আপনারা যারা পুরুষ দিবস চান

আজকাল অনেক নির্যাতক নারীর ক্ষমতায়নকে সহ্য করতে না পেরে নানাভাবে ত্যানা পেঁচিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে, ফেসবুক, ব্লগে পকপক করছে। তারা পালটা দাবী করছে পুরুষরাও বৈষম্যের শিকার হয়, স্ত্রী-শ্বাশুড়ি কর্তৃক নির্যাতনের শিকার হয়, কিন্তু শরমে বলতে পারেনা। আচ্ছা বেশ! আপনারা হাজার বছরের নারী-বিদ্বেষী সংস্কৃতিকে লুকাতে চাইছেন তো। চালিয়ে যান।

আপনারা খুশি থাকুন এটাই আমি চাই। এবার এই খুশিতে তিনটি ডিগবাজি দিয়ে ডানহাতের পাঁচটি আঙ্গুল পুটকিতে প্রবেশ করান। দেখুন তো, আনন্দ বেড়েছে কিনা! আরো সুখানুভূতি পেতে কুঙ্গ থাং-এর একটা লেখাটা পড়ুনঃ

“—পুরুষ দিবস নাই কেন?
—হাটে বাজারে মেলায় পাবলিক বাসে পহেলা বৈশাখে পুরুষ খোঁচাখুঁচির শিকার হয় না, যৌতুকের কারণে পিটুনি খায়া বাপের বাড়ি যায় না, রাস্তাঘাটে কর্মক্ষেত্রে যৌন নিগ্রহের শিকার হয় না, ওড়না বুকে না দিয়া গলায় দিলে অশ্লীল বাক্যবানের টার্গেট হয় না, একা থাকলে পুরুষের উপর কেউ হামলে পড়ে না, ফেসবুকের পুরুষ আইডির পোস্টে ‘হাই সেক্সি’ ‘ভাইয়া আপনার সাইজ তো মাশাল্লা’ ‘একবার কি সুযোগ হবে’ ইত্যাদি বলে ঝাঁপায়া পড়ে না ৷

যেইদিন উপরোক্ত ঘটনাগুলি ঘটবে সেইদিন এসে আওয়াজ দিয়েন, পুরুষ দিবস চালু কইরা দিমুয়ানে ৷ এলা ডাইনে চাপেন, বামে পেলাস্টিক ৷”

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

40 − 38 =