মনের কথা মনে রাখতে হয়… কিন্তু তোমায় না বলে থাকতে পারলাম না…

#মনের_ক্যানভাসটা আমার একটা ডায়েরির মতই তার সাথে আমার সবকিছুই শেয়ার করি… তাই তোমার বলা কথাগুলোর প্রতিউত্তর না দিয়ে থাকতে পারলাম না…
আমার ভালোবাসা, সে তো আমাকেই ভাবতে হবে। তাকে নিয়ে আমার স্বপ্ন, তার ভালো-মন্দ, সুখ-দুঃখ, অনুভূতি এ সব তো তাকেই বলা যায়। এটা আমি জানি, ভালোবাসার কথা শুধু মুখে বললেই সত্যিকারের ভালোবাসা বলা যায় না তাকে। কিন্তু দিন শেষে কি একবারও তাকে বলতে ইচ্ছে হবে না ‘আমি তোমাকে আমার মুখের কথার চেয়েও বেশী ভালোবাসি!’ না দেখলে ভালো লাগে না, তোমার কথা একটা লম্বা সময় ধরে না শুনলে বা কথা না বলতে পারলে আমি অস্থীর হয়ে যাই! যাই হোক, জীবনেতো আর শেখার শেষ নেই, তাই না! আমার ভালোবাসার মুখেই আমাকে নতুন করে শিখে নিতে হলো সত্যিকারের ভালোবাসার সংজ্ঞা। শুধু অভিমান আর ঝগড়াকে কি ভালোবাসা বলে? কদিন আমার কথাগুলো তোমায় নাড়া দিয়েছে বলতে পারো? তোমার বোঝার মতো ক্ষমতাই নেই যে, আমি কিসের মধ্যে আছি। নিজ কেন্দ্রীক মনোভাব ছাড়া কি আছে তোমার? শুধু পারো জোড় করতে আর অন্যের সাথে নিজেকে তুলনা করতে, এটাকে কি বলে ভালোবাসা? ২ মি. কথা বলতে না পেরে অস্থীর হওয়াকে কি বলে অনুভূতি? না দেখা করলে ভালো লাগে না, এটা কি প্রেম? অন্য কারো কথা শুনলেই তাতে নিজে ছোটো হওয়ার চিন্তা করা, এটা কি অনুভূতি? আমার তা মনে হয় না! একফোঁটা বিশ্বাস নেই আমার প্রতি, একটু রেসপেক্ট নেই। শুধু কেনো তোমাকে ফোন করলাম না, কেনো খাওয়ার সময় জানালাম না, কেনো সবকিছু জানালাম না, কেনো এটা করলাম না, ওটা করলাম না, প্রশ্নে প্রশ্নে জর্জরিত, এসএমএস, ফোন, অযথা ঝগড়া, এটা কি ভালোবাসা? তাহলে আসল অনুভূতির কি কোনো মূল্য নেই, যা বলি তুমি সেটা বোঝো না, সব সময় প্রতিধ্বনি একটা ভাব, কেনো? কেনো করবে? কোনো কিছু শেয়ার করলে সেটা তোমার গায়ে লাগে না, এটা কি বলে ভালোবাসা? আমিও একটা মানুষ, কিন্তু সবার মতো নয়, আমি আমার মতো, ঠিক আমার মতো, আর তা না হলে সেই প্রথমেই থেকে যেতাম। আমি ক্লান্ত, এই ভালোবাসায় আমি বিশ্বাসী না, আমি বিশ্বাস করে ভালোবাসি, আমি অনুভব করে ভালোবাসি, আমি মনে ধারণ করতে বিশ্বাসী। এখানে আমি ফালতু কোনো কথা বলছি না যে সেটাকে নিয়ে আবার উপহাস করবে। আর হ্যাঁ এটা তোমার চিন্তার বিষয় নয়, আর আমি তোমাকে শেখাতেও আসিনি, কারন তোমার অনুভূতি! তোমার মতো আমার সাথে মিলতে হবে কথা নেই, ভালোবাসা কখনো শেখানো যায় না বা এর কোনো থিওরী নেই, আর আমাকে বোঝা… হা হা হা…. এটা তোমার সম্ভব নয়। যে বোঝে না, তাকে আর কি বোঝাবো! এখানে সবটাই মনের ব্যাপার। তুমি কি বলতে পারো, আমি কি পছন্দ করি আর কি পছন্দ করি না? জানি পারবে না, কিন্তু আমি জানি তোমার ভালো লাগা! তুমি আমায় কতটুকু বুঝতে পারো? একটুও না, কিন্তু আমি পারি, তোমার মনের না বলা অংশ আমার ঠিকই বোঝা হয়ে যায়। তুমি যা বলো আর না বলো তার পার্থক্যগুলো আমি ধারণ করতে পারি, কিন্তু তুমি? একদিনে তোমাকে চিনতে আমার এটাই ধারণা এবং আমি বিশ্বাস করি এবং আমি সব ঠিক বলছি। একটু কিছু হলেই বলো আমি তোমার জীবনটা নষ্ট করেছি। একটু হিসেব করে দেখো, আমায় বলতে হবে না আমি কি করেছি! একটু কিছু হলেই যা না মুখে বলে বসো, কিন্তু একটু ভেবে দেখো তার কতটুকু আমি! তুমি জানো না, তুমি বোঝো না আমি কি চাই! তুমি জানো না এবং জানবেও না কারন তোমার ভালোবাসা আমার মতো নয়, এই ভালোবাসা বোঝার মতো নয়, আমি বুঝি না। তুমি বলো এটা তোমার প্রথম ভালোবাসা তাই বোঝো