মুভি লইয়া প্যাচালঃ Raees – রইস

একনজরে “Raees”

পরিচালকঃ রাহুল ঢোলাকিয়া

অভিনয়েঃ শাহরুখ খান, নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকী এবং মাহিরা খান (মুখ্য চরিত্রে)

সঙ্গীতঃ আমার কেবল “জালিমা” গানটা ভাল্লাগছে। বাকীগুলা টাইনা গেছি। সানি আপার একটা ওল্ড রিমেক আইটেম সং-ও আছে।

আইএমডিবি রেটিংঃ 8.1/10 (7-7.5 এ নাইমা আসবে মনে হয় ধীরে ধীরে)
আমার রেটিংঃ 6.5/10


একটি মুভি দেখিয়াছি গত রাত্রিতে। নাম হইলো “Raees” কিংবা “রইস”। “রইস” হইলো একটি কাল্পনিক লোকের নাম, গুজরাটে যার জন্ম। যদিও মুভিতে উনি লোক পরে হইছেন, একসময় শিশুও ছিলেন। আমার শিশুকালের পার্টটা ভাল্লাগছে। আমার ছোটবেলায় স্কুলের এক শিক্ষকের নাম ছিল রইসুদ্দিন। আমরা ডাকতাম রইস স্যার বলে। ব্যাপক মারতো, যদিও আমি একদিনও মাইর খাই নাই। উনার দাঁড়ি আর এই রইসের দাঁড়ির স্টাইলে ব্যাপক মিল পাইলাম। এই রিভিউর সাথে যদিও সেই মিলের গল্প তোলা অপ্রাসঙ্গিক।

কালকে কীভাবে পাইলাম মুভিটা ঘরে বইসা সেইটাও বলি। টরেন্ট নামে কী জানি একটা আছে। ওইটায় জন্য শুনলাম পাইরেট বে নামের একটা সাইটও আছে। তো ওইখানে গিয়া Raees লিখে সার্চ দিতেই দেখি অনেকগুলা টরেন্ট ফাইল চইলে আসলো। এইসব দিয়া কী হয় বোঝার জন্য একটি পিচ্চি টরেন্ট ক্লায়েন্ট নামাইলাম, এবং আমার ৫০এমবিপিএস স্পিডের ব্রডব্যান্ডে মিনিট ১০-১৫ তেই মেনে গেলো দেড় গিগা সাইজের একটা মুভি। আমিতো অবাক এ কী করলাম। এতো বে-আইনী। আমি অবশ্য জানার জন্য করছি ক্যামনে কী হয়, আমার দোষ নাই। কেউ আবার ভাইবেন না আমি আপনাদের অবৈধ পাইরেটেড কন্টেন্টের আখড়া আর হাইলি আনসেফ টরেন্ট ইউজ করা শিখাইতেছি। আমি কেবল আমার ভুলবশত করে ফেলা অভিজ্ঞতার কথা জানাইলাম। আপনারাও চেক করার জন্য এইভাবে নামাইলে আশা করি অপরাধ হবে না। আর থার্ড ওয়ার্ল্ড কান্ট্রিতে এমনিতেই সব লিগ্যাল। এইসব সামান্য ব্যাপার অনৈতিক কিংবা চুরিচামারী ভাববার কারণ দেখি না। জানি না আমাদের মন্ত্রী হালিম আপাও মুভিটুভি দেখতে টরেন্ট ব্যবহার করেন নাকি। পলক ভাই করতেও পারেন, উনি স্মার্ট আছেন।

যাইহোক্‌, রিভিউতে অনেকে গড়গড় করে কাহিনী বইলা যান। আমার মনে হয় এইটা অপরাধের পর্যায়ে পরে। কাহিনী জানা থাকলে নানা টুইস্টের মজা, কাহিনীর ভেতর ধীরে ধীরে ঢুকে যাওয়ার আনন্দটা থাকে না। তাই কাহিনীটা বলবো না। তবে কাহিনী সম্পর্কে বলবো, সাধারণ কাহিনী। টোকা দিয়ে ফেলেও দেয়া যায় না, আবার তুলে রাখবার মতও না। একশন ক্রাইম থ্রিলার মুভি। ওই লাইনেই গেছে। শাহরুখ আঙ্কেলকে “চাক দে ইন্ডিয়ার” কবির খানের মত লাগছে অনেকটা। এই মুভিতে শাখরুখের ছ্যাবলামী,তোতলামী এবং অতি অভিনয়ের মাত্রা কম ছিল। ভালোই লাগছে। কিছু অংশের অভিনয় ভালো ছিল, কিছু অংশে সাধারণ।

