আমার প্রিয় কমরেডগন, আপনাদের ধন্যবাদ

কালপুরুষ আর আসল পুরুষ নিয়ে তোলপাড় গত দুইদিন। ইস্টিশনে যেহেতু নিয়মিত লেখি তাই এইখানে পোস্ট দিয়ে কালপুরুষ প্রথমেই আমার দিকে সন্দেহের তীর ঘুরিয়ে দিলেন। প্রথমে যে দুটো ছবি দিয়েছে কোনটা যে প্রথম আর কোনটা দ্বিতীয় সেটা বোঝা যায় না। তারপরেও যেহেতু টার্গেট আমি, তাই কালপুরুষ প্রথমেই আমার ছবিটা দিয়েছেন। আসুন দেখা যাক-

তারপরের ছবিটা হচ্ছে-

কোনটা প্রথম আর কোনটা দ্বিতীয় তা বুঝার উপায় কি আছে? খুব সুন্দর রিভার্স গেম খেললেন এখানে কালপুরুষ মুখোশের আড়ালে লুকানো আমার প্রিয় এক কমরেড।

আসি এইবার চার লাইকের ঘটনা’তে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ৪ জন ব্যাক্তি আছেন।
১। মহামান্য
২। তাপস সরকার
৩। এক আবীর
৪। বেলের কাঁটা

আবার নীচের দিকেও রাসেল রহমানের ছবিতে ৪টা লাইক আছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে লাইক দিয়েছেন
১। মহামান্য
২। তাপস সরকার
৩। এক আবীর
৪। বেলের কাঁটা

" width="400" />” width=”400″ />

এবার দেখা যাক এই আসল পুরুষ নামে লুকিয়ে থাকা আমার মামু এবং কমরেডের যুক্তি-

৪. বেলের কাটা-ব্লগ পোষ্ট এ দেওয়া গ্রুপের মেম্বারদেরস্ক্রিনশট এ প্রথম তিনজনের ভেতর ‘বেলের কাঁটা’ নিক টি দেখা যায় না। সেক্ষেত্রেতাকে সরাসরি অব্যাহতি দেওয়া যায়।কেন দেওয়া যায় অব্যাহতি সেটা জানতে পোষ্ট আবারশুরু থেকে পড়েন।

৩.এক আবীর-ব্লগ পোষ্ট এ দেওয়া গ্রুপের মেম্বারদের স্ক্রিনশট এপ্রথম তিনজনের ভেতর ‘এক আবীর’ নিক টিও দেখা যায় না। সেক্ষেত্রে তাকেও সরাসরিঅব্যাহতি দেওয়া যায়।কেন দেওয়া যায় অব্যাহতি সেটা জানতে পোষ্ট আবার শুরু থেকে পড়েন।

২.তাপস সরকারঃব্লগ পোষ্ট এ দেওয়া গ্রুপের মেম্বারদের স্ক্রিনশটএ প্রথম তিনজনের ভেতর ‘তাপস সরকার’ নিক টিও দেখা যায় না। সেক্ষেত্রে তাকেও সরাসরিঅব্যাহতি দেওয়া যায়।কেন দেওয়া যায় অব্যাহতি সেটা জানতে পোষ্ট আবার শুরু থেকেপড়েন।আর যেই ব্যাক্তি পোষ্ট দিয়েছে পোন্দানোর জন্যে সেই ব্যাক্তি লিক করার প্রশ্নতোলাই বোকামি।

বাকি আছে একজন,

১.মহামান্য কহেনঃ ‘এই ব্যাক্তি’র নাম ব্লগ পোষ্ট এ দেওয়াগ্রুপের মেম্বারদের স্ক্রিনশট এ প্রথম তিনজনের ভেতর ই আছে,এবং সেই পোষ্টে তারএকটিভিটিও আছে সেই পোষ্টে(একমাত্র পোষ্ট যেখানে স্পাই বাবার একটিভিটি আছে)। সাথেতার লাইক ও আছে সেই কমেন্ট এ যেই কমেন্ট টিতে ব্লগ পোষ্ট এর ক্রিনশট নেওয়াব্যাক্তিটির ও লাইক আছে।সো, কে এই ব্যাক্তি(স্পাই) তা ধারনা নিশ্চয়ই এখন সবাই করেফেলেছেন।

