আমার প্রিয়কেও সম্মান দিন

তোমাকে নিয়ে আমার লেখার শেষ নেই। কত কত যে কথা লেখে ফেলেছি নিজে পড়লেই অবাক হবে তুমি। কিন্তু এখন কিছু লেখতেও তোমায় নিয়ে আমায় ভয় হয়। আসলেই ভয় হয়। যদি কখনো লোকচক্ষুর আড়ালে সময়ের আগে দেহ ছেড়ে যায় এই প্রাণ তবে তো সবাই তোমাকেই দোষারোপ করবে। বলবে এই ছেলেটার জন্যই মেয়েটা অভিমান নিয়ে চলে গেলো। এই ছেলেটাই সবকিছুর মূল।

তোমার নাম কোথাও ওভাবে দেওয়া না থাকলেও তারা তোমাকে ঠিক খুঁজে বের করবে। খুঁজে পেলে তো কোন কথাই নেই। যাকে আমি এতো ভালবেসে আকড়ে থাকতাম সেই মানুষটাকেই আমার দেহত্যাগের সাথে সাথেই এতো পঁচা কথা শুনিয়ে যাবে এটা কেমন না !

জানো তুমি, শাকিল ভাই যেদিন মারা গেলেন সেই্দিন ওনার সেই লেখার মানবীকে নিয়ে মানুষ কত নোংরা কথাই না বললো। খুব খারাপ লেগেছে আমার। আর একদিন ওনার এই মানবীকে নিয়েই সবার কত বাহবা ছিল। উনি চোখ বন্ধ করার সাথে সাথেই সব কিছু পাল্টে গেলো, উনি নিশ্চয়ই অনেক কষ্ট পেয়েছে। নিশ্চয়ই উনি বলতে চেয়েছিলেন ওকে কিছু বলো না, ওকে আমি অনেক ভালবাসি। ওকে তোমরা আঘাত করোনা এমন করে। ওর চোখে পানি এলে আমারো তো চোখ ভিজে।

মরে যাওয়া মানুষগুলোর তো কোন শব্দ কারো কাছে পৌঁছে না। তাই যার যেমন খুশি রঙ মাখায়। কেন যে তারা সম্মানটা করতে পারেনা জানা নেই। তাই আজ আমারো ভয় হয় তোমায় না কেউ অসম্মান করে বসে আমার জন্য।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

37 − = 34