কবিতাঃ অসম্ভব শব্দটা আজ একেবারেই সম্ভব নয়

আজ অনন্ত অম্বর জুড়ে নক্ষত্রেরা-
একে একে চুরমার হয়ে যাচ্ছে,
বিস্ফোরণের মলিন গর্জন-
শুনতে পারো কান পেতে!
তাদের ছিন্নভিন্ন অতিকায় টুকরোগুলো-
ধুমকেতুর মত ছুটে চলেছে দ্বিগবিদিক!

তুমি যে আতশবাজির আবদার করেছিলে…

আজ অনন্ত অম্বর জুড়ে নক্ষত্রেরা-
একে একে চুরমার হয়ে যাচ্ছে,
বিস্ফোরণের মলিন গর্জন-
শুনতে পারো কান পেতে!
তাদের ছিন্নভিন্ন অতিকায় টুকরোগুলো-
ধুমকেতুর মত ছুটে চলেছে দ্বিগবিদিক!

তুমি যে আতশবাজির আবদার করেছিলে…

আজ আকাশে তাকিয়ে দেখো একবার,
একপাশে সূর্য তার, আরেকপাশে পূর্ণদেহের চাঁদ;
অর্ধেকে আলোক, অর্ধেকে আবছা আঁধার নিয়ে-
স্থির হয়ে অপেক্ষায় তোমার ইশারার…

তুমি দিন চাও, নাকি রাত?

আজ অল্প আঁচেই জল ফুটবে সাগরে,
দুপুরবেলা মাথার উপর সূর্য নিয়ে-
আজকে হবে বরফ অনুভব…

জেনো, আজ সব সম্ভব, একেবারে সব!

আজ নিঃসংকোচে চাও যেকোনো কিছু!
পঙ্খীরাজে চড়ে চন্দ্রভিযান কিংবা
হাওয়ায় হাওয়ায় অবারিত স্বর্গোদ্যাণ!

অসম্ভব শব্দটা আজ একেবারেই সম্ভব নয়…

কারণ, এতদিন নিরেট বিতৃষ্ণা নিয়ে-
যেই যুবক অর্ধাঙ্গিনীর প্রয়োজন অস্বীকার করছিল,
তারও সর্বাঙ্গ জুড়ে আজ তোমার অকস্মাৎ আগ্রাসন…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 27 = 33