মায়েদের মূল্যায়ন ও আমাদের করণীয়।

মা শব্দটির মধুরতা অনেক।মায়ের সাথে অন্য কারও তুলনা চলে না।এজন্য মা অতুলনীয়।

মায়েরা সন্তানদের দেখা শোনা থেকে শুরু করে পরিবারের যাবতীয় কাজ করে থাকে।গ্রামের অধিকাংশ সন্তানদের প্রাথমিক শিক্ষার হাতেখড়ি মায়ের কাছে।

অনেকে আমরা মায়েদের শুধু গৃহিণী বলে ছোট করি।এ মানসিকতা আমাদের পুরুষতান্ত্রিক সমাজের কারণে।

প্রকৃত অর্থে মা হলেন হোম মেকার।মায়েদের একনিষ্ঠ পরিশ্রম ছাড়া পরিবারের সফলতা আসে না।

গ্রামের অধিকাংশ পরিবারগুলোতে দেখা যায়,মায়েরা দিনে একবার খেয়ে সন্তানদের দিনে তিনবার খাওয়ায়।যেহেতু গ্রামের অধিকাংশ পরিবারই দরিদ্র।বাড়িতে মেহমান আসলে ভাল খাবারের আয়োজন হয়।ঠিক সেদিন নিজে সবার পরে খায়।অবশিষ্ঠ থাকলে।

মায়েদের এধরনের মানসিকতা পুরুষতান্ত্রিক সমাজের অবহেলার ফসল।

মায়েরা নিরবে নিভৃতে অনেক কষ্ট করে যা আমাদের অগোচরে।

পরিবারের উন্নতির জন্য স্বামীর ন্যায় মায়েরাও পরিশ্রম করে।কিন্তু আমাদের দেশ,সমাজ মায়েদের সঠিকভাবে মূল্যায়ন করে না।

অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়,মায়েরা স্বামীর অসহনীয় অত্যাচার,নির্যাতন সহ্য করে সন্তানদের কথা ভেবে।

আসুন আমরা পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতা থেকে বেরিয়ে এসে নারী পুরুষের ভেদাভেদ ভুলে মায়েদের মূল্যায়ণ করি।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1