এখানেই শেষ নয়,

>>উনার ব্লগ পোষ্টে দেওয়া স্ক্রিনশটের মেম্বার লিস্টেদেখা যায় অনেকের সাথেই উনার এড আছে ফেসবুকে। তো উনার যাদের সাথে এড নেই তাদেরনামের পাশে ‘add as friend’ লেখা আছে। তো, ‘add as friend’ লেখা কয়েকজনেরসাথেই যোগাযোগ করলে দেখা যায় তাদের কারো সাথেই ‘মহামান্য কহেন’ এর ফেসবুকেএড নেই কিন্তু রাসেল রহমান,তাপস সরকার,বেলের কাঁটা, রতন মজুমদার এবং এক আবীরনিকগুলোর এর সাথে এড এ আছেন ভেংচি

যাতে সন্দেহের তীর তাদের দিকে যাতে কোনভাবেই বাকি তিনজনের দিকে না যায় তাই কালপুরুষ নামের সেই আসল পুরুষই তাদের সফেদ প্রমানের জন্য কয়েকটি স্ক্রীনশট দিয়েছেন।

কালপুরুষের প্রমানের দায় ছিল এটা এক আবীর না-


কালপুরুষের প্রমানের দায় ছিল এটা তাপস সরকার এবং বেলের কাঁটাও না।-

তাহলে এটা হলো কিভাবে? হিসাব খুব সিম্পল, গ্রুপে আপনার দুইটা আইডি থেকে এই স্ক্রীন শট নিতে। যেই আইডি থেকে লাইক দিয়েছেন সেখান থেকে নিতে হবে এবং আরেকটা আইডি থেকে নিতে হবে যেখান থেকে আপনি কোন লাইক দেন নাই। তাহলেই পারবেন নিজেকে সেভ করতে এবং আরেকজনকে ফাসিয়ে দিতে।

ডিয়ার কমরেডস,

অনলাইন থেকে আমি ব্যাক্তিগতভাবে চিনি অনেক মানুষকে। তাদের মধ্যে একটা মানুষ বলতে পারবেন না আমি কোনদিন অসদাচরন করেছি, কথা দিয়ে কথা রাখি নাই কিংবা কারো ব্যাক্তিগত তথ্য ফাঁস করেছি। বেঁচে থাকতে কোনদিনই করবো না, আপনারা আমার সাথে যত বড় বেঈমানি করেন না কেন, পেছন থেকে যতই ছুরি মারেন না কেন।

আপনাদের বিপদে আপদে কেউ বলতে পারবেন না আমাকে পাশে পান নাই, শুধু মাত্র ফোনের অপেক্ষায় থাকতাম সব সময়ে। আজ আপনাদের ভালো সময়, সামান্য কিছু বিষয়ে অনৈক্য আর এমনকি আমাকেও না, আরেকজন মানুষকে জব্দ করার জন্য আমার উপর দিয়ে এই নোংরা খেলাটা খেললেন। দিন সমান যায় না প্রিয় কমরেড, আমি জানি আবারো আমি আসবো ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে আপনাদের দুঃসময়ে। অবশ্যই অনলাইনে না, ব্যাক্তিগত জীবনে। সামনেই কঠিন সময়, কথাটা মনে রাখবেন। আপনারা আমার সাথে যে কাজটা করেছেন তার প্রতিদান আমি আপনাদের পাশে দাঁড়িয়েই দিবো।

পোস্ট দেখার পরের ২৪টা ঘন্টা আমি রীতিমতন হতবিহবল এবং স্তম্ভিত ছিলাম। সবকিছু বুঝে উঠে খুব ক্লান্ত শ্রান্ত লাগছিল। যাদের আপনি ভালোবাসেন পছন্দ করেন, তারা পিঠে ছুরি মারলে যে কি যন্ত্রনা হয় সে খুব ভালোভাবেই বুঝলাম। ধন্যবাদ আমার মামু কমরেডগন, অসাধারন এক অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে গেলাম।

