সফলতার পথে বাংলাদেশ

আজ ৫ই জানুয়ারী, ২০১৪ সালের এই দিনে একটি সুষ্ঠ, সুন্দর ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে এদেশের গনতন্ত্রকে সুসংহত আর সুরক্ষা করা হয়েছিল। সকল ষড়যন্ত্রকে ব্যর্থ করে দিয়ে বিজয় অর্জিত হয় গণতন্ত্রের। অর্জিত গণতন্ত্রের সুফল নিন্মে তুলে ধরা হলঃ

 বাংলাদেশ সারাবিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে।
 এই নির্বাচন হয়েছিলো বলেই বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে উদার গণতান্ত্রিক দেশ হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে।
 বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সারাবিশ্বে ৫০ জন বিশ্বনেতার মধ্যে ১০তম স্হান অধিকার করে বিশ্ব নেত্রীতে পরিনত হয়েছে।
 বাংলাদেশ আজ অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী, বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে স্বপ্নের পদ্ধাসেতু নির্মিত হচ্ছে নিজস্ব অর্থায়নে।
 জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্হান নিয়ে জঙ্গি নির্মুলে আপোসহীন ভুমিকার কারনে সারাবিশ্বে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শক্তিশালী নেত্রী হিসাবে পরিচিতি পেয়েছেন।
 ৫ই জানুয়ারীর নির্বাচনে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হয়েছিলো বলেই, সমুদ্র বিজয় সহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন পুরুস্কারে ভূষিত হয়েছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী।
 স্বাধীনতা বিরোধী যোদ্ধাপরাধীদের বিচারের আওতায় এনে ফাসিঁ দিয়ে বাঙ্গালী জাতীকে বিশ্ব দরবারে দায়মুক্ত করে অনেক প্রশংসিত হয়েছেন।
 আর, এতসবের সবকিছুই সম্ভব হয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আপোসহীন একক বলিস্ঠ নেতৃত্বের কারনে।
 এ যাবৎ কালের সবচেয়ে স্বনামধন্য বিচক্ষন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসাবে সারাবিশ্বে শ্রেস্ঠত্ব অর্জন করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

তাই, ৫ই জানুয়ারীর নির্বাচনের কারনে বাংলাদেশের জনগন এখন বিশ্বদরবারে মাথা উচু করে দাড়াতে পারে। এই গৌরব সমগ্র বাঙ্গালী জাতির।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “সফলতার পথে বাংলাদেশ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

59 − = 51