মূর্ত কিংবা মূর্তি

মূর্ত কিংবা মূর্তিঃ

পড়লেই জানতে পারবে। জানলেই বুঝতে পারবে। বুঝতে চাইলেই মূর্তি চাই। মূর্তকে না জানলে অমূর্তকে জানা যায়না। দৃশ্যের জ্ঞান ব্যতীত অদৃশ্যের জ্ঞান সম্ভব নয়।

শিশুর বর্ন কিংবা অক্ষরের পরিচয় ঘটে ছবি থেকেই। আগে বস্তুর জ্ঞান, তারপর অবস্তুর জ্ঞান। যার বস্তুর জ্ঞান নেই, তার অবস্তুর জ্ঞানও নেই।

ঈশ্বর বলেন আর শক্তি কিংবা কার্য-কারন বলেন তা জানতে হলে আগে আপনাকে মূর্তকেই জানতে হবে।
মূর্ত থেকেই বিমূর্তের ধারনা জন্মে। আকার থেকেই নিরাকারের ধারনা জন্মে। কিছু আছে থেকে কিছুনাই এর ধারনা জন্মে।

বিমূর্ততাই মূর্ততার উৎস! এই ধারনাটা কিংবা জ্ঞান তখনই হবে যখন আপনি মূর্তকেই ভালোভাবে জানবেন!!!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

91 − 88 =