অব্যক্ত পংক্তি মালা- ২

এক।।

তুমি পাশে
——————

তুমি পাশে বসে মাথা বিলি করো বলেই হয়তো-
চিন্তারা ডানা মেলে কাব্যিক ধরায় উড়ে যায়।
তুমি পাশে বসে আঙুলগুলো ছুঁয়ে দাও বলেই হয়তো-
রঙিন স্বপ্নাতুর মূহুর্তগুলোতে কবিতার পংক্তিরা নৃত্য করে;
হয়তো তুমি এক চুমুক চুম্বন দিয়ে পিয়াস মিটাও বলেই
এ ধরার কোন জলে আগ্রহ নেই।

– রুদ্র মাহমুদ।

দুই।।

তোমার মন খারাপের দিনে
——————————–

তোমার মন খারাপের দিনে না হয় আমি একখানা কবিতা লিখে দিলাম;
তুমি কবিতাখানা পড়ো না,
বরং খানিক তাকিয়ে থাকো পংক্তির পাণে।
অশ্রুতে ভিজেছে আঁখি?

মনটাকে বেড়ি থেকে ছাড়িয়ে আনো
দু হাত ছড়াও দিগন্তে,
প্রাণ ভরে বাতাস গিঁলো।
কোথায় কষ্টরা?
হারিয়ে গেছে!
কষ্ট নেই
কষ্ট বলতে কিছু থাকে না।

– রুদ্র মাহমুদ।

তিন।।

জীবন কেন
—————

জীবন কেন ইচ্ছে মত রঙিন করা যায় না!
রঙ-তুলি দিয়ে কেন আঁকা যায় না সুখ!
কেন ইচ্ছে হলেই দুমড়ে-মুচড়ে ছুঁড়ে ফেলে দেয়া যায় না-
দূঃখ নামক নষ্ট কাগজখানা!
আমি সুখ আঁকতে চাই,
প্রতিটা মানুষের হৃদয় পটে আমি আঁকতে চাই
সুখের একখানা ছবি।

– রুদ্র মাহমুদ।

চার।।
তুলির আঁচড়ে
——————
আজ দেয়ালে রং করেছি
তুলির আঁচড়ে রাঙিয়েছি দেয়ালের হৃদয় পট;
রাঙাচ্ছি আর রাঙাচ্ছি,
মাঝে মাঝে ভাবছি খানিক রাঙাই আমার তাচ্ছিলে থাকা মন।

– রুদ্র মাহমুদ।

পাঁচ।।
নামহীন সম্পর্ক?
————————-
এ সম্পর্কের কোন নাম দিবো না
এগিয়ে যাক না এ সম্পর্ক নামহীন।
তুমি আমি দুজনেই হই না এ সম্পর্কের পরিচয়;
কি দরকার তবে একটা নাম দেয়ার(!)?
বৈকালের রোদ্দুরে পায়ে পায়ে পথ চলা এ সম্পর্কের-
আর কি নাম দিবো?
নামটাই কি সম্পর্ক নাকি সম্পর্কটাই নাম?

– রুদ্র মাহমুদ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

1 + 2 =