একটি গানঃ একা; পাড়ি দিচ্ছে আলোকবর্ষ ।

চাঁদে এ পর্যন্ত হওয়া সাকসেসফুল, আনসাকসেসফুল মিশন ও ২০১৮ পর্যন্ত যেসব মিশন হবে তার একটা ডিটেইলস লিস্ট পাবেন এখানে

এই বছরেই ৫ টি মিশন (একটি নাসা, একটি চীন ও ৩টি প্রাইভেট) সম্পন্ন হবার কথা । তো, গত ৬ টি সাকসেসফুল ল্যান্ডিং মিশনে চাঁদে আমরা এ পর্যন্ত মোট (শুষ্ক ভর) ১৮৭৪০০ কিলোগ্রামের মত যন্ত্রপাতি রেখে এসেছি এবং ৩৮০ কিলোগ্রাম মুন রক নিয়ে এসেছি। বিভিন্ন কাজে রেখে আসা এইসব মেশিনপত্রের কেবল গুরুত্বপূর্ণ ও আকারে বড়গুলোর একটা বিশাল লিস্ট পাবেন এখানে

শুধু এগুলোই না, মানুষের তৈরি মেশিন এর থেকেও অনেক অনেক দূর পারি দিচ্ছে সফলভাবে। এর মধ্যে চারটির কথা আলাদা করে না বললেই নয়। এরা এখন আর আমাদের সোলার সিস্টেমেই নেই, ছাড়িয়ে গেছে বহু আগে।
পাইওনিয়ার-১০ (০৩ মার্চ ১৯৭২),
পাইওনিয়ার-১১ (০৬ এপ্রিল ১৯৭৩),
ভয়েজার-২ (২০ আগস্ট ১৯৭৭) এবং
ভয়েজার-১ (০৫ সেপ্টেম্বর ১৯৭৭)।

এদের মধ্যে সবার শেষেরটি অর্থাৎ ভয়েজার-১ আমাদের থেকে সবচে বেশি দূরত্বে আছে (২০ বিলিয়ন কিলোমিটারেরও উপরে) এবং এখনো চলমান। ভয়েজার দুটির লাইভ ডিসট্যান্স কাউন্ট দেখুন এখানে। তো, ভয়েজার-১ এর ভেতর পৃথিবী ও মানব সভ্যতার পরিচিতিমূলক অনেক কিছু রাখা আছে। কোনদিন কোন এলিয়েন তথা কোন জীবন বা সভ্যতার সাথে যখন দেখা হবে ভয়েজারের, তখন আমাদের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবে ভয়েজার ও তার সাথে দেয়া আমাদের স্পর্শ এবং পরিচিতি। এর মধ্যে একটি হল গোল্ড প্লেটের একটা রেকর্ড। সেই রেকর্ডে আমাদের অসংখ্য কথাবার্তা ও বিভিন্ন তথ্যাদির সাথে একটা গানও দেয়া হয়েছে।

কার্ল সেগান, ফ্রাঙ্ক ড্রেক ও তত্ত্বাবধানে থাকা অন্যান্য বিজ্ঞানীরা এমন একটি গান বেছে নিতে চেষ্টা করেছেন যেন গানটি মানব সভ্যতার একাকিত্বের অনুভূতিটাকে তুলে ধরে। যেন আমরা কাউকে জানাচ্ছি, আমরা একা। গানটির শিল্পীর নাম ব্লাইন্ড উইলি জনসন এবং তিনি ছিলেন অন্ধ। অনেক ছোটবেলায় তার সৎমা তার চোখে গরম খাবার ছুড়ে মারার কারনে সারাজীবনের জন্য তিনি অন্ধ এবং প্রকৃত পক্ষেই একা হয়ে যান। একবার তার ঘর আগুনে পুড়ে যায় এবং তার কোথাও যাওয়ার জায়গা ছিল না। খবরের কাগজ দিয়ে শরীর ঢেকে রাস্তায়, পার্কে তিনি হতদরিদ্র জীবন কাটিয়েছেন। মৃত্যুর পূর্বে দীর্ঘদিন তিনি ম্যালেরিয়া জ্বরে কষ্ট পেয়ে এসছেন। সেই ছোটবেলা থেকেই অন্ধকার এবং একা পৃথিবীতে বেঁচে ছিলেন তিনি। একাকিত্বকে উপস্থাপন করা তো তার পক্ষেই বেশি সম্ভব। গানটির কোন লিরিক নেই। শুনার আগে মাথায় রাখুন, ২০ বিলিয়ন দূরে ভয়েজার উড়ে চলছে এই গানটি বুকে নিয়ে প্রকৃত অজানা অচেনা কাউকে শোনাবে বলে। লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান “ডার্ক ওয়াজ দ্যা নাইট, কোল্ড ওয়াজ দ্যা গ্রাউন্ড” বাই, ব্লাইন্ড উইলি জনসনঃ (গানটি ইউটিউবে দেখতে পারেন এখানে ক্লিক করে)

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 33 = 36