না। একদম ঠিক, প্রথম বলেই অনেক বেশী আবেগী হয়ে ওঠো, অনেক তারাতারি হাঁপিয়ে ওঠো সবকিছুতেই, কিন্তু আমি তা হই না! আর নয়, অনেক বলে ফেললাম, আসলে ‘কষ্ট একটা ড্রাগ’ আমি জানি এই কথাগুলোর জন্যেও আমাকে কষ্ট গুনতে হবে, হয়তো কথায় কথায় আঘাত হানবে, হয়তো তুমি আমার মনের মতো না, ভুল ভেবে ছেড়ে যাওয়ার হুমকি দেবে, আমি জানি। সত্যি বলছি, আমার কোনো অসুবিধা নেই, আমি একা একাই আছি। তুমি আমার একটা ডায়েরী মাত্র, যেখানে না বলা অনেক কথা লেখা যায়, কিন্তু ডায়েরীর তাতে কিছু আসে যায় না! কেবলই যে লেখে তার মনটা একটু হালকা হয় এবং স্মৃতি হয়ে রয়। লিখতে গিয়ে যদি ২/১ ফোঁটা চোখের জল গড়িয়ে পড়ে পাতাটা ভিজে যায়, তবে কখনো কখনো কষ্টটাকেও নাড়া দেয়, জানি কথাগুলো তোমার ভালো লাগছে না, তোমাকে অন্যভাবে ভাবাবে। তোমার ভাবনাতে যা আসে তা আমায় নির্দিধায় বলতে পারো। চলে যেতে চাইলে আটকাবো না কথা দিচ্ছি। অনুগ্রহ করে আবার এটা ভেবো না যে আমি অতীতে ফিরে যেতেই তোমাকে এতো কথা শোনাচ্ছি। তোমার বোঝার আরো একটা বড় বিভাজন হলো আমার অতীত। প্লিজ ভুল ভেবো না। তুমি কি বুঝতে পারো, স্মৃতি কিংবা অনুভূতি কখনোই মুছে যায় না, বা অন্য কেউ মুছে দিতে চাইলেও তা মুছে দিতে পারে না! তুমি বুঝবে না, জীবনে কখনো কিছু হারায়নি তো তোমার, তাই তুমি বুঝবে না। আমার মাঝ থেকে আমার অতীতকে মুছে ফেলতে চাওয়া, তাদের সাথে নিজেকে তুলনা করাটা নিজেকে ছোটো করা বই কিছুই নয়। আমি যদি শুনি যে, আমার অতীত কখনো মারা গেছে, অথবা যদি তাদের কোনো ভালো খবর আমার কানে আসে, তাহলে আমার ঠোঁটের কোণে হাসি ভেসে উঠবেই। ভুলে যাওয়ার যদি হতো, তবে তা অনেক আগেই হয়ে যেতো। আর আমি এটাও ভুলে যাইনি যে আমার জীবনটাকে নিয়ে আমার অতীতের পুতুল পুতুল খেলা। ভালোবাসা আর ঘৃনা পাশাপাশি বাস করে, এর মানে কি আমি তোমাকে আমার অতীতের সাথে তুলনা করবো? তাই যদি হতো, তবে মানুষ আর কম্পিউটারের মধ্যে কোনো পার্থক্য থাকতো না। মন চাইলেই শিফট ডিলিট করে দেয়া যেতো, সব মুছে যেতো। তুমি আজো আমার কাছে তোমার জায়গা খুঁজে পাওনি, আর কোনোদিন পাবেও না তাও আমি জানি, তবুও বলি সব মিলিয়ে আমি তোমায় ভালোবাসি, ভালোবাসি। আমার মতো করে না পাই, তোমার মতো করে তো পাই! সে পাওয়াই আশার আলো আমার কাছে। তুমি ভুল বোঝো আর ঠিক বোঝো, আমি আমার মাঝে থেকেই না হয় তোমার হয়ে থাকবো, কোনোদিন বোঝা মনে হলে বলো, হালকা করে দিব। তুমি মনে হয় আমার কথা শুনতে শুনতে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছো। আবারো বলছি ভুল বুঝো না দয়া করে। আমার কোনো কথা না-বোধক ভেবোনা, পারলে হা-বোধক ভেবো প্লিজ। তাতে হয়তো তোমার আমার মাঝে দুরত্ব কিছুটা হলেও কম হবে। হয়তো অনেক জটিল একটা মানুষ আমি, তবে সহজভাবে ভাবতে চাই, সহজভাবে বাঁচতেও চাই, তা হয়তো আর পারলাম না। একলা জীবনের ভার যখন বইতে পারবো না, তখন জীবন থেকে বিদায় নিব। অনেক ভারি ভারি কথা বলে ফেললাম তোমার সাথে, আর কখনোই এমনভাবে বলিনি, মাফ করে দিও। মাঝে মাঝে নিজেকে চিনে নিতে বেশ কষ্ট হয়, মনে হয় সত্যিই আমি অনেক জটিল এবং তা আমার মতো।
:: এই হলো আমার ভালোবাসার মুখের কথা, যা আমাকে আবার নতুন করে ভালোবাসা শেখাতে সাহায্য করছে। নতুন করে ভালোবাসতে শেখাচ্ছে। জানি না আমি আমাতে থাকতে পারবো কি না। জীবনের শেষ প্রান্ত পর্যন্ত চেষ্টা করে যাবো, এতে কোনো দ্বিধা নেই। আমি ভালোবাসি, সত্যিই ভালোবাসি এবং সত্যিই ভালোবেসে যাবো…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

99 − = 92