ওই তোর দেশী চ্যানেলের মায়েরে বাপ…


এখন বিশ্বায়নের যুগ। নানা দেশের নানাকিছু নিয়া আমরা জানব। কিন্ত উনারা এইযুগেও বিশ্বের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চান। সৌভিয়েত রাশিয়া কিংবা কিউবায়ও তো বিদেশী সিরিয়াল ডাবিং কইরা প্রচার হইতো। আপনাদের প্রডিউসকৃত পচা চাইলের ভাত রাইখা আমি বাসমতিতে আকৃষ্ট হইলে আমার কি দোষ? আগে আপনারা জাতে উঠেন, এরপর স্বর উঁচা করেন।

বিজ্ঞাপন বিদেশী চ্যানেলে যাবে না তো দেশী চ্যানেলে আসবে? কোম্পানীর পাবলিকেরা কোম্পানীর ব্যবসা কীসে ভালো হবে ঠিকই বুঝে। আমি চাই যতদিন পর্যন্ত আপনারা নিজেদের ঠিক না করতেছেন ততদিন পর্যন্ত বিজ্ঞাপন বিদেশী চ্যানেলেই যাক। দেশের বেশিরভাগ মানুষ ওইসবই দেখে। একসময় দেশে হাজার হাজার সিনেমা হল ছিল, এখন নাকি সারাদেশে ৩০০-৪০০ ধুইকা ধুইকা চলে। চলচিত্রমির্মাতারা তো দেশী চলচ্চিত্র শিল্পের গ্যাং রেপ কইরা ছাড়ছেন ইতিমধ্যে, আপনারাও সেই একই অবস্থা করতেছেন।


কয়দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদেশি সিরিয়াল প্রচার বন্ধ করতে আন্দোলনের ডাক দিছেন দেশী কয়জন প্রডিউসার ডিরেক্টর। মাঝে মানববন্ধন হইলো, শিল্পী এবং কলাকুশলীদের নানাজনে নানা বক্তব্য দিলেন। খবরে দেখলাম জনাব আবুল হায়াত মউত সব আল্লার হাতে সাহেব কঠিন কঠিন কথা বলতেছেন। ডিরেক্টরস গিল্ডের লোকজন বলছেন বিদেশী সিরিয়ালই না কেবল, বাইরে থাইকা কেউ আসাও বন্ধ করতে হবে। উনাগো কথা হইলো বিদেশী লোকজন আর সিরিয়াল আইসা দেশী ভাই ব্রাদারদের ভাতে মরার মতন পরিস্থিতি হইছে। আবার দেশী চ্যানেল মালিকরাও দাবী করতেছেন বিদেশী চ্যানেলের উপর মাশুল বসাইতে। তাতে তাহাদের ব্যবসাইক স্বার্থ উসুল হইবে আরকি… জনাব আবুল মাল সাহেবও এই ব্যাপারে নাকি নির্দেশনা দিছেন।

কথা হইলো কেন মানুষ তাদের বানানো এইসব জিনিস দেখে না। জনাব হায়াত মউত সাহেব নিজেই একটু চিন্তা কইরা দেখতে পারেন উনি অতীতে কেমন মানের কাম করতেন আর এখন টিভিতে কীসে অভিনয় করেন। অভিনয় না বইলা ভাঁড়ামি বললে খুব বেশি বলা হবে নাকি? না থাক, ভাঁড় বললাম না, উনি অতীতে অনেক ভালো অভিনয় করছেন। কিন্তু বুঝি না কেন উনার বর্তমানের প্রকৃত সমস্যা চোখে পড়ে না। সময়ের সাথে সবকিছু আরও উন্নত হওয়ার কথা, উনাদের অবনতি হয় কেনু? কেনু কেনু কেনু??

নানা চ্যানেলে কালেভদ্রে দুইচারটা মানসম্পন্ন আর বিরতিহীন নাটক ছাড়া আর কিছু আসতেছে নাকি জানি না। যেইগুলা আসে তাও গ্রামীন, এয়ারটেল, রবির মত বড় কোম্পানীগুলার টাকা ঢালার ফসল, নিজ উদ্যোগে কিছুই হয় না। প্রকৃত সত্য হইতেছে এখন উনারা যা প্রডিউস করতেছেন তার বেশিরভাগই গার্মেন্টসের মাইয়ারাও দেখবে না। তাদেরও সময়ের দাম আছে, তাদের রুচিও এখন এত সস্তা নাই যে এইসব গিলতে হবে।

আমার যদি মনে হয় আমি দেশী চ্যানেলে বিদেশী সিরিয়ালের মানহীন নকল দেখব না, সেইটা আমার ব্যাপার। আমার যদি মনে হয় আমি দেশী চ্যানেলে ফইন্নি টাইপ প্রোগ্রাম দেখব না, আকর্ষণহীন খবর দেখব না, টকশোর নামে ঘ্যানঘ্যান শুনব না, সেইটা একান্তই আমার ব্যাপার। এই যুগ আর সেই যুগ নাই যে এক চ্যানেল যা গিলাবে তাই গিলতে হবে।

দেশী চ্যানেলের মধ্যে প্রাগৈতিহাসিকযুগে একমাত্র একুশে টিভি ছাড়া অন্য কোন চ্যানেল চ্যাটের বাল ছিড়া ডেনিম কাপড় বানাইছে মনে করতে পারতেছি না। নিজেদের প্রোগ্রামে একটাও ইনোভেটীভ আইডিয়া দেখলাম না, নিজস্বতা বইলা কিছু নাই। ক্লোজ আপ ওয়ান বলেন আর হাল আমলের হিরো নাকি জিরো নাকি কি জানি পাওয়ারড বাই বাংলাদেশ আর্মি, সবই তো অন্য বিদেশী চ্যানেলের কোনো না কোনো জনপ্রিয় প্রোগ্রামের নকল। এখন বলেন, আমি অরিজিনাল ছাইড়া নকলে কেন মাতবো?

