ডিজিটাল সেন্টার

দেশে বিগত ৪০ বছরে যে পরিমান উন্নয়ন কর্মকান্ড হয়েছে, নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি পেয়েছে এর চেয়েও কয়েকগুণ বেড়েছে গত পাঁচ বছরে। দারিদ্রের নাগপাশ ছিন্ন করে সমৃদ্ধির সোপানে দেশ, বাস করছি ডিজিটাল যুগে। ডিজিটাল সেন্টার হচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা এবং সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ডে স্থাপিত তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর একটি আধুনিক তথ্য ও জ্ঞানকেন্দ্র, যার উদ্দেশ্য হলো তৃণমূল মানুষের দোরগোড়ায় তথ্য এবং সেবা নিশ্চিত করা। এই কেন্দ্র থেকে গ্রামীণ জনপদের মানুষ খুব সহজেই তাদের বাড়ির কাছে পরিচিত পরিবেশে জীবন ও জীবিকাভিত্তিক তথ্য ও প্রয়োজনীয় সেবা পাচ্ছে। ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাঁর কার্যালয় থেকে এবং জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)’র প্রশাসক ও নিউজিল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মিস হেলেন ক্লার্ক ভোলা জেলার চরকুকরিমুকরি ইউনিয়ন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশের সকল ডিজিটাল সেন্টার একযোগে উদ্বোধন করেন। ‘জনগণের দোরগোড়ায় সেবা’ (Service at Doorsteps)- এই স্লোগানকে সামনে রেখে ডিজিটাল সেন্টারের যাত্রা শুরু হয়। সারাদেশে মোট ৫২৮৬ টি ডিজিটাল সেন্টার আছে। যার মধ্যে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের সংখ্যা ৪৫৫৪ টি, পৌর ডিজিটাল সেন্টারের সংখ্যা ৩২৫ টি এবং নগর ডিজিটাল সেন্টারের সংখ্যা ৪০৭ টি। এ সকল ডিজিটাল সেন্টারে প্রায় ১১০০০ এরও অধিক উদ্যোক্তা নাগরিক সেবা প্রদানে কর্মরত আছে, যাদের অর্ধেক নারী উদ্যোক্তা। এই ডিজিটাল সেন্টারগুলো থেকে বর্তমানে প্রায় ১০০ টিরও অধিক সরকারি ও বেসরকারি সেবা প্রদান করা হচ্ছে। ডিজিটাল সেবায় এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “ডিজিটাল সেন্টার

  1. ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে
    ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে সরকার উন্নত তথ্য-প্রযুক্তি সেবা জনগনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিচ্ছে ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

21 + = 22