কার্য-কারন সম্পর্ক ও ভবিষ্যদ্বাণী

১.১ জগতের ঘটনা সমূহের মধ্যে কার্য-কারন সম্পর্ক আছে বলেই আমরা জগতকে বুঝতে পারি। কার্য-কারন সম্পর্ক ব্যতীত আমরা জগতকে বুঝতে পারিনা।

১.২ জগতে একই ঘটনা বার বার ঘটেন। তবে সদৃশ কিংবা প্রায় অনুরুপ ঘটনা বার বার সংঘটিত হয়। জগতে সদৃশ ঘটনার অনুক্রমিতায় সদৃশ ঘটনা বার বার সংঘটিত হয়। অর্থাৎ অনুরুপ ঘটনাচক্র বার বার সংঘটিত হচ্ছে। ঘটনাচক্রের যে ঘটনা আগে ঘটে তাকে আমরা পরের ঘটনার কারন বলি। এবং পরের ঘটনাকে আগের ঘটনার কার্য বলে।

১.৩ কার্য-কারন সম্পর্ক মূলত আরোহের নীতিতেই প্রতিষ্ঠিত। সাদৃশ্যপূর্ন ঘটনার পুরাবৃত্তিই আমাদেরকে কার্য-কারন নিয়মে বিশ্বাসী করে তুলে।

১.৪ বস্তুজগতে কার্য-কারন সম্পর্কের মাধ্যমে আমরা ভবিষ্যদ্বানী করে থাকি এবং ভবিষ্যদ্বাণী সঠিক হয় বলেই কার্য-কারনের সম্পর্কটা আর সুদৃঢ় হয়।

১.৫ কার্য ও কারনের মধ্যে আমরা অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক আবিষ্কার করি।

১.৬ আইনস্টাইনের আপেক্ষিতারতত্ত্বানুসারে, কার্য ও কারনের মধ্যে অবিচ্ছেদ্য কোন সম্পর্ক নেই। ঘটনাচক্র হলো একটা দেশ-কালিক অবস্থান মাত্র। ঘটনার দেশ-কালিক অবস্থান বর্ননা করার সুবিধার্থে আমরা কার্য-কারন সম্পর্ক আরোপ করি।

১.৭ বস্তুজগতে কার্য-কারন সম্পর্ক আরোপ করে আমরা সহজেই ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারি। কিন্তু ব্যক্তি ও সমাজে কার্য-কারন সম্পর্ক প্রয়োগে ভবিষ্যদ্বাণী করা খুবই কঠিন।

১.৮ মানুষ সচেতন প্রানী এবং তার ইচ্ছার স্বাধীনতা আছে বলে ব্যক্তি মানুষের ভবিষ্যদ্বাণী করা সহজ নয়। অন্যদিকে ব্যক্তি মানুষের চেয়ে সমাজের সামষ্টিক মানুষের ভবিষ্যদ্বাণী করা সহজ।

১.৯ ব্যক্তি ও সমাজের উপর যে কোন ভবিষ্যদ্বাণীর ঘোষণাই ভবিষ্যদ্বাণীকে বাতিল করে দিতে পারে।

১.১০ ধরা যাক, একজন অভিজ্ঞ শিক্ষক তাঁর এস, এস, সি পরীক্ষার্থী দুইটি ছাত্রের ভবিষ্যদ্বাণী করলো যে, তারা উভয়ই আসন্ন পরীক্ষায় ইংরেজি ও গনিতে ফেল করবে। ধরাযাক, ভবিষ্যদ্বাণীটি ১ম ছাত্রের অভিভাবককে বলে দেয়া হলো এবং ২য় ছাত্রের বিষয়টি গোপন রাখা হলো। ১ম ছাত্রের অভিভাবক সচেতন থাকায় ছাত্রটিকে স্পেশাল কেয়ারে পড়াশোনায় রাখা হলো। পরীক্ষার ফলাফলে দেখাগেল ১ম ছাত্রটি পাস করল এবং ২য় ছাত্রটি সংশ্লিষ্ট সাবজেক্টদ্বয়েই ফেল করলো। তার মানে দাড়ালো ১ম ছাত্রের ক্ষেত্রে ভবিষ্যদ্বাণীর ঘোষণাই ভবিষ্যদ্বাণীকে বাতিল করলো।

১.১১ অতএব, ভবিষ্যদ্বক্তাকে এমন ভাবে ভবিষ্যদ্বাণী করতে হবে যাতে তাঁর ঘোষণাটি যতটুকু প্রভাববিস্তার করবে সেটুকুসহ বিবেচনা করে। অথবা ভবিষ্যদ্বাণীর ঘোষণাটি হবে শর্তযুক্ত।

১.১২ অনুরূপভাবে সমাজের ক্ষেত্রে ভবিষ্যদ্বাণী করতে গেলেও সমাজের অভ্যন্তরের ফ্যাক্টরগুলো ঘোষণার প্রেক্ষিতে কতটুকু ক্রিয়াতৎতপরতা দেখাবে সেটা বিবেচনা করেই ভবিষ্যদ্বাণীর ঘোষণা দিতে হবে।

১.১৩ আর এজন্যই সমাজ বিজ্ঞান ও রাষ্ট্র বিজ্ঞানের মত সামজিক বিজ্ঞানে কার্য-কারন সম্পর্ক সুদৃঢ়ভাবে আরোপ করা যায়না বলেই পদার্থবিজ্ঞানের মত ভবিষ্যদ্বাণী করা যায়না।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + 3 =