মুসলিম আলীমরা মিথ্যাবাদী : কুরআন হাদীস অবশ্যই সন্ত্রাসবাদের কথা বলে

বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হচ্ছে ইসলামী সন্ত্রাসবাদ । পৃথিবীর প্রায় সবগুলো সন্ত্রাসবাদী গোষ্টী ইসলামের দোহাই দিয়ে এসব কার্জকলাপ চালালেও সকল মুসলিম স্কলার বা আলীমরা বার বার বলেন, ইসলামে সন্ত্রাসবাদের ঠাই নেই ।
প্রকৃতঅর্থে, ঐসকল আলীমরা মিথ্যাবাদী ছাড়া আর কিছুই নয় ।
নিচে কুরআনের কিছু আয়াত এবং হাদীস উল্ল্যেখ করেছি । সবার কাছে পরিস্কার হবে বলে আশা রাখি ।

১) সূরা বাকারার ২১৬ নাম্বার আয়াতে বলা হয়েছে,

“তোমাদের উপর ক্বিতাল(সশস্ত্রজিহাদ)
ফরজ
করে দেওয়া হয়েছে, অথচ তোমাদের
কাছে তা অপছন্দনীয় ।”

২) সূরা আনফালের ৩৯ নাম্বার আায়াতে বলা হয়েছে,

“আর তোমরা তাদের বিরুদ্ধে সশস্ত্র জিহাদ
করতে থাক, যতক্ষণ না ফেৎনার অবসান হয়
এবং আল্লাহর দ্বীন পূর্ণ
প্রতিষ্ঠা হয় ।”

৩) সূরা আনফালের ১২ এবং ১৩ নাম্বার আয়াতে বলা হয়েছে,

“আমি কাফেরদের মনে ভীতির সঞ্চার
করে দেব। কাজেই গর্দানের উপর আঘাত
হান এবং তাদেরকে কাটো জোড়ায়
জোড়ায়। যেহেতু তারা অবাধ্য
হয়েছে আল্লাহ এবং তাঁর রসূলের, সেজন্য
এই নির্দেশ। বস্তুতঃ যে লোক আল্লাহ ও
রসূলের অবাধ্য হয়, নিঃসন্দেহে আল্লাহর
শাস্তি অত্যন্ত কঠোর ।”

৪) সূরা আনফালের ১৭ নাম্বার আায়াতে বলা হয়েছে,

“সুতরাং তোমরা তাদেরকে হত্যা করনি,
বরং আল্লাহই তাদেরকে হত্যা করেছেন ।”

৫) সূরা তাওবার ১২ নাম্বার আায়াতে বলা হয়েছে,

“আর যদি ভঙ্গ করে তারা তাদের শপথ
প্রতিশ্রুতির পর এবং বিদ্রুপ
করে তোমাদের দ্বীন সম্পর্কে, তবে কুফর
প্রধানদের সাথে যুদ্ধ কর ।”

৬) সূরা নিসা-র ৭১ নাম্বার আাশাতে বলা হয়েছে,

“হে ঈমানদারগণ! নিজেদের অস্ত্র তুলে নাও
এবং পৃথক পৃথক
সৈন্যদলে কিংবা সমবেতভাবে বেরিয়ে
পড় ।”

এছাড়া রয়েছে আরো শতাধিক আয়াত । যেগুলো তর্কসাপেক্ষ বিবেচনায় উল্ল্যেখ করা হলো না ।

এবার আসা যাক হাদীসের কথায় ।
কয়েকটি হাদীস উল্ল্যখ করলাম ।

১) ঐ শত্তার শপথ যার
হাতে আমার জীবন ।
আমি আকাংক্ষা করি আল্লাহর
রাস্তায় সশস্ত্র জিহাদ করতে করতে যেন
শহীদ
হয়ে যাই।
অতঃপর আমাকে জীবিত করা হয়, পুনরায়
শহীদ
হয়ে যাই। আবার জীবিত করা হয়, আবার
পুনরায় শহীদ
হয়ে যাই। আবার জীবিত করা হয়, আবার
পুনরায় শহীদ
হয়ে যাই।
(বুখারী, অধ্যায়ঃ-জিহাদ)

২)
তোমাদের জন্য বহুদেশ বিজয়
করিয়ে দিবেন এবং তিনিই তোমাদের জন্য
যথেষ্ঠ।
অতঃএব তোমাদের মধ্যে যেন কেহ তীর
খেলা তথা জিহাদী প্রশিক্ষণ
নিতে অপারগতা প্রকাশ
না করে||
(মুসলিম, অধ্যায়ঃ-জিহাদ)

৩) আমাকে কিয়ামত পর্যন্ত
সকল
যুগের জন্য তলোয়ার দিয়ে পাঠানো হয়েছে।
আর আমার রিযিক(গণিমতের পন্থায়) বল্লমের
ছায়ার
নিচে রেখে দেওয়া হয়েছে||
(বুখারী, অধ্যায়ঃ-জিহাদ)

৪)
আল্লাহর
আইনকে বাস্তবায়ন করার জন্য
আমার উম্মতের মধ্যে একটি দল সব সময় সশস্ত্র
জিহাদ করে যাবে, তারা তাদের শত্রুদের
প্রতি হবে কঠোর। যারা তাদের
বিরোধিতা করবে,
তারা তাদের কোন ক্ষতি করতে পারবে না।
তারা কিয়ামত
পর্যন্ত এ কাজ চালিয়ে যাবে||
(মুসলিম, অধ্যায়ঃ-জিহাদ)

৫)
আমি তোমাদের মাঝে দুইটি বস্তু
রেখে যাচ্ছি|
তোমরা এই দুইটি বস্তু যতদিন আকড়ে ধরবে,
ততদিন
পথভ্রষ্ট হবে না|
১||কোরআন||
২||হাদীস ||
হে আমার প্রিয় দ্বীনি মুসলিম ভাই-বোন!!!!
বর্তমানে সারা বিশ্বে মুসলিমরা তাগুত
কতৃক নির্যাতিত,
নিপীড়িত, নিষ্পেষিত, ধর্ষণ, গণধর্ষণ, হত্যা,
গণহত্যার
শিকার হচ্ছে। আর সারা বিশ্বের মতো তুমিও
নিরব
ভূমিকা পালন করছ। কিন্তু কেন!! তোমার উপর
কি জিহাদ
ফরজ হয় নাই?

মুসলিম আলীমরা মিথ্যাবাদী কি না সেই সিদ্ধান্তের ভার পাঠকদের হাতে ছেড়ে দিলাম ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 2 = 3