দেশ ছাড়ছি কিছুদিনের মধ্যেই, জীবন আর জীবিকার দায়ে অনলাইনে আর সেভাবে থাকা হবে না। আপনারা আপনাদের সাম্রাজ্য রক্ষা করতে থাকুন, কেউ অনলাইনে বঙ্গবন্ধু হউন, কেউ বা তাজউদ্দিন কিংবা কেউ বা সৈয়দ নজরুল। শুভ কামনা থাকল সবার প্রতি। বেঁচে থাকলে দেখা হবে, বরাবরের মতই সেদিনও হেঁসেই জিজ্ঞেস করবো- কেমন আছেন মামা?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

২৪ thoughts on “আমার প্রিয় কমরেডগন, আপনাদের ধন্যবাদ

  1. অনলাইনের নোংরামি ইদানীং
    অনলাইনের নোংরামি ইদানীং মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। মেনে নেয়া যায় না, এমন সব কিছু ঘটোছে ক্রমাগত। সব দেখে মনে হচ্ছে বিরাট প্ল্যান। এসব দেখেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে অনলাইন থেকে দ্রুত ইনএক্টিভ হয়ে যাবার। ফ্রেন্ড লিস্ট থেকে আত্মীয় স্বজন বাদে বাকি সবাইকে রিমুভ করা শুরু করছি। দেশ ছেড়ে চলে যেতে পারলেই ভালো। এসব আর ভালো লাগে না।

    ইস্টিশন মাস্টারকে বলছি, গালিবাজি নিয়ন্ত্রণ করুন। কেউ যেন গালি না দেয় কোথাও। সুস্থ ব্লগিং করলে করবে না করলে সোজা ব্যানের অনুরোধ রইলো।

  2. কদিন ধরে সত্যিই অসহ্য মনে
    কদিন ধরে সত্যিই অসহ্য মনে হচ্ছে। ভার্চুয়াল জগতটা এত নোংরা হয়ে যাবে কখনও কল্পনাও করি নি…

    আর ফেসবুকের ছবিগুলো দেখা যাচ্ছে না। এটা ঠিক করবেন আশা করি…

  3. আমি খুবই হতাশ। কিছু বলার মতো
    আমি খুবই হতাশ। কিছু বলার মতো ভাষাও নাই। আপনার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে কিছু বলার নাই। আপনার জায়গায় আমি হলে হয়ত আমিও ঠিক একই কাজ করতাম।
    তবে কালপুরুষ আর আসল পুরুষ একই ব্যক্তি এই বিষয়ে আমারও সন্দেহ হয়। বিরাট একটা উদ্দেশ্য নিয়েই কাজটা করা হয়েছে। নোংরামি দিয়ে নোংরামি পরিষ্কার করা যায় না, এটা এরা কখনই বুঝবে না। অনলাইনেও মাফিয়াগিরি শুরু হয়ে গেছে।
    আনিস ভাইয়ের সাথে একমত, ইস্টিশনে গালাগালি কঠোর ভাবে দমন করা হোক। একবার এই কালচার শুরু হয়ে গেলে ঠেকানো মুশকিল হবে।

    থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে, মডেম খুলে নিলে যেই সাম্রাজ্যের কোন অস্তিত্বই থাকে না।

    1. থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে,

      থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে, মডেম খুলে নিলে যেই সাম্রাজ্যের কোন অস্তিত্বই থাকে না

      ওরে আতিক ভাই কি কইলেন এইটা !! মধু ! :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল:

  4. থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে,

    থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে, মডেম খুলে নিলে যেই সাম্রাজ্যের কোন অস্তিত্বই থাকে না।

    জব্বর বলেছেন। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  5. আপনার কথায় বিশেষ যুক্তি ও
    আপনার কথায় বিশেষ যুক্তি ও সত্যবাদিতা রয়েছে ।আমি মনে করি কাল পুরুষ,আসল পুরুষ বা আমিই হইনা কেন এ নিয়ে আর টানাটানি করার দরকার নেই ।যুদ্ধে যখন নেমে গেছি তখন প্রকাশ্য বা অপ্রকাশ্য বলে কোন বিষয় নেই ।প্রয়োজনে দিগন্তটিভিতে ছাগু পোন্দানির বিজ্ঞাপন দিয়ে পোন্দাইবো তাতে কি আসে যায়?সে যাই হোক, আপনার এই কথা গুলো আরো আগে বলা উচিৎ ছিল ।ভাল থেক ।