বিজ্ঞাপন বিরতির কথা আর কি বলব, কখন শুরু হবে আর কখন শেষ, তা আল্লাই জানেন। ৪০ মিনিটের নাটক বা অন্য প্রোগ্রাম দেখতে বিজ্ঞাপন, খবর আর এইটা সেইটা ব্রেকের কারণে ২ ঘন্টা লাগে। এইদেশে কি দিন ৪৮ ঘন্টায় হয় নাকি?

দেশী চ্যানেলে খেলা দেখা? না ভাই, আমি ওইটাও দরকার হইলে স্টার স্পোর্টসের হিন্দী ভার্সনে নাইলে পাকিস্তানী চ্যানেলেও দেখতে রাজী, দেশী চ্যানেলে না। প্রতি ওভাবে একটা বল খাবেই, আর আউট হইতে না হইতে বিজ্ঞাওন শুরু। আউটের পর খেলার মজাই তো রিপ্লে দেখা। এইসব দেশী আহাম্মক পরিচালিত চ্যানেলে খেলা আমি কেন দেখব?

দেশী চ্যানেলের উপর ভারতে মাশুল ৫ কোটির কথা বলবেন তো অনেকে, আমি বলব যৌক্তিক। নিজেদের সুরক্ষা ওরা দিবে না কেন? আমাগো কে মানা করছিলো। আমার তো মনে হয় বাংলাদেশী চ্যানেল সম্প্রচারের জন্য মাশুল আরও বাড়ানো দরকার। নিজেদের দেশের জনগণের মানসিক যন্ত্রণার এবং রুচি নীচে নামাইয়া দেয়ার রিস্ক উনারা নিতে যাবেন কেন?

এখন বিশ্বায়নের যুগ। নানা দেশের নানাকিছু নিয়া আমরা জানব। কিন্ত উনারা এইযুগেও বিশ্বের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চান। সৌভিয়েত রাশিয়া কিংবা কিউবায়ও তো বিদেশী সিরিয়াল ডাবিং কইরা প্রচার হইতো। আপনাদের প্রডিউসকৃত পচা চাইলের ভাত রাইখা আমি বাসমতিতে আকৃষ্ট হইলে আমার কি দোষ? আগে আপনারা জাতে উঠেন, এরপর স্বর উঁচা করেন।

সময়ের সাথে পরিস্থিতির উন্নতি হবে না, মানের উন্নতি হবে না। এইদেশে প্রথম যখন চ্যানেল আই যাত্রা শুরু করে, তখনকার অনুষ্ঠানের মান, সময়সূচী মাইনা চলা সহ সব এখনকার চেয়ে খারাপ ছিল বলা যাবে না। তখন এইদেশের চ্যানেলে একান্নবর্তী, ৪২০ হইতে পারলে এখন পারে না কেন? হুমায়ুনী জমানার বিটিভির কিংবদন্তীতুল্য ধারাবাহিক কিংবা এক পর্বের নাটক কিংবা অন্য অনুষ্ঠানের উদাহরণ দেয়ার দরকার নাই। সময়ের সাথে উন্নতি হবে না, প্রথমে উন্নতি দরকার এদের মানসিকতার। দর্শক কেন তাদের ছাইপাশ গিলতে চায় না এই ব্যাপারে আত্মউপলব্ধির…

বিজ্ঞাপন বিদেশী চ্যানেলে যাবে না তো দেশী চ্যানেলে আসবে? কোম্পানীর পাবলিকেরা কোম্পানীর ব্যবসা কীসে ভালো হবে ঠিকই বুঝে। আমি চাই যতদিন পর্যন্ত আপনারা নিজেদের ঠিক না করতেছেন ততদিন পর্যন্ত বিজ্ঞাপন বিদেশী চ্যানেলেই যাক। দেশের বেশিরভাগ মানুষ ওইসবই দেখে। একসময় দেশে হাজার হাজার সিনেমা হল ছিল, এখন নাকি সারাদেশে ৩০০-৪০০ ধুইকা ধুইকা চলে। চলচিত্রমির্মাতারা তো দেশী চলচ্চিত্র শিল্পের গ্যাং রেপ কইরা ছাড়ছেন ইতিমধ্যে, আপনারাও সেই একই অবস্থা করতেছেন।

আর তাই এখন যদি আপনারা আমারে দেশী চ্যানেল দেখতে বলেন, তাইলে বলবো,

“ওই তোর দেশী চ্যানেলের মায়েরে বাপ…”

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 39 = 41