অই ছেমরি তোর মাথার কাপড় কই? এবং যেখানেই হেফাজত সেখানেই ঠ্যাঙ্গানি

৫ই মে হেফজতে ইসলামির মিশন ছিল মতিঝিলের শাপলাচত্বর দখল করে থাকার। ততক্ষন, যতক্ষন না পর্যন্ত সরকার তাদের ১৩ দফা দাবী মেনে না নেয়। হেফজতিরা একরাতে পুরা মতিঝিলের চেহারাই বদলে দিয়েছে। তাদের সহিংসতায় মতিঝিল এলাকা পরিনত হয়েছিল ভুতুড়ে নগরীতে। এর চেয়েও ভয়ংকর কাজ তারা করেছে তা হলো,তারা নারীর সামাজিক নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। ওইদিন অফিসে আসার পথে তেজগাও ট্রাক টার্মিনাল পার হতে কিছু সাধারন লোকই আমার দিকে সেদিন ছুড়ে দিলো, অই ছেমড়ি তোর মাথার কাপড় কই?

সংবাদকর্মী হিসেবে প্রতিদিনই আমার কোথাও না এসাইনমেন্ট থাকে। প্রতিদিন সকাল ৯টার মধ্য আমাকে বের হয়ে যেতে হয় কোথাও না কোথাও। কখনো প্রেসক্লাবে, কখনো পল্টন, কখনো বা ঢাকার অন্য কোনো এলাকায়। ৫ তারিখে আমার কোনো এসাইনমেন্ট ছিল না। হেফচুতিয়াদের হাতে নাদিয়া শারমীনের নির্যাতিত হওয়ার পর নারী হিসেবে আমার অফিস ভরসা পায়নি শহরজুড়ে ছড়িয়ে থাকা হেফশকুনের মাঝে আমাকে ছাড়তে। আমার পরিচিত প্রায় সকল নারী সংবাদকর্মীরই একই অবস্থা ছিল।
তবে এর চেয়েও আতঙ্কের বিষয় ছিল সেদিন শহরজুড়ে নারীর উপস্থিতি। মিরপুর থেকে শাহবাগ, শাহবাগ থেকে তেজগাও যেতে যেতে রাস্তায় কতজন মেয়েকে দেখেছি তা মনে হয় হাতে গুনে বলে দিতে পারবো। আতঙ্কে,ভয়ে সাধারন মেয়েরা বাইরেই বের হতে পারেনি বা বের হয়নি। সেদিন সত্যি আমার মনে হয়েছিল দেশটা আফগানিস্তান হয়ে গেছে।

বেশি আতঙ্কিত হলাম বিজয়স্মরনী পার হতে একটা ম্যাক্সিতে ৫-৬ জন বোরকা পরা মেয়ে দেখে। বোরকা পরা বললে ভুল হবে, বস্তা মোড়া। এইগরমেও যাদের হাতমোজা পা মোজা পরা ছিল। মনে হলো একসময়ের কাবুলের মেয়েরাও নিজেদের দিকে তাকিয়ে একই আতঙ্কে ভুগতো।

এ ছিল আমার সেদিনের ভাবনা আর অভিজ্ঞতার কথা। এদেশে মৌলবাদি আর জঙ্গীদের যে কোনো ঠাই নেয় তা আবারো প্রমান পেলো হেফচুতিয়ারদের শাপলাচত্বর থেকে ঝেটিয়ে বিদায় করে দেয়ার মাধ্যমে। মনে স্বস্তি পেলাম শকুনদের নখ ভেঙ্গে দেয়ার স্বদিচ্ছা ও সামর্থ দুটোই আছে আওয়ামী লীগ সরকারের।

তবে নারী হিসেবে দুশ্চিন্তা আমার রয়েই গেলো। নারী প্রশ্নে বিকৃত মানষিকতার হেফাজতিরা ধর্মের নাম বেচে গ্রামাঞ্চলের নারীদের জীবনে কোন তান্ডব চালানোর অপেক্ষায় আছে। আমার গ্রামে যে মেয়েটি দুধ বেচে জীবন চালায় তার জীবনের কী হাল হবে? গ্রামের ক্রেজি টাইপের বেশ বয়ষ্ক নারীটির কি হবে যে কিনা পাট বাছতে বাছতে বিড়ি ফুকতো। স্বামী বিলে কাজ করাতে যে বউটি শাড়ি কাছা দিয়ে সাইকেল ঠেলে ঢান ভাঙ্গাতে যায় অন্য গ্রামে তার উপর কোন ফতোয়া নিয়ে আসে হেফাজতিরা।

আমার নানী গ্রামে থাকে। নানী এখনো বেশ শক্ত সমর্থ,ধর্মপ্রান, বয়স ৫০ এর উপরে। ৫ তারিখ সন্ধ্যায় নানীকে ফোন করেছিলাম গ্রামে কি অবস্থা জানার জন্য। প্রশ্ন শুনেই নানী বললো, হেফাজতিরা যা শুরু করিছে, বালো মতো ঠ্যাঙ্গানি(কচা গাছের লাঠি দিয়ে বেদম প্রহার) না খালি পরে থামবেনানে। আমি একটা মুচকি হাসি দিয়ে মনে মনে বললাম, ইয়েস! দ্যাটস দ্য স্পিরিট।

সাবধানে থাকতে বলে নানী কথা শেষ করলো। ওইদিন রাতেই দেখলাম ভালো মতো ঠ্যাঙ্গানি হয়েছে হেফাজতের। নানীর কথা মনে পড়লো, এটাই প্রয়োজন যেখানেই হেফাজত, সেখানেই ঠ্যাঙ্গানি।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২০ thoughts on “অই ছেমরি তোর মাথার কাপড় কই? এবং যেখানেই হেফাজত সেখানেই ঠ্যাঙ্গানি

  1. মেইন চুতিয়া শফির তো কিছুই
    মেইন চুতিয়া শফির তো কিছুই হইলনা বাবুনগরীর গায়পশমটাও ত ছিড়তে পারলনা মাজখান থেকে কিছু এতিম বাচ্চা মারা পরল।
    আফসুস!

