বোরখা কি আমাদের সংস্কৃতিতে ধার করে আনা !

বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত লেখিকা বোরখা সম্পর্কে তার একটি লেখা লিখেছিলেন,
“ষাটের দশকের শেষ দিকে আমি বিদ্যাময়ী ইস্কুলে পড়ি।হাজারো ছাত্রী, কিন্তু কেউই কখনও বোরখা পরতো না। কোনো ছাত্রী তো নয়ই, কোনও শিক্ষিকাও নয়। বোরখার কোনও চলই ছিল না। খুব পর্দানশীল মৌলবী পরিবারের বয়স্ক মহিলারা বাইরে বেরোলে রিকসায় শাড়ি পেঁচিয়ে নিত। সত্তরের দশকে সারা ইস্কুলে একটি মেয়েই বোরখা পরতো। তার নাম ছিল হ্যাপি। হ্যাপি তার বোরখাটা ইস্কুলের গেটের কাছে এসেই খুলে ফেলতো। সে যে বোরখা পরে ইস্কুলে আসে তা কাউকে জানতে দিতে চাইতো না। কিন্তু খবরটা একদিন ঠিকই জানাজানি হয়ে যায়। জানাজানি হওয়ার পর ইস্কুলের মেয়েরা সবাই হ্যাপিকে নিয়ে হাসাহাসি করতো। বোরখা একটা হাস্যকর পোশাক ছিল ষাট আর সত্তর দশক জুড়ে। দু’একজন যারা পরতে বাধ্য হতো, তারা লজ্জায় রাস্তাঘাটে মাটির সঙ্গে মিশে থাকতো।

আশির দশকের শেষ দিকে শাড়ির ওপর একটা বাড়তি ওড়নার মতো কাপড় পরা শুরু হয়েছিল। নব্বই দশকের শুরু থেকে বাঙ্গালী মেয়েদের মধ্যে বোরখার ব্যাপক প্রচলন হতে থাকে।”

লেখকের ভাষ্য অনুযায়ী, গত ২০-২৫ বছরে বাঙ্গালী মেয়েদের বোরখা পরিধানের হার আশঙ্গাজনক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন শুধু কোন বিশেষ শ্রেণির মেয়েরা-ই বোরখা পড়ছে না। বিশ্ববিদ্যালয়,ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল,অফিস আদালতে থেকে শুরু করে সব খানে মেয়েরা বোরখা পড়ছে ।

গত কয়েক দিনের একটা পরিসংখানে দেখা যাচ্ছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি ৫ জন মেয়ের মধ্যে ৩ মেয়ে-ই বোরখা পরিধান করছে। এছাড়াও গত কয়েক বছরে বোরখা বিক্রি বেড়েছে প্রায় ৫০০ গুন। আজকাল আবার দেখছি শিশুদের ও বোরখা পড়ানো হচ্ছে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে বোরখা কি আমাদের সংস্কৃতি নাকি ধার করা অন্য কারো সংস্কৃতি?
বেগম রোকেয়া বলেছিলেন “বোরখা আমাদের সংস্কৃতি নয়” ।
সুফিয়া কামাল-ত বোরখা পুরিয়েই দিয়েছিলেন ।
বোরখা পড়ার পিছনে কিছু মানুষ তাদের যুক্তি দেখায় , মেয়েদের শরীর ঢেকে রাখার জন্য বোরখা পড়া উচিৎ। বোরখা মেয়েদের পর-পুরুষের থেকে নিরাপদে রাখে ।
সেই সব লোকের যুক্তি মতে , মেয়েরা ভোগের জিনিস,তাদের দেখলেই আমাদের(ছেলেদের) যৌন তৃপ্তি পেতে হচ্ছে করে ।

আসলে মেয়েরা বোরখা পড়ছে তাদের জন্য নয় ,ছেলেদের সমস্যা দূর করা জন্য । আমার মনে হয়, বোরখা আসলে মেয়েদের জন্য অপমান নয় , বোরখা ছেলেদের জন্য অপমান সরুপ । কারণ ছেলেদের হিংস ছোবল থেকে রক্ষা পেতেই মেয়েদের বোরখা পড়তে হচ্ছে ।

শুরুর সেই বিখ্যাত লেখিকার কথা দিয়েই শেষ করছি, তিনি তার অন্য একটি লেখায় বলেছিলেন “বোরখা আসলে চোর ডাকাতের পোশাক,বোরখা পরে অপরাধ করলে সহজেই পালানো যায়, কেউ চিনতে পারে না” ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “বোরখা কি আমাদের সংস্কৃতিতে ধার করে আনা !

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 1 = 1