নাহ … কল্পনার জগতে কোন “মন খারাপ” এর জায়গা নেই …

জীবনটা বাংলা সিনেমা না … বাংলা সিনেমা হলে দুইজন মিলে একটা চাদর গায়ে জড়িয়ে রাখতো … জড়সড় হয়ে বসে একজন আরেকজনের দিকে তাকিয়ে মিটিমিটি হাসতো … তারপর হয়তো একটা গান শুরু হয়ে যেতো !!

“বসন্তের দিনেও কী রকম বাতাস !!”

“হুম … তাই তো দেখছি !!”

“এবং আপনি একটা পাতলা শার্ট পড়ে আছেন শুধু ??”

“সমস্যা নেই !!”

“আপনার শীত করছে না ??”

“নাহ !!”

নীলার খুব ইচ্ছা করলো ছেলেটাকে বলতেঃ

“আমি জানি, আপনার শীত করছে … এই চাদরটা নেন প্লিজ !!”

ছেলেটা নিবে না … নীলা জোর করে তার গায়ে চাদরটা জড়িয়ে দিবে !!

জীবনটা বাংলা সিনেমা না … বাংলা সিনেমা হলে দুইজন মিলে একটা চাদর গায়ে জড়িয়ে রাখতো … জড়সড় হয়ে বসে একজন আরেকজনের দিকে তাকিয়ে মিটিমিটি হাসতো … তারপর হয়তো একটা গান শুরু হয়ে যেতো !!

এই মূহুর্তে প্রকৃতি গান গাইছে … বাতাসের সুর তুলে গান গাইছে … নীলার খুব ইচ্ছা করছে সেই গানের সাথে তাল মিলাতে !!

“একটা গান শুনবেন ??”

ছেলেটা খুব গম্ভীরভাবে সিগারেট ধরিয়ে টানছে … কোন উত্তর নেই !!

“সিগারেটটা না খেলে হয় না ??”

“না !!”

নীলার খুব ইচ্ছে হল, ছেলেটার আঙ্গুলের ফাঁক থেকে সিগারেটটা টেনে নিয়ে ফেলে দিতে … সাহস হলো না … আচ্ছা, পানি ঢেলে দিলে কেমন হয় ?? … কীসব যে মাথায় আসছে, নীলা আসলেই পাগল হয়ে গেছে আজকে !!

আচ্ছা, এখন যদি বৃষ্টি নামতো … টুপ করে এক ফোঁটা বৃষ্টিকণা ছেলেটার সিগারেটটা নিভিয়ে দিতো … আনন্দে নীলা হাততালি দিয়ে বসতো … নীলা আসলেই পাগল হয়ে গেছে … বসন্তকালে বৃষ্টি আসবে কোত্থেকে ?? … ধুরু !!

“আমি বরং যাই আজকে !!”

“আচ্ছা … রিকশা নিয়ে চলে যান !!”

নীলা রিকশায় উঠে পেছনে তাকালো … ছেলেটা এখনো মনোযোগ দিয়ে সিগারেট টানছে … আচ্ছা, ছেলেটা কী কিছুই বুঝে না ?? … কিছুই দেখে না ?? … নাকি সে অন্ধ ?? … এই মূহুর্তে নীলার রাগ হওয়া উচিত … কিন্তু কেন জানি, তার রাগ হচ্ছে না !!

… … …

টুপ করে একটা ফোঁটা … তারপর আবার একটা ফোঁটা … তারপর আবার … নীলা অবাক হয়ে তার হাতের দিকে তাকায় … বৃষ্টি পড়ছে … আসলেই বৃষ্টি পড়ছে … বসন্তকালে বৃষ্টি পড়ছে … ঠিক যেমনটা সে ভেবেছিল !!

ছেলেটার মোটা চশমার কাচের উপর টপটপ করে বৃষ্টির ফোঁটা পড়ছে … তার দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে যাচ্ছে … বার বার আঙ্গুল দিয়ে পানি মুছেও লাভ হচ্ছে না … সে সামনের কিছুই দেখতে পাচ্ছে না … নিজেকে অন্ধ মনে হচ্ছে তার … আচ্ছা, অন্ধরা কিভাবে হাঁটে ?? … হয়, লাঠি দিয়ে আর নাহয় কেউ হাত ধরে সামনে নিয়ে যায় … ছেলেটার কাছে এখন লাঠি নেই … একটা হাত ছিল, সে চলে গেছে !!

… … …

নীলা রিকশা ঘুরিয়ে আবার সেই আগের জায়গায় যায় … ছেলেটা এখনো সেখানে দাঁড়িয়ে আছে … তার সিগারেট নিভে গেছে … আপাতত সে অন্ধের মত হাঁটছে … তার একটা হাত দরকার … ভীষণ দরকার !!

মোটা কাচের চশমা পরা একটা ছেলের হাত ধরে গুটি গুটি পায়ে নীলা হাঁটছে … বসন্তের বৃষ্টি একটু পরই থেমে যাবে … নীলার কী মন খারাপ হওয়া উচিত ??

নাহ … কল্পনার জগতে কোন “মন খারাপ” এর জায়গা নেই … সব “মন খারাপ” এর জায়গা বাস্তবে !!

এই মূহুর্তে বাস্তব জগতের রিকশায় বসে থাকা নীলার মন খারাপ … একই মূহুর্তে কল্পনার জগতে ছেলেটার হাত ধরে গুটি গুটি পায়ে হাঁটতে থাকা নীলার মন ভীষণ ভালো !!

দুই জগতেই ছেলেটা হাঁটছে … অন্ধ হয়ে … কিংবা অন্ধ সেজে !!”

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2 + 2 =