  6. আগে ভয় ছিল ছাগুরা পিঠে ছুরি
    আগে ভয় ছিল ছাগুরা পিঠে ছুরি বসাতে পারে। এখন তো স্বাধীনতার স্বপক্ষ শক্তির ভেগ ধরা দু মুখো শাপরাও কম যাচ্ছে না। ব্যাক্তি স্বার্থ হাসিল করতে গিয়ে বিকৃত খেলায় মেতেছে এরা।
    মহামান্যর সুরেই বললাম, মামুরা সামনে কঠিন সময়

  7. অবাক হওয়ার কিছু নেই।তাই অবাক
    অবাক হওয়ার কিছু নেই।তাই অবাক হলাম না।প্রতিটা যুদ্ধেই যোদ্ধাদের মাঝে লুকাইত সাপ ছিল অতীতেও।আমাদের বেলায়ও বেতিক্রম নয়।

  8. আমার কাছে প্রতীয়মান হচ্ছে,
    আমার কাছে প্রতীয়মান হচ্ছে, কাল পুরুষ বলেন আর আসল পুরুষই বলেন এরা দেশে চলমান কোন না কোন রাজনৈতিক দল বা অঙ্গ সংগঠনের সক্রিয় সদস্য ! এজন্যই তাদের ভিতর দলাদলি (গ্রুপিং) এর প্রভাব বিদ্যমান! দেশের চলমান ডানপন্থি রাজনৈতিক দলের মধ্যের খেলা এখানে শুরু হয়ে গেছে! এরা প্রতিটি স্থানেই নিজেদের নেতৃত্ব কায়েম করতে সিদ্ধ হস্ত!

    আমার অনুরোধ শালীন ভাষা ব্যবহার করে ব্লগিং করতে পারলে এখানে থাকুন নইলে নিজেরা ব্লগ তৈরী করে যা ইচ্ছা তাই করুন। নেতৃত্ব দখলের নোংরামী ব্লগে প্রবেশ করানোর অপচেষ্টা পরিহার করুন।

    ইস্টিশন মাষ্টারের নিকট আমার আবারও অনুরোধ, অনুগ্রহ পূর্বক নোংরা রাজনীতি খেলার মাধ্যম হিসেবে ইস্টিশনকে ব্যবহার বন্ধ করার পদক্ষেপ হিসেবে এসব দলাদলি-রেশারেশির পোস্ট ব্যান করে সুশিল এবং সুস্থ্য ধারার চর্চা বজায় রাখবেন। অন্যথায় ব্লগ ছাড়ার বিকল্প হিসেবে আমাদের কাছে আর কিছু থাকবে না….

  9. আমার ধারনা ছিল এরকম কিছুই
    আমার ধারনা ছিল এরকম কিছুই ঘটেছে। সন্দেহমুক্ত হ​য়ে নিলাম। ঘরের শত্রু বিভীষন হ​য়ে কেউ আমাদের সবার মাঝে একতায় ভাঙ্গন ধরানোর চেষ্টা করছে তাতে আমি নিষ্চিত​। তার একজন শিকার হলেন মহামান্য। আমার ধারনা, আরোও আসছে।সবাই তৈরি থাকুন-এরপর পর ই কিছু হলে সরাসরি কোন পদক্ষেপ না নিয়ে বিচার বিবেচনা করে সবার সাথে পারসোনালি আলাপ করে যা করার করবেন। কারন যে সহকর্মী কে আপনি ভুল বুজছেন, এমন ও হতে পারে কোন ছাগু আমাদের মাঝে ঢুকে তাকে নিয়ে স্ক্যান্ডাল ছ​ড়ানোর ট্রাই করছে।

  10. চুতিয়ারা কখনো অনলাইনে শান্তি
    চুতিয়ারা কখনো অনলাইনে শান্তি পাইবনা, সাম্রাজ্য দূরের কথা।
    এর আগে আসিফে একঘরে হয়ে পরছিল না আবার কিছুদিন আগে আইজুও ল্যাঠা চুকে অনলাইন থেকে বের হইতে বাধ্য হইছে।এইবার আবার হইব।
    জয় বাংলা,! জয় মানুষ !জয় মানবতা !

