কার্য-কারনঃ একটি কুইজ, একটি ধাঁধা

কার্য-কারন: একটি কুইজ, একটি ধাঁধা।
আশাকরি পাঠকতা ন্তব্য করবেন।

একদা এক পিঁপড়া এক ছাগলের কানে প্রবেশ করে কামড় দিল। প্রতিক্রিয়ায় ছাগলটি লাফ দিয়ে একটি শিশু বাচ্চার উপর পড়লো। শিশুটি কান্না শুরু করল।বিষয়টি শিশুটির অভিভাবক অবলোকন করলো। অতপর শিশুর পিতা প্রতিক্রিয়ায় ছাগলটিকে একটি লাঠি দিয়ে আঘাত করায় উহার ১টি পা ভেঙ্গে গেল।
ছাগলের মালীক ততক্ষণাৎ শিশুর পিতার সঙ্গে জগড়ায় লিপ্ত হলো। একপর্যায়ে ছাগলের মালীক একটি লাঠি দিয়ে শিশুটির পিতার মাথায় আঘাত করায় ব্যক্তিটি মুমূর্ষু অবস্থায় পতিত হলো। মৃত প্রায় ব্যক্তিটিকে গাড়ি করে হাসপাতালের দিকে যাত্রা শুরু করা হলো। পথিমধ্যেই গাড়ি দূর্ঘটনায় ব্যক্তিটি মৃত্যুবরন করল।এখন প্রশ্ন হলো এ মৃত্যুর জন্য কে দায়ী?

১) পিঁপড়াটি
২) ছাগলটি
৩)শিশুর পিতা
৪) ছাগলের মালীক
৫)গাড়ির চালক
৬) গাড়ি দূর্ঘটনা।

জগত ঘটনা দিয়ে তৈরী _ঘটনা সমূহ পর্যায় ক্রমিক ভাবে সংঘটিত হয়ে চলছে_অতীত থেকে বর্তমানের শূন্য বিন্দু ভেদ করে ভবিষ্যতের দিকে ধাপিত হচ্ছে। ঘটনা সমূহের অনুক্রমিতা/পর্যায়ক্রমিতা পর্যবেক্ষণ করে আমরা ঘটনাসমূহকে কার্য ও কারনে ভাগ করে আমরা জগতকে ব্যাখ্যা করছি। ঘটনাসমূহের অনন্ত ধারার পাশাপাশি অবস্থিত ১ম ঘটনাটিকে আমরা কারন এবং ২য় ঘটনাটিকে আমরা কার্য বলছি। কার্য ও কারন উভয়ই ঘটনা। কালই উহাদের কার্য ও কারন রুপে বিভক্ত করছে।
কারন ও কার্য সংঘটিত হওয়ার মধ্যে কোন বাধ্যবাদকতা আছি কিনা সেটি ভেবে দেখার বিষয়। আপেক্ষিকতার তত্ত্ব বলে কোন আবশ্যিকতা/বাধ্যবাদকতা নেই। কারন ও কার্যের মধ্যে কোন বাধ্যবাদকতা নেই। ঘটনা সমূহ কোন দেশ-কালিক বর্ননা মাত্র। তবে কার্য-কারন ব্যাতীত আমরা জগতকে ব্যাখ্যা করতে পারিনা। অতএব, কোন ঘটনার জন্য আমি দায়ী হবো কেন?

কোনটিই ভুল নয়,
কোনটিই সঠিক নয়।
কোনটিই ভেজাল নয়
কোনটিই খাঁটি নয়।

সবকিছু ঘটে যাওয়া ঘটনা।
করি মোরা শূন্যের সাধনা।

_Abu Momin

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “কার্য-কারনঃ একটি কুইজ, একটি ধাঁধা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

56 − = 49