মৃত্যু বিষয়ক নয়

প্রেম-বিয়ে-সঙ্গম, সংসার করতে করতে তোমরা যারা বৃদ্ধ হও
মৃত্যুর অপেক্ষা ছাড়া তোমাদের কোন কাজ বাকি থাকছে না
সুতরাং কোন পার্থক্য থাকলো না তোমার আর ফাঁসির আসামিটির মাঝে।

বেঁচে থাকার অর্থ তোমরা জানলে না
জানতে পারলে না মৃত্যুর বহুবিদ ব্যবহার,
প্রি-ম্যাচিউর ইজ্যাকুলেশন জটিলতায়
প্রত্যেক পূর্ণিমায় তোমরা বিধবা হলে
মৃত্যুকে ভাবলে বাদরের হাইমেনের মতন
সুতরাং, অপেক্ষা তোমাদের করতেই হবে
অপেক্ষা করতে হবে শ্রাবণ, ডিসেম্বরের দুপুর
আলকাতরার শেষ ফোটাটি পর্যন্ত।

অপেক্ষা বিরক্তিকর বলে তোমাদের মধ্যে যারা উদ্যমী,
তোমরা আগ্রহী হবে ধর্মকর্মে,
প্রত্যেক পূর্ণিমায় তোমরা বিধবা হবে
পোশাকের পরিবর্তে বিলাবে রাশিরাশি কন্ডম
হে অতি উৎসাহী উটপাখিরা,
আমাবস্যা যারা অনিদ্রায় কাটাও,
দ্বিতীয় মৃত্যুর আগে জেনে যেয়ো
‘যে জু’য়ের হায়েনাই হও, গন্ধহীন ফুল মৃত্যুর-ই প্রতীক’
সুতরাং নগ্ন হও, ঘুমাও ভাঙা লাল শোকেজটির তলায়।

গতানুগতিকভাবে তোমরা মরে যাবে বলে
কবরে জন্মায় ইলিশ রঙের ঝাও
অথচ কিছু মানুষ বকুলের মত
থাকে না সমাধি, গোর কবর যে নামেই ডাকো
তবুও তোমরা বিধবা হবে
ফাঁদ সাধবে পলাশের অনাবৃত বোঁটায়।

মৃত্যু বিভীষিকা মুক্তিপণ, হতে পারতো পিপাসা প্রতিদান, প্রেরণা আরেকটি কবিতার।

ব্যক্তিগত ব্লগে-
http://himisir.blogspot.com/2016/11/blog-post_25.html?m=0

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

8 + = 10