    1. কে হইলো আপনেরে কিছু করতে
      কে হইলো আপনেরে কিছু করতে পারেনি? শফি বুইড়ারে অবরুদ্ধ করে রাখছে। বাবু নগরী গ্রেফতার, রিমান্ড হইছে। এইবার বুঝবো প্যাদানি কারে কয়।
      আর সোজা কথা যারা মরছে তারা যতটা না এতিম বাচ্চা তার চেয়ে বহুগুন হেফাজতি।

  2. বাবু নগরীর বিরু্দ্ধে
    বাবু নগরীর বিরু্দ্ধে ইতিমধ্যেই তারই দলের নেতা অর্থ আত্মসাতের মামলা করেছে রাজশাহীতে। এবার রিমান্ডে বাবু মিয়া বুঝবো ঠেলা কারে কয়। মাছায় গরিম হিম দিলেই গর গর করে বেরিয়ে আসবে সকল ষড়যন্ত্র! জামাত-হেফাজতিদের বাংলাকে আফগান-ফাকস্তান বানানোর স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে। বাংগালী এখনও এতো ধর্মান্ধ হয়নি…..

  3. মনে ভীষণ ভয় জাগে, প্রিয়
    মনে ভীষণ ভয় জাগে, প্রিয় স্বদেশটা; না জানি কখন আফগানিস্তানে পরিণত হয়, কখন রামুর সবক’টা বৌদ্ধ মুর্তি; বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়, কখন সবক’টা প্যাগোডায় আগুন লাগে, আগুন লাগে মন্দিরে, গীর্জায়।
    দেশটা; এই জন্যে স্বাধীন হয় নাই, লক্ষ প্রাণ; আফগানিস্তান বাস্তবায়নে বিসর্জন দেয়া হয় নাই।

  4. গতকাল টিভিতে দেখলাম গফরগাঁয়ে
    গতকাল টিভিতে দেখলাম গফরগাঁয়ে সম্ভবতঃ হেফাজতিদের ধরে পাবলিক কানে ধরে উঠ-বস করে ছেড়ে দিয়েছে ! শুরু হয়েছে হেফাজতিদের ঠ্যাঙ্গানি….

  5. দেশ যেদিন হেফাজত জামাত শিবির
    দেশ যেদিন হেফাজত জামাত শিবির মুক্ত হবে সেদিনই আমরা উন্মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নিতে পারবো। অসুস্থ মানুষের নিঃশ্বাসে বাতাস আজ দূষিত।

  6. হেফচুতিয়াদের দাবী বাস্তবায়ন
    হেফচুতিয়াদের দাবী বাস্তবায়ন হইলে নারী-পুরুষ অবাধে চলাফেরা বন্ধ হইতো! মাগার পুরুষ-পুরুষে অবাধ হাত ধরিয়া চলাচল করিতো- যাহা প্রায়শঃ ই হেফচুতিয়ারা গলাগলি করিয়া চলিয়া থাকে! :চশমুদ্দিন: :চশমুদ্দিন:

  7. বাঙালির নিজের পুটুতে আঘাত
    বাঙালির নিজের পুটুতে আঘাত লাগলে ব্যাঘ্র হইয়া উঠতে সময় লাগে না। এটাই হচ্ছে আশার কথা। পুটুতে আঘাত লাগা শুরু হইছে। 😀

  8. সেদিন বেশি অবাক হইলাম জিহাদ
    সেদিন বেশি অবাক হইলাম জিহাদ কইরা শহীদ হওয়ার ঘোষণা দিয়া জিহাদ-প্রেমী ভন্ড হেফু’রা যৌথ-বাহিনীর ঠ্যাঙ্গানির ডরে ক্যাম্নে যে লেজ গুটাইয়া পলাইলো সেইটা দেইখা !! :হাসি:

    মাইনষে কি এম্নে কয় নি !! হাচাই তো … মাইর’রে ভুতে-প্রেতে পর্যন্ত ডরায় :পার্টি:

  9. বাবুনগরী রে ডিম দিয়া ভাত
    বাবুনগরী রে ডিম দিয়া ভাত দিলেও আত্কায়া উঠব ৯ দিনের রিমান্ড শেষে :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান: :মানেকি:

  10. ছেমরিরা মাথাত কাপড় না দিলে,
    ছেমরিরা মাথাত কাপড় না দিলে, বেগানা হইয়া চললে খাপোদের এন্টেনা খাড়া হইয়া যায়। এখন কথা হইলো তারা ফতোয়া দিয়া বুরখা পিন্ধা থাকা নিনজা কম্বেটগো যা খুশি তাই করাইতে পারবো কিন্তু ছেমরিগো তো পারবো না :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান:

  11. এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির
    এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলা থেকে তাদের সমূলে উৎখাত করতে হবে!
    তার জন্যে অসাড় মাদ্রাসা শিক্ষাব্যবস্থা ও জামাতি সহিংসতা আর সরকারের করনীয় এই বিষয়ে অতি দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে…
    তবেই আমরা আমাদের আজকের এই সংকট থেকে উত্তরণের পথ খুজে পাব।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

28 + = 34