কোরআনের উপর প্রশ্রাব ও আসাদ নুরের উগ্রতা!

বেশ কিছু দিন ধরে ফেসবুক সহ বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমে আসাদ নুর নামের এক নাস্তিক কে নিয়ে চলছে সমালোচনা। বাংলাদেশের কয়েকটি অনলাইন ও জাতীয় পত্রিকায় ঠাই পেয়েছে আসাদ নুরের নিউজ! এবং আসাদ নুরকে ধরিয়ে দিতে পারলে দুই লাখ টাকা দিবে এমন একটি ভিডিও দেখে আশ্চর্য হয়েছি, আবার রাষ্ট্র প্রভুদের এক আন্ডা বাচ্চাও নাকি তার ফাঁসি চেয়েছে। সার্কাস মার্কা দেশ! নতুন করে কিছু বলার নেই….

যে দিকেই যাই আসাদ নুরকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা। কেউ তার সাহসীকতা ও উগ্রতাকে প্রশ্রয় দিেচ্ছ এবং আরেক পক্ষ গালি দিয়ে আসাদ নুরের চৌদ্দগোষ্ঠি উদ্ধার করছে।

এইসব পক্ষ্য পাতিদের ভেতরে কোনদিনও মুক্তচিন্তা বা মুক্ত চিন্তা চর্চা করা সম্ভব না। ধার্মিক অন্ধ কানাদের সাথে ঐসব উগ্র নাস্তিকদের পীর মুরিদের সাথে কোন পার্থক্য নেই। আমি বলছি না সমালোচনা ও ধর্মের বিরুেদ্ধ লিখতে পারবে না বা মুহাম্মদকে নিয়ে সমালোচনা করতে পারবে না… হ্যা করা যাবে সেটা হতে হবে যৌক্তিক।

আসাদ নুর তার একটি ভিডিও তে যা বলেছে তা কখনো মুক্তচিন্তা হতে পারে না, তা কখনো মুক্ত চর্চায় গ্রহনযোগ্য না। কোরানের উপর প্রশ্রাব করলেই কি সব সমাধান বা প্রতিশোধ হয়ে যাবে? কোরানের উপর প্রশ্রাব করে পোষ্ট দিয়ে বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা আর বাংলাদেশে অবস্থানরত নাস্তিকদের বিপাকে ফেলা ছাড়া আর কিছুই হবে না। মুক্তচিন্তকরা হতে হবে যুক্তিশীল, রগচটা নাস্তিকতা সবার জন্যই অকাম্য।

উগ্র নাস্তিকতা শুধু সেলিব্রেটি ও নাম কামানোর বাহানা ছাড়া আর কিছু না, সত্যিকারের মুক্তচিন্তক কখনো উগ্রতায় জড়াবে না। আর নািস্তকতায় উগ্রতাও প্রয়োজন আছে তবে সেটা হতে হবে যৌক্তিক।

মুহাম্মদ লুইচ্চামি করেছে বা আল্লা ভগবান ঈশ্বর বলতে কিছু নেই, আর কোরান একটি কাল্পনিক গল্পের বই মাত্র সেখানে প্রশ্রাব করলে কিছু হবে না আমরা জানি….কিন্তু তারপরেও কেন মূর্খামী করবো? আমরা জানি মুসলিমদের অনুভূতি বেশি দূর্বল আর তারা আল্লাকে ও মুহাম্মদের কথা-বার্তা রক্ষা করার জন্য নিজের গায়ে বোমা লাগিয়ে মরে যাবে! আর সেই বোমায় সাধারন মানুষকেও কতল হতে হবে। তাই আসাদ নুর এবং অতি উগ্র নাস্তিকগন, আপনারা অযথা মোল্লাদের ক্ষ্যাপাবেন না। ঐ সব অন্ধকানা গুলোকে যুক্তির কলে ঢুকিয়ে মোফােস্সলের মতো বের করে আনেন!!

বেশি কিছু বললাম না।

জয় হোক মুক্তচিন্তার
জয় হোক মানুষের।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১০ thoughts on “কোরআনের উপর প্রশ্রাব ও আসাদ নুরের উগ্রতা!

