মূল্যবোধ এবং ধর্ষকামী জাতীয়তাবাদ

?oh=1a366fca8302bc8e47cc174bbb1eb897&oe=5958C221″ width=”500″ />
অনেকের ধর্ষকামী যৌনাকাঙ্ক্ষা আর উগ্রজাতীয়তাবাদ নিয়ে গত দুইদিন ধরে টাইমলাইন জুড়ে ঘোরাফেরা করছে একজন অপরাধী কিশোরী।

অপরাধ, সে আমাদের জাতীয়বীর দের প্রতিকৃতি তে পা রেখে হাসিমুখে একটা ছবি তুলেছে, যদিও এটা ইচ্ছেকৃত অবমাননা কিনা তেমন কোনো তথ্যসূত্র এখন পর্যন্ত আমার চোখে পরেনি, এবং তার এই মূল্যবোধ হীনতার জন্য অনেকে তার ধর্ষণ হওয়া জায়েজ বলে ঘোষণা করেছেন ইতিমধ্যে।

(অফটপিক এই যে আগামীকাল তনু হত্যা-ধর্ষণ এর পহেলা বর্ষপূর্তি এবং ধর্ষকামী লোক গুলোও নানান প্রতিবাদী স্ট্যাটাসে উৎযাপন করবে তনুর প্রথম প্রয়াণ দিবস)
মজার বিষয় হচ্ছে যে সকল লোক এই ছবির সাথে তাদের মন ভর্তি তেজস্ক্রিয়তা ছড়াচ্ছে তাদের অধিকাংশ জানেই না এই দেওয়াল টা কোথায়! যদিও বীর দের সম্মান প্রদর্শন করতে সেটা জানা মোটেও জরুরী নয়, এবং বাজী ধরে বলতে পারি ছবির দুপাশ থেকে রাইফেল গুলো মুছে শুধু নাম আর ছবি দেখালে তাদের ৮০% এর অধিক লোকই কনফিউজড হয়ে যাবে এনাদের পরিচয় নিয়ে, এনারা কোন আন্দোলন এর বীর, শহীদ না গাজী এগুলো জিজ্ঞেস করলে তারা আমতা আমতা দুই এর নামতা ছাড়া অন্য কিছু বলতে পারবে বলে মনে হয় না।(ব্যক্তিগত আমি নিজে খুব জানি তেমন টাও নয়)।

এই জন্যই তো রাইফেল দুটি দেওয়া, বুঝতে যাতে সুবিধে হয় এনারা আমাদের স্বশস্ত্র বীর আর আমরা স্বশস্ত্র যুদ্ধে গিয়েছিলাম তো ঐ একবারই।

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে ৭১ এ, ছবির লোক গুলো শহীদ না গাজী সেটাও মূল বিষয় নয়, তারা আমাদের হয়ে অস্ত্র ধরেছিলেন এটাই আমাদের পক্ষ থেকে তাদের প্রতি সর্বচ্চ সম্মান প্রদর্শন এর কারন হিসেবে যথেষ্ট।
তবে এই সম্মানের মূল্যবোধ টা যে নিজের মধ্যে থেকে সবার মাঝে জন্ম নেবে এমন টা ধারনা করাটাও নিছক ছেলেমানুষি।
তাকে মূল্যবোধ শিক্ষা দেওয়ার দায়িত্ব এ সমাজের, তার পরিবারের, আমাদের শিক্ষাব্যবস্থার, আমাদের রাষ্ট্রের।
ধরে নিলাম এই মেয়েটির সম্পূর্ণ পরিবার নরপশু দের দল জামাত পন্থী, পাকিস্তানী পেৎ তারা।
আমাদের সমাজ, শিক্ষা, রাষ্ট্র তাকে মূল্যবোধ শিক্ষা দিতে কি কি অগ্রগামী ভূমিকা পালন করেছে বলে আপনাদের মনে পড়ে?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২ thoughts on “মূল্যবোধ এবং ধর্ষকামী জাতীয়তাবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 38 = 48