পাদুকা সংগীত

কক্সবাজার বেড়াতে গিয়ে দেখলাম বিচে হাঁটার জন্য আমার স্যান্ডেল জোড়া খুব একটা উপযুক্ত না। পাশের মার্কেট থেকে এক জোড়া রাবারের স্যান্ডেল কিনলাম। খুব পছন্দ হলো জিনিসটা। দেখতে হুবহু চামড়ার স্যান্ডেলের মত। স্যান্ডেলের ব্যাপারে ভেজিটেরিয়ান হয়ে গেলাম। রাবারতো উদ্ভিদজাত বস্তু। চামড়া যেহেতু প্রানীজ তাই এই ক্ষেত্রে চামড়ার স্যান্ডেলকে নন-ভেজই বলা চলে। কথা বেশি হয়ে যাচ্ছে। শিরোনামে সংগীত দিলাম কিন্তু এতক্ষণেও তার কোন সংকেত নেই। ভেজ, নন-ভেজ কত কিছু বলে যাচ্ছি। এই রাবারের স্যান্ডেল জোড়া এই বৃষ্টির দিনে বেশ কাজে আসছে। সহজেই পরিষ্কার করা যাচ্ছে আবার দেখতে চামড়ার স্যান্ডেলের মত বলে কিছুটা ভাবও বজায় থাকছে। আজ প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ হাঁটলাম। আমি হন্টন প্রেমিক না। রাস্তায় হাঁটার মধ্যে আমি তেমন বিশেষ কোন আনন্দও পাইনা। রাতে বাসায় ফেরার সময়ও বেশ ভালোই বৃষ্টি হচ্ছিলো। আমি বেশ তাড়াতাড়িই হেঁটে আসছিলাম। আমি এমনিতেই বেশ দ্রুত হাঁটি। হঠাৎ খেয়াল করলাম হাঁটার সময় স্যান্ডেলের মধ্য থেকে বেশ মোহনীয় একটা আওয়াজ আসছিলো। স্পঞ্জ, রাবার, চামড়ার স্যান্ডেল থেকে এইরকম আওয়াজ আসেই। কিন্তু আজকে কেন যেন স্যান্ডেলের এই আওয়াজটা সংগীতের মত লাগলো। আমি মনে মনে নামও ঠিক করে ফেললাম, পাদুকা সংগীত।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “পাদুকা সংগীত

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

46 + = 54