নারী কি “লোক” হতে পারে!

মাস্টার্স পড়ার সময়। প্রাণিবিজ্ঞান বিষয়ের স্যার খুব ভালো পড়ান। একদিন স্যার একটি বইয়ের পৃষ্ঠা মেলে ধরে বললেন- বলতো এটা কি? আমরা সবাই ঠিকঠাক উত্তর দিতে পেরেছিলাম। চিত্রটাতে কয়েক রংয়ের ফোঁটা কেবল। আমরা বলতে পেরেছিলাম এজন্যে যে- আমরা কেউ এখানে বর্ণান্ধ নই। কিন্তু স্যার বললেন কেউ কেউ এ চিত্র দেখে ভুল উত্তর দেয় কারণ তারা বর্ণান্ধ অর্থাৎ ঠিক ঠিক রং চিহ্নিত করতে ব্যর্থ হয়। এটা লাল-সবুজ বর্ণান্ধতা। লাল-সবুজ বর্ণান্ধতার জন্যে দায়ী যে মিউট্যান্ট জীন তা ’এক্স’ ক্রেমোজোমে অবস্থান করে। এটা হেটেরোগ্যামেটিক লিঙ্গে বেশী প্রকাশ পায়।

হোমোজাইগাস অবস্থায় নারীতে, হেমিজাইগাস অবস্থায় পুরূষে আত্মপ্রকাশ করে অর্থাৎ পুরূষরা বর্ণান্ধ বেশী হয়। দেখা গেছে যে, উভয়ক্ষেত্রে হয় সবুজ রং সংবেদী নতুবা লাল রং সংবেদী কিছু কোণ্ কোষ অনুপুস্থিত থাকে তাই নারী-পুরূষ উভয়েই অনেক রঙ্গের মধ্য থেকে কতক রং চিহ্নিত করতে অসমর্থ হয়। বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ করা আমার উদ্দেশ্য নয়। উদ্দেশ্য অন্যখানে। স্যার তখন একটা অঙ্ক দিলেন এরকম- যদি একজন বর্ণান্ধ লোক একজন নর্মাল নারীকে বিয়ে করে তাহলে তাদের সন্তান-সন্ততি কেমন হবে? বলাবাহুল্য খুব ভালোভাবে অঙ্কটা আমিই করতে পেরেছিলাম। অঙ্ক পারার আনন্দে উৎফুল্ল হতে পারিনি।

এভাবে আরো দুটি অঙ্ক যথারীতি করে ফেললাম, পারছি কিন্তু আনন্দ পাচ্ছি না। কোথায় যেন মনক্ষুন্ন হচ্ছে আমার। প্রতিটি ’অঙ্কডাকে’ ”একজন লোক একজন নারীকে বিয়ে করে” এভাবে লিখা থাকে। যেহেতু এটি সেক্সের সাথে জড়িত এমন বিষয়ক অঙ্ক সেহেতু অবশ্যই নারী-পুরূষ সণাক্ত করতে হবে। কিন্তু আমার কথা হলো- নারীকে যদি নারী হিসেবে সণাক্ত করা হয় তবে পুরূষকে কেনো লোক হিসেবে সণাক্ত করা হলো? আর বারবার পুরূষই বা কে‌নো ”নারীকে বিয়ে করে” বলা হচ্ছে? এখানে লোক অর্থাৎ জন বা মানুষ বলা হচ্ছে পুরূষকে কিন্তু শুধু নারীকেই লিঙ্গচিহ্ন হিসেবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। ”বিয়ে করা হচ্ছে নারীকে” যেন নারী কোন বস্তু বিষয়ক কিছু। সেক্সের সাথে জড়িত এমন বিষয়ক অঙ্ক বলে নারী শব্দটি অবশ্যই লিখতে হবে আর চাই ’অঙ্কডাকে’ লোক না লিখে পুরূষ লিখতে হবে। আমি ওমন ’অঙ্কডাকে’ স্যারের কাছে প্রতিবাদ করেছিলাম বিনয়ের সাথে কেননা সায়েন্সটিচারগণ প্র্যাকটিক্যালে ফেল করিয়ে দেবার স্পর্ধা দেখায়। বলেছিলাম- এই লোক কি পুরূষ না নারী? পুরো প্রশ্ন পড়ে এই ’লোক’ যে পুরূষ তা বোঝা যায়। স্যার এ প্রশ্নে হে হো করে হেসেছিলেন। যেন অনেকটা বোকার মতো প্রশ্ন আমার। আমিও জানি এ ’লোক’ পুরূষ যেহেতু ’নারী’ শব্দটি স্পষ্ট উল্লেখ করা আছে। কিন্তু পুরূষ’ মানুষ’ হবে আর নারীকে বস্তু বানানো হবে বা নারীকেই শধু লিঙ্গচিহ্ন হিসেবে দেখানো হবে, ভাষার বা শব্দের কৌশল প্রয়োগ করে এ আমি মেনে নিতে পারিনি। স্যারের হাসিতে আমি অপমানবোধ করেছিলাম কিন্তু মৃদু প্রতিবাদ করতে পেরেছি ভেবে আনন্দিত হয়েছি।

অবশ্য এখানে যে, নারী-পুরূষের মানুষ হিসেবে স্বীকৃতি পাবার বিষয়টি আছে তা স্পষ্ট করে স্যারকে বলতে পারিনি, বলেছিলাম ব্যাকরণগত ভুল এর কথা। স্যার এখনো আগের অঙ্কডাকেই শিক্ষার্থীদের অঙ্ক করান কিন্তু আমি এরপর থেকে লিখেছি- একজন বর্ণান্ধ পুরূষ একজন নর্মাল নারীর সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হলো অথবা একজন বর্ণান্ধ নারী একজন নর্মাল পুরূষের সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হলো এক্ষেত্রে তাদের সন্তানেরা কেমন হবে?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

40 − 36 =