এটা কোন গল্প নয়

অনেকটা পথ পাড়ি দিয়ে হাটতে হাটতে যখন আমি ঠিক আলোর কাছাকাছি এমন সময় হঠাৎ একটা হোঁচট খেয়ে পড়ে গেলাম । মুহূর্তেই সব হিসেব পাল্টে গেলো । জীবনের প্রয়োজনেই আবার বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়লাম । পরিবার থেকে এখন আমি অনেক দূরে, মানে বাধ্য হয়েই থাকতে হয় । বাড়ি থেকে কর্মস্থলে যাচ্ছি । প্লেন থেকে নেমেছি একটু আগেই । পার্কিং সাঁটল এর জন্য অপেক্ষা করি আর ছোট্ট একটা বেঞ্চিতে বসে তুষারে ঢাকা সাদা মাঠ দেখি । এক আকাশ নীল আমার মাথার ওপর ব্যাথিত ভাবে চেয়ে আছে । আমি শুধু ভাবি আমার নির্বাসন আর কতদিনের ? আমার পাশেই এক তরুণী মা বসলো । কোলে তার ছোট বাচ্চা । বাদামী চুলের বাচ্চাটির হাসি মুগ্ধ হয়ে দেখতে দেখতে কোথায় যেন হারিয়ে গেলাম আমি । হাজার মাইল দূরে রেখে আসা সেই প্রিয় মুখটা ভেসে ওঠে আমার মনের ক্যানভাসে । তার হাসিটাও অনেকটা এইরকমই । এবার বাড়ি থেকে আসার ঠিক আগে আগে শক্ত করে জড়িয়ে ধরে তার গায়ের গন্ধ নিয়েছিলাম । কেন যেন আবার সেই গন্ধের আভাস পাই এই বেরসিক ঠাণ্ডা বাতাসে । আমেরিকান কালচারে অচেনা বাচ্চাকে আদর করা বারণ , তাই আমি শুধু তৃষিত পিতৃহৃদয় নিয়ে চেয়ে থাকি । পাশে বসা তরুণীটি আমার চোখ দেখে হয়তো কিছু আন্দাজ করে । নিজে থেকেই বলে তার বাচ্চাটির নাম, বয়স কত । আমি মার্কিন কেতামাফিক প্রসংশা করি ।


এক সময় আমার কাছে জীবনের সার্থকতা ছিল শুধুই লক্ষ্য পুরন, একটা লক্ষ্য পুরন হলে আবার নুতন লক্ষ্য স্থির করতাম । শুধুমাত্র কারো মুখের হাসি দেখবার জন্যেও যে হাজার বছর বেঁচে থাকা যায়, কখনো বুঝতে পারিনি বা বুঝার চেষ্টাও করিনি । আমি ভুলে গিয়েছিলাম ভালবাসতে । বাড়ি ছাড়ার আগে আমার এক বছরের কন্যাটি যখন আমাকে জড়িয়ে ধরলো, আমি তার শরীরের ঘ্রাণ নিতে নিতে শুধু ভাবলাম আজ মনে হয় এতদিনের অভিশপ্ত জীবনের সমাপ্তি হলো । এরমধ্যেই আমার সাঁটল এসে গেলো, মেয়েটির কাছ থেকে বিদায় নিয়ে উঠে পড়লাম ।

আমার কর্মস্থলে ফিরে যাবার নির্জন পথ আমাকে বার বার মনে করিয়ে দিলো এখনো বাড়ি ফেরার সময় হয় নাই, এখনো অনেক নিঃসঙ্গ বিনিদ্র রাত বাকি…!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “এটা কোন গল্প নয়

  1. জীবন থেকে নেয়া অনুভবের
    জীবন থেকে নেয়া অনুভবের অসাধারন প্রকাশ যা ছুয়ে দেবে কন্যার কাছে কিংবা দূরে থাকা সকল বাবা দের। লেখকের আরো লেখা পড়তে চাই

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

67 + = 68