পুজা: একটি বিশেষ পাঠ

১.১ পূজা শব্দটি বিভিন্ন অর্থ জ্ঞাপক। পূজা মানে আত্মসমর্পন, শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রদর্শন, উপাসনা, কাঙ্খিত বস্তু বা বিষয়ে প্রাপ্যতার আরাধনা ইত্যাদি।

১.২ ধার্মিক-অধার্মিক, আস্তিক-নাস্তিক-অজ্ঞেয়বাদী সবাই কমবেশী পূজারী। কেউ সাকারে, কেউ নিরাকারে পূজা করে। কেউ মূর্তি পূজক, অগ্নিপূজক কেউবা নিরাকার ঈশ্বরের পূজক ইত্যাদি ইত্যাদি।

১.৩ কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির পাথরের মূর্তিতে স্যালুট প্রদান কিংবা সম্মান প্রদর্শনও পূজা। জাতীয় পতাকা কিংবা স্মৃতিসৌধ কিংবা স্মৃতিস্তম্ভে পুস্প অর্পনও পূজা। মুসলিমগন যখন মুহম্মদ (স) এর স্মৃতি বিজড়িত হাজরে আসওয়াদ পাথরে চুম্বন প্রদর্শন করে তখনও তা পূজা। কাবা শরীফকে সন্মুখে রেখে নিরাকার আল্লাহর আরাধনা/উপাসনা/প্রার্থনাও পূজা। লেনিন-স্ট্যালিন-মাওসেতুং কিংবা কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির পাথরের মূর্তীতে স্যালুট প্রদান, পুষ্পার্পন কিংবা সম্মান প্রদর্শনও পূজা। কল্পনায় কোন বস্তু পাওয়ার আকাঙ্খাও পূজা।

১.৪ অতএব, পুজারী ব্যতীত কোন মানুষ নেই। যার কোন চাওয়া-পাওয়া-আকাঙ্খা আছে সে পুজারী হতে বাধ্য।

১.৫ একমাত্র ঈশ্বর তুল্য মানুষেরই পূজা করতে হয়না। কারন তাঁর কোন চাওয়া-পাওয়া-আকাঙ্খা নেই। কারন তার কোন অভাব নেই_তিনি পূর্ন_তিনিই উপাস্য। কোন অশুভ শক্তি তাকে স্পর্শ করতে পারেনা। ব্লাকহোলের কিয়দংশও তার মধ্যে নেই_তিনি হোয়াইটহোল_তিনিই সৃষ্টির উৎস। তার ভালোবাসার আলোক রশ্মিতে সকলেই আলোকিত!!!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

28 − = 26