ইসলাম হলো মূলত: মুহাম্মদের দাসত্ব: প্রতিটা মুমিন মুহাম্মদের দাস মাত্র

আপনি যদি খৃৃস্টান ধর্ম দেখেন , দেখবেন বাইবেলে কোথাও বলে নি যীশু যে তার জীবন পদ্ধতি তার অনুসারীদের অনুসরন করতে হবে। যদি হিন্দু বা বৌদ্ধ ধর্মে যান তাহলে দেখবেন তাদের কৃষ্ণ বা অন্য কোন ধর্ম গুরু ও গৌতম বুদ্ধ কখনও বলে নি যে তাদের জীবন পদ্ধতি তাদের অনুসারীদেরকে অনুসরন করতে হবে। কিন্তু ইসলামে সম্পূর্ন বিপরীত। ইসলামে কিন্তু পরিস্কার নির্দেশ , প্রতিটা ইমানদার মুসলমানকে মুহাম্মদের জীবন পদ্ধতি অনুসরন ও অনুকরন করতে হবে।

আপনি যদি খৃৃস্টান ধর্ম দেখেন , দেখবেন বাইবেলে কোথাও বলে নি যীশু যে তার জীবন পদ্ধতি তার অনুসারীদের অনুসরন করতে হবে। যদি হিন্দু বা বৌদ্ধ ধর্মে যান তাহলে দেখবেন তাদের কৃষ্ণ বা অন্য কোন ধর্ম গুরু ও গৌতম বুদ্ধ কখনও বলে নি যে তাদের জীবন পদ্ধতি তাদের অনুসারীদেরকে অনুসরন করতে হবে। কিন্তু ইসলামে সম্পূর্ন বিপরীত। ইসলামে কিন্তু পরিস্কার নির্দেশ , প্রতিটা ইমানদার মুসলমানকে মুহাম্মদের জীবন পদ্ধতি অনুসরন ও অনুকরন করতে হবে।

মুহাম্মদ কিভাবে ঘুমাত , কিভাবে দাত মাজত , কিভাবে হাগত , কিভাবে মুতত , কিভাবে যৌনকাজ করত , কিভাবে বিয়ে করত , কাদেরকে বিয়ে করত , কয়টা বিয়ে করেছিল , কিভাবে সে স্ত্রীদের সাথে আচরন করত , কিভাবে নামাজ রোজা কোরবানী করত , কি পোশাক পরত, কিভাবে খাবার খেত , পানি পান করত , কিভাবে তাকে অবিশ্বাসকারীকে হত্যা করত , কিভাবে অমুসলিমদেরকে ঘৃনা করত , তাদেরকে কিভাবে ইসলাম গ্রহন না করে যুদ্ধ ঘোষনা করে কতল করত ইত্যাদি প্রতিটা বিষয়ে যে লোক মুহাম্মদকে হুবহু অনুসরন ও অনুকরন করতে পারবে সেই হবে খাটি ইমানদার মুসলমান।

তার অর্থ হলো , একজন খাটি ইমানদার মুসলমান হলে তার আর কোন ব্যাক্তি স্বাধীনতা , স্বাতন্ত্র এসব থাকবে না , তার চিন্তা ভাবনা করার কোন স্বাধীনতা থাকবে না, সে হয়ে যাবে মনের অজান্তেই মুহাম্মদের দাস।

পক্ষান্তরে হিন্দুরা কিন্তু কৃষ্ণের বা খৃষ্টানরা যীশুর বা বৌদ্ধরা বুদ্ধের দাসে পরিনত হয় না। এখানেই হলো মুসলমান ও অমুসলমানদের মধ্যে তফাৎ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

১ thought on “ইসলাম হলো মূলত: মুহাম্মদের দাসত্ব: প্রতিটা মুমিন মুহাম্মদের দাস মাত্র

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 79 = 85