ধর্ম যেভাবে গ্রাস করে। আত্নকথা পর্ব – ২য়

তো স্কুলের হিন্ধুধর্মের বন্ধুদের সাথে প্রথম প্রথম মেলামেশা করতাম না।তাদের দেখে কেন যেন আমার গা ঘিন ঘিন করত।খুব ন্যারো মাইন্ডের ছিলাম।কথায় নেংটির বাচ্চা বলে তাদের গালি দিতাম আর ক্ষ্যাপাতাম।

তাদের প্রতি আমার এ আচরণ কিন্তু আপনা-আপনি নিজে থেকে তৈরি হয় নি।আমাকে যেভাবে আমার পরিবারটি শিক্ষা দিয়েছিল।আমার আচরণ ছিল সেসব শিক্ষারই বহিঃপ্রকাশ।যা এখনও প্রায় বেশিরভাগ গ্রামের মুসলিম পরিবারগুলো তাদের সন্তানদের দিয়ে থাকে।

আচ্ছা তবে এবার বলে নেয়া যাক।আমাকে আমার পরিবারটি কি শিক্ষা দিয়েছিল?আমাকে বলা হতো হিন্দুদের সাথে মেলামেশা করবি না।ওদের থেকে কিছু খাবি না।ওদের বাড়িতে যাবি না।ওদের সাথে চলাফেরা করবি না।আমি তখন বলতাম কেন তাদের সাথে মেশা যাবে না?আমার প্রশ্নের উত্তরে আমার বাবা – মা বলেছিল,যে যার সাথে যে মিশবে তার সাথে তার হাশর হবে।পাপ হবে।গুনাহ হবে।আর গুনাহকারীকে আল্লা শাস্তি দিবে।

আমি তখন আমার ক্ষুদ্র মস্তিষ্কে ওতোসব বুঝতাম না।তবে এতটুকু বুঝেছিলাম জাহান্নামে পাপীকে শাস্তি দেওয়া হবে।যেহেতু আমি জানতাম জাহান্নামে রয়েছে কঠিন আগুন।এজন্য ভয় করতাম।

এখন বর্তমানে আমার কাছে জাহান্নাম বলতে নিছক কল্পনা ছাড়া কিছুই নয় ।

চলব…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

3 + 1 =