মঙ্গল শোভাযাত্রা ইসলামে হারাম !

***** পাঠ্যবই থেকে অমুসলিম কিন্তু বাঙালি সাহিত্যিকদের সরিয়ে দেয়াটা ছিল প্রাইমারি স্টেপ এবং একটি পরিকল্পিত লিটমাস টেষ্ট । কারন, মুসলমান অন্য ধর্মের কাউকে/কোনকিছুকে সহ্য করেছে বা করতে পেরেছে তার প্রমান নাই ।

***** বাংলাদেশটার সৃষ্টিই হয়েছে “অসাম্প্রদায়িক ও ধর্মনিরপেক্ষতা” নামক দুই ধাপ্পাবাজির উপর ভিত্তি করে । নয়তো যে পরিমান হিন্দু জনগোষ্ঠি ১৯৭১ এ দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নিজ দেশে চলে এসেছিল সেই তাদেরই একটা বড় অংশকে ইসলামি জোশে পিটিয়ে গায়ের জোরে দেশছাড়া করা হয়েছে । এবং এখনো এই ধারাটা চলছে ।

***** ভারতে এক বাবরি মসজিদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে পরিমান হেনস্তা করা হয়েছে বাংলাদেশের হিন্দুদের তা নিশ্চয় কারো অজানা নয় । এমনকি ২০১৩ তে গনজাগরন মঞ্চের কারনে সাঈদী হুজুরের রায় দেয়ার পর যে কত হিন্দুর উপর দিয়ে ঝড় গেছে তাও নিশ্চয় কারো অজানা নয় । যদিও গনজাগরন মঞ্চের ষন্ডারা এবং যারা মন্দিরে হিন্দুর বাড়ি ঘরে হামলা লুটপাট চালিয়েছে তারা সেদিনও মুসলিম ছিল আজও মুসলিমই আছে । মাঝখানে পুড়ে ছাই হল কেবল মালাউনের মন্দির !!

****** মুসলমানের বউ ঝি রা ফেসবুকেতে কি না করে ?? বুক পিঠ দেখানো থেকে শুরু করে আরো বহু কিছু । যদিও মোসাম্মত নায়লা নাইমের মতন পারভার্টেদের ব্যপারে অদ্য পর্যন্ত কোন ইসলামের সৈনিকদের আপত্তি না থাকলেও আপত্তি কেবল মালাউনের মন্দিরের প্রতিমা আর গ্রিক দেবীর ভাস্কর্যের উপর , ভাঙতেই হবে সরাতেই হবে !! ইসলামের , মুসলমানের ইমানে নাকি আঘাত লাগে !! হয়তো নায়লা নাইমের মতন অন্য আরো মুসলমানের বউ ঝি যা করছে তা বোধকরি ইসলাম ও শরীয়ত সম্মত !!

***** পহেলা বৈশাখ কিংবা মঙ্গল শোভাযাত্রা একান্তই বাঙালির বাঙালি সংস্কৃতির অংশ । এইসব কখনোই ইসলামের অংশ না । মুসলমানের উচিতও না এইসব অনুষ্ঠানে নিজেদের জড়ানো কারন, তাতে ইসলামের অসম্মান হয় । পহেলা বৈশাখ এবং মঙ্গল শোভাযাত্রা ইসলামে হারাম !! মুসলিমদের জন্য হারাম !! এর চাইতে ভালো হয় মুসলিমরা আত্মঘাতি বোমা হামলা নিয়েই ব্যস্ত থাকুক যা ইসলাম সম্মত এবং হালাল !!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 7 = 3