  11. বন্ধু দূরে থাকলে সমস্যা নাই ,
    বন্ধু দূরে থাকলে সমস্যা নাই , শত্রু থাকা দরকার চোখের সামনে ।
    সমস্যা হয়া গেছে কোনটা বন্ধু আর কোনটা শত্রু এটা বুঝতে বুঝতেই সময় শেষ …

    সুস্থ ব্লগিং চলুক । 🙁

  12. স্বার্থের জন্য নিজেদের ঘরের
    স্বার্থের জন্য নিজেদের ঘরের মানুষকে বলির পাঁঠা বানাতে যারা একটুও ভাবেনা, তারা সবার জন্যই ভয়ঙ্কর। মহামান্যের দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক আদর্শ ও ফেসবুক এক্টিভিজম দেখে আমি বিন্দুমাত্র কালপুরুষ আর আসল পুরুষের ঐ পোস্টের বক্তব্য বিশ্বাস করি নাই। দুইটা নিকই একজনের। এদের উদ্দেশ্য ছিল সিপি গ্যাং-কে বিতর্কিত করে লাইম লাইটে আনা এবং এ-টিমের বিকল্প হিসাবে সিপি গ্যাং নামের গালিবাজ গ্রুপকে দাঁড় করানো। পাশাপাশি ইস্টিশনের প্লাটফরম ব্যবহার করে ইস্টিশনকে বিতর্কিত করা। মাঝখানে বলির পাঁঠা হল মহামান্য। আশাকরি মহামান্য কারা আপন আর কারা শত্রু সেটা বুঝতে পেরেছেন।

    আমি মহামান্যকে বলব, অনলাইন ছেড়ে দিয়ে নয়, অনলাইনে একটিভ থেকে চক্রান্তকারীদের চক্রান্ত রুখতে হবে। ভবিষ্যতে আপনার মত অনলাইন এক্টিভিস্টের প্রয়োজন আছে। একই কথা আমি ডাক্তার আইজুকেও বলব। আপনি অনলাইনে আগের মত ফিরে আসুন। নিন্দুকেরা কি বলল সেটা মনে করে অভিমান করে লাভ কি? ১০০ জন গালিবাজ এক্টিভিস্ট থেকে ১ জন সৃস্টিশীল এক্টিভিস্টের অনলাইন ভ্যালু অনেক বেশী। আর এসব গালিবাজদের ইস্টিশনে ভবিষ্যতে সুযোগ না দেওয়ার জন্য ইস্টিশন মাস্টারের দৃষ্টি আকর্ষন করলাম।

  13. এই কাদা ছোঁড়াছুড়ির অবসান
    এই কাদা ছোঁড়াছুড়ির অবসান কোথায় কে জানে… কিছু লেখাই বিপদজনক…… এক দলের ভাল লাগে তো অন্ন দল তেড়ে আসে। এর থেকে মডেল আরিফ খান হওয়া অনেক নিরাপদ…

    1. এর থেকে মডেল আরিফ খান হওয়া

      এর থেকে মডেল আরিফ খান হওয়া অনেক নিরাপদ…

      দারুন একটা কথা বলেছেন। :থাম্বসআপ:

  14. কাজটা কার সেটা বের করাটা
    কাজটা কার সেটা বের করাটা আসলেই জরুরী। সে যত বড় ফেসবুকার বা ব্লগারই হোন না কেন সে প্রতিপক্ষ।

    1. সত্য গোপন থাকবে না, যেদিন
      সত্য গোপন থাকবে না, যেদিন জানতে পারবো- সে যেই হউক নরক পর্যন্ত ধাওয়া করবো। :তুইরাজাকার:

  15. থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে,

    থাকুক ওরা সাম্রাজ্য নিয়ে, মডেম খুলে নিলে যেই সাম্রাজ্যের কোন অস্তিত্বই থাকে না।


    চরম দিছেন আতিক সাহেব ।

    ================================================================

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

55 − 51 =