  1. আসাদ নুর ছেলেটাকে এত পাত্তা
    আসাদ নুর ছেলেটাকে এত পাত্তা দেওয়ার কিছু দেখছি না। ওর মধ্যে মাল মসল্লা কিছু নেই। তার ভিডিওগুলোতে আমিত্ব ছাড়া কিছুই নেই। লেখাগুলোতে জ্ঞান চর্চার কোন খোরাক নাই। এরা হচ্ছে ফেইম সিকার। কিছুদিন পরেই হারিয়ে যাবে। মুসলানদের এত উচ্ছৃঙ্খলার জবাব আরো ফালতুভাবে কেউ দিলেও কিছু বলার নাই। হিংসা ও বিদ্বেষ যে গোষ্টি শুরু করেছে তারা আগে বন্ধ করুক, অন্যরা এমনিতেই বন্ধ করে দেবে।

    1. মুসলানদের এত উচ্ছৃঙ্খলার জবাব

      মুসলানদের এত উচ্ছৃঙ্খলার জবাব আরো ফালতুভাবে কেউ দিলেও কিছু বলার নাই।

      ভাইয়ে কি নাস্তিক জিহাদী হইতে চান? 😀

  2. আমরা জানি মুসলিমদের অনুভূতি

    আমরা জানি মুসলিমদের অনুভূতি বেশি দূর্বল আর তারা আল্লাকে ও মুহাম্মদের কথা-বার্তা রক্ষা করার জন্য নিজের গায়ে বোমা লাগিয়ে মরে যাবে! আর সেই বোমায় সাধারন মানুষকেও কতল হতে হবে। তাই আসাদ নুর এবং অতি উগ্র নাস্তিকগন, আপনারা অযথা মোল্লাদের ক্ষ্যাপাবেন না। ঐ সব অন্ধকানা গুলোকে যুক্তির কলে ঢুকিয়ে মোফােস্সলের মতো বের করে আনেন!!

    বেশি কিছু বললাম না।

    জয় হোক মুক্তচিন্তার
    জয় হোক মানুষের।

    দারুণ বলেছো রানা। তোমার সাথে সহমত। কারোই উচিত না ধর্মীয় সম্প্রীতি, আর সামাজিক স্থিতিশীলতা নষ্ট হয়, এমন কিছু না করা।

  3. সব ইসলাম বিদ্যেষী নাস্তিকরাই
    সব ইসলাম বিদ্যেষী নাস্তিকরাই যে আসলে আসাদ নুরের আদর্শকে বুকে লালন করে– এই কথাটি বুঝতে আমাদের যত দেরী হবে ততই আমাদের সমস্যা বাড়বে।

    1. সব মুসলমানরা যখন অন্য
      সব মুসলমানরা যখন অন্য ধর্মগুলোর ক্ষেত্রে আসাদ নুর এর মত আচরণ করে তখন কি সমস্যা বাড়ে না? মূল সমস্যাটা ওখান থেকেই শুরু হয়েছে। ওখানে বন্ধ না করলে খেলা চলবে….। মুসলমানদের আগে অন্য ধর্ম, বর্ণ, গোত্রের প্রতি সম্মান করা শিখতে হবে। তারপর ধর্ষক নবীর উম্মতদের উচিত অন্যদের সংশোধন হওয়ার কথা বলা। যত্তসব হিপোক্রেটের দল!

      1. তারপর ধর্ষক নবীর উম্মতদের

        তারপর ধর্ষক নবীর উম্মতদের উচিত অন্যদের সংশোধন হওয়ার কথা বলা। যত্তসব হিপোক্রেটের দল!

        বলেছিলাম না, আপনারা সবাই আসাদ নুরের স্বপ্নকেই লালন করেন। চাইলেও ফনা লুকিয়ে রাখতে পারেন না। অত্যন্ত আশার কথা যে এদেশের সাধারন মানুষ ব্যাপারটা ধীরে ধীরে হলেও বুঝতে শুরু করেছে। এবং এটা খুবই গুরুত্বপুর্ন। ধন্যবাদ আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

        1. প্রথম কথা হলো – আসাদ নুরের
          প্রথম কথা হলো – আসাদ নুরের জন্ম মুসলিম পরিবারে , বাংলাদেশে। সে মাদ্রাসাতেও পড়েছে। প্রশ্ন হলো – সে কেন এরকম উগ্র নাস্তিক হয়ে কোরানের ওপর প্রসাব করতে চাইল ? এর দায় ইসলাম ও মুসলমানদের। কারন তাদের উগ্র আচরনই তাকে নাস্তিক করেছে ও পরে সে নিজেও উগ্র হয়েছে।

          খেয়াল করুন , আসাদ নুর ইসলাম ত্যাগ করেছে , তার পরিবার কিন্তু ইসলাম ত্যাগ করে নি বরং খাটি মুমিনই আছে। কিন্তু আপনাদের মত মুমিনরা কিন্তু তার মা বাবাকে পর্যন্ত আক্রমন করতে যাচ্ছেন , তাগেরকে গালিগালাজ করছেন। তো সেটা কিভাবে বৈধ ?