মাহিরা খানঅকে খারাপ লাগে নাই। চেহারা যাই হোক, ফিগার আকর্ষণীয় লাগছে। যদিও কাহিনীতে নায়িকা থাকা লাগে, তাই রাখা। কাহিনীর মূল গতিবিধিতে নায়িকার তেমন ভূমিকা নাই। যেই ভূমিকা আছে পুলিশ অফিসার নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকীর। এই লোকটা আবারও দুর্দান্ত অভিনয় করছেন।

মুভিতে রইস ভাইজানকে বলা উনার আম্মিজানের একটা উক্তি ছিল, যা রইস ভাইজান মরবার আগপর্যন্ত বুকে লালন করছেন। উনার আম্মিজান বলে গেছিলেন, “ধান্ধাই ধর্ম, যদি তার কারণে মানুষের ক্ষতি না হয়” কিংবা “ধান্ধাই ধর্ম, যদি তা মানুষের ভালোর জন্য হয়।” ১২ ঘন্টা আগে দেখছি তো, হুবহু মনে নাই। এই ডায়লগরে বারবার হাইলাইট করা হইছে। কিন্তু আমার মনে হইছে এই লাইনই এই মুভির বড় কন্সেপচ্যুয়াল ভুল। কারণ, রইস নাহয় টাকা কামাইয়া সব হিন্দু মুসলমান নির্বিশেষে সবার জন্য উড়াইয়া দিছেন, কিন্তু উনার ধান্ধা তো ছিল মদ গাঞ্জার ব্যবসা টাইপের। এইসবে মানুষের উপকার হয় ক্যামনে? এইসব ধান্ধা তো মানুষের ক্ষতিরই কারণ হয়। ইনশাল্লাহ, মাশাল্লাহ বইলা ফাটায়া ফেলছে রইস ভাইজান, আবার করতেছে মদের চোরাকারবারী, মহান ধান্ধা। ব্যাপারটা যদিও সম্ভব। ভারতের মুসলমানরা এইসব করেও। আর এই কাহিনীও নাকি আব্দুল লতিফ নামের এক গ্যাংস্টারের জীবনে থেকে নেয়া হইছিলো। যদিও প্রযোজক পরিচালক এবং বাকী টিম তা কঠোরভাবে অস্বীকার করছেন। রইস হিরো নাকি ভিলেনের রোল প্লে করছে সেই সম্পর্কে আমি ভাবি নাই, ভাবনার খোরাক আছে যদিও।

একনজরে “Raees”

পরিচালকঃ রাহুল ঢোলাকিয়া

অভিনয়েঃ শাহরুখ খান, নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকী এবং মাহিরা খান (মুখ্য চরিত্রে)

সঙ্গীতঃ আমার কেবল “জালিমা” গানটা ভাল্লাগছে। বাকীগুলা টাইনা গেছি। সানি আপার একটা ওল্ড রিমেক আইটেম সং-ও আছে।

আইএমডিবি রেটিংঃ 8.1/10 (7-7.5 এ নাইমা আসবে মনে হয় ধীরে ধীরে)
আমার রেটিংঃ 6.5/10

তো আর কী? দেখে ফেলেন Raees, যদি মন চায়। পপকর্ণ নিয়া বসেন যদি নিজেই বানাইতে পারেন। ঘুমানোর আগে দেইখেন, ঘুম থেকে উঠে ভুলে গেলেও সমস্যা নাই।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “মুভি লইয়া প্যাচালঃ Raees – রইস

    1. ভালোলাগার উপর কারো হাত নাই।
      ভালোলাগার উপর কারো হাত নাই। আমিও যেমন অভয় দেওল থাকলে ওইটা দেখবোই। গোবিন্দের সস্তা কমেডি মুভিরও আমি বিশাল ফ্যান ছিলাম 😀

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

23 + = 27