কুড়িয়ে পাওয়া

বয়োজ্যেষ্ঠরা বলে, ‘পথে পড়ে থাকা জিনিস কুড়িয়ে নিতে নেই’।
তবে এক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা আছে।
কিছু কিছু জিনিস পথ থেকে কুড়িয়ে নিলে প্রথমত অকার্যকরী কিছু মনে হলেও,একটা সময় সেসব জিনিসগুলো সবচেয়ে কার্যকরী আর মহামূল্যবান জিনিস হিসেবে চিহ্নিত হয়।
যেমন:
কুড়িয়ে পাওয়া ফুল,
কুড়িয়ে পাওয়া ফল,
কুড়িয়ে পাওয়া ভালোবাসা,
আর কুড়িয়ে পাওয়া সন্তান।
বিশ্বাস হচ্ছে না, তবে নিচের কথাগুলো বিশ্বাসযোগ্যতা এনে দিতে পারে,
একটা কুড়িয়ে পাওয়া ফুল অর্থকড়ি ব্যয় করে কিনা বাজারের রঙিন ফিতে মোড়ানো ফুল কিংবা প্লাস্টিকের ফুলের চেয়েও দারুণ সুবাস ছড়াতে পারে।
একটা কুড়িয়ে পাওয়া ফল আপনি না খেতে পারলেও,
ঘরের বাইরে ছুঁড়ে ফেলে দিলেও সেটা একসময় ফলদায়ক ও অক্সিজেন এবং ছায়াপ্রদানকারী সুবিশাল বৃক্ষের সৃষ্টি করবে।
পথের দাবি হিসেবে কুড়িয়ে পাওয়া ভালোবাসাও বিশাল ভালোবাসার ইতিহাস সৃষ্টি করতে পারে।
ইতিহাস ও আজকের বাস্তবতা সাক্ষী দেয়, আজ অবধি আয়োজন করে সৃষ্ট ভালোবাসার মেলবন্ধন একটুও টিকেনি, টিকে গেছে কুড়িয়ে পাওয়া ভালোবাসার মেলবন্ধন।
একটি কুড়িয়ে পাওয়া সন্তান হয়তো আপনার সন্তানের চেয়েও আপনাকে বেশি শ্রদ্ধা ও যত্ন করতে পারে,কেননা সে পিতৃদেবের স্নেহের মূল্য ও অভাবের পরিস্থিতি বুঝতে পারে।

তবে আমি বলবো না, যে কুড়িয়ে পাওয়া সবকিছুই কার্যকরী ও মূল্যবান,
তবে কিছু বস্তু আছে যা একেবারেই মূল্যহীন কিছু নয়।
ভালোমন্দ বুঝে কুড়িয়ে পাওয়া জিনিসগুলোর মূল্য দিতে পারেন।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + 3 =