          বর্তমানে শীত মওসুমে সারা বাংলাদেশে ওয়াজের বন্যা বইছে , প্রতিটা ওয়াজেই বিখ্যাত সব আলেমরা অন্য ধর্মকে নির্লজ্জভাবে গালাগালি করে। আপনাদের মত মুমিনরা তখন শুনে মজা পান। কিন্তু যেই ইসলাম নিয়ে কেউ সমালোচনা করে তখন আপনাদের অনুভুতিতে মারাত্মক আঘাত লাগে। তো অনুভূতি কি কেবল আপনাদেরই আছে ?

          হতে পারে আসাদ নুর মাাত্রা ছাড়া বাড়াবাড়ি করছে। কিন্তু খেয়াল করুন , অন্য কোন নাস্তিক বা অমুসলিম তার পক্ষে তেমন কেউ সাফাই গাইছে না। কিন্তু কেউ যখন ইসলাম ত্যাগ করে , বা ইসলাম নিয়ে সমালোচনা করে , তখন আপনারা দল বেধে কিভাবে তাকে গালি গালাজ করেন , হুমকি ধামকি দেন আর তখন সবাই কুত্তার পালের মত এক হয়ে যান। এর কারন কি ?

          পরিশেষে , পাগলা কুত্তাকে কি আদর দিয়ে সুস্থ করা যায় ? যায় না । পাগলা কুত্তাকে ডান্ডা দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করতে হয় , না হলে সে তার রোগ ছড়ায়। সভ্য মানুষ বহুদিন চেষ্টা করেছে সভ্য আচরন দিয়ে আপনাদের মত মুমিনদেরকে সভ্য করতে , কিন্তু তাতে কাজ হয় নি। যার প্রমান সারা দুনিয়ায় আপনাদের মত মুমিনদের হিংস্র আচরন। সুতরাং বুঝতেই পারছেন পাগলা কুত্তা দমনের আর কি উপায় অবশিষ্ট আছে ?

  4. আসাদ এখনো টিকে আছে, যতদিন
    আসাদ এখনো টিকে আছে, যতদিন বাঁচবে এভাবেই বাঁচবে।
    আমি দুঃখিত সেই সময়কার ভিডিওটি দেয়ার জন্য কিন্তু আমি বুঝে উঠতে সক্ষম হইনি আসলে কি করবো
    আমার নিরিহ মা-বাবাকে প্রায় পাঁচ হাজার লোক ঘিরে ধরেছিলো বাড়ি পুড়িয়ে দিবে, ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা চেয়েছিলো সম্পূর্ণ অযৌক্তিকভাবে। আমি নিরুপায় ছিলাম, মুসলিমদের থাবা থেকে আমার মা-বাবাকে বাঁচানোর আর কোন উপায় ছিলো না মুসলিমদের পুস্কক কেদ্র করে ব্লাকমেইলিং ছাড়া।
    আমার বাবা-মা কে মেরে ফেললে হয়তো আপনাদের মত কয়েকশত নাস্তিক মায়া কান্না দেখাতো তবে সেটা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়।
    আমি নাস্তিক হয়েছি সেটা যদি কারো প্যাটার্ন নিতে হয় তবে নিতে রাজি আছি তবে এরকম নির্লজ্জ সমালোচনা না করলে খুশী হব অন্ততপক্ষে পরিস্থিতি জাচাই না করে।
    আমি মরে গেলে আপত্তি নেই কিন্তু আমার জন্য কোন প্রাণ চলে যাক সেটা আমি চাই না।
    আমার জন্য যদি কোন নাস্তিকের পথচলায় বিপত্তি ঘটে থাকে তবে আমি উন্মুক্ত স্থানে তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থী। এর পরেও যদি অপরাধের মাত্রা বেশী হয়ে থাকে তবে আপনাদের ক্ষতি পুড়ন করার চেষ্টা করবো।
    প্লিজ আমার ইমোশোন নিয়ে তামাশা করবেন না।
    আর হ্যাঁ আমি জ্ঞানের দিক থেকে খুব নিম্ন স্তরে আছি, আশা করি বেঁচে থাকলে একদিন আপনাদের মত জ্ঞানী হব। ধর্ম ছেড়ে দেয়া এবং পরবর্তীকালে আমার অবস্থান স্পষ্ট করাটা যদি আমার অপরাধ হতে থাকে এবং ছাগুদের ভাইরাল করা ভিডিও যদি আপনাদের নাস্তিকানুভুতিতে আঘাত লেগে থাকে তবে ক্ষমা করবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 26 = 31