দ্রোহ মিছিলের ডাক

মোঘল দিনের
পরিত্যক্ত ইট সুরকির দালানে
একটু ভালো শোবার ঘর।
ধূলিমাখা মেঝে, সিগারেটের ছাই-পাশ, তরকারি
ডিমের খোসা, মাকড়শার জালে ঘেরাও ভাঙা জানালা,
রঙপোড়া ভাঙা খাটে ছেঁড়া বিছানা
অগোছালো জামা কাপড় আ-ধোয়া
যত্রতত্র বই, পত্র-পত্রিকা, খাতা-কলম সবখানে
এমনি নোংরা পরিবেশে
তুমি এসেছো আলতা রাঙা নগ্ন পায়।
ভ্যাপসা, পুতিগন্ধ নাকে টিস্যু রেখে
ছারপোকার দখলকৃত বিছানায় বসেছো,
সামন্ত কুমারি অনায়াসে।
রম্য করে, চাপল চাহনিতে, টুকটুকে লাল ঠোঁট,
বলতে পারো,
অগোছালো, বিশৃঙ্খল, পুতিগন্ধময় শোবার ঘরখানি,
মনে হয়,
সুন্দর
মনোরম
ভালোবাসায়
বিপ্লবী চেতনায়।
নির্জনে বাস করে
আগামীর চে গুয়েভেরা,
এখানে কবিতা লিখা হোচিমিন,
গল্প লিখে তলস্তয়।
এখানে বসে পাঠচক্র পরিকল্পনা হয় শ্রেণী যুদ্ধের।
কমরেড,
এই কারণে তোমায় ভাললাগা, ভালবাসা।
শার্টের বোতাম খুলে লোমশবুকে
হলুদ রাঙা মূখটি রেখে ফিসফিস শব্দে মন্ত্রের উচ্চারণে,
কোমলে কঠিনে
যদি আমায় পেতে চাও
গণমিছিলে শ্রেণী সংগ্রামে
তবে একটু বদলে আলস্য ঝেড়ে, পরিস্কার পরিছন্ন হও,
বিপ্লবে
সুস্থ সবল, যোদ্ধার প্রয়োজন।

প্রিয় লেখক ও কবি – কক্সবাজারের প্রগতিশীল ও লেখনীয় ব্যাক্তিত্য মানিক বৈরাগীর বিপ্লবী কবিতাটি তার প্রথম কবিতার বই “গহীনে দ্রোহ নীল” নামক বই থেকে সংগ্রহ করলাম।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

90 − = 86