল্লার নির্দেশে চালু হয়ে গেলো হালাল পতিতালয়।

?oh=ba1d7ebff16a94f9d79592bc7154609d&oe=58C11632″ width=”400″ />

মুসলিম খদ্দেরদের জন্য ধর্মীয় অনুশাসনের সীমার মধ্যে থেকে পতিতালয় চালু হয় নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামে, মালিকপক্ষ যাকে ‘হালাল’ যৌনালয় বলে দাবি করছেন।
হালালভাবে যৌনবৃত্তি চরিতার্থ করার উপায় খুঁজে বের করতে তিনজন আধুনিক মনস্ক ইমামের (ধর্মীয় নেতা) পরামর্শ নিয়েছেন বারের মালিক জনাথন সুইক।

নিজের পালিত কন্যার যৌবন দেখে যদি আপনার ইমান্দন্ড দাঁড়িয়ে যায় আর এতে যদি আপনি অসুখী বোধ করেন আল্লা তার জন্য ও বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছেন।

?oh=0d7eb1bbf054726af333c2ee5ec4feaa&oe=58CB9945″ width=”400″ />

দত্তক কন্যাকে বিয়ে করার বৈধতা দিয়ে একটি বিল পাস করেছে ইরানের পার্লামেন্ট।অর্থাৎ একটি এতিম শিশু কন্যাকে আপনি পেলে পুষে যৌবনবতি করতে পারলে আল্লার নির্দেশে সে আপনার ভোগ্য বস্তুতে পরিণত হবে। আল্লা বড়ই মহান ।
ইরানি প্রেসিডেন্ট ও দেশটির অভিভাবক পরিষদ বিলে সই করলে মাত্র ১৩ বছর বয়স হলেই পালিত কন্যাকে বিয়ে করতে কোনো রকম বাধা থাকবে না। গত রোববার বিলটি পাস হয়েছে।

এবার ভাবুন আল্লার মনোনীত একমাত্র ধর্ম ইসলামের ছায়াতলে এসে এই অপার সুখ ভোগ করবেন নাকি নাস্তিক কাফির হয়ে এই সুখ থেকে বঞ্চিত হবেন ?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “আল্লার দুনিয়ায় ধর্ষন ও হালাল, তবে তা কেবল মুমিন বান্দাদের জন্য !

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

32 + = 36