ধার্মিক বনাম মানুষ

কোন পুরুষ সুন্দর উদ্যানে একা একা ঘুরে ফিরছিল। এত আরাম-আয়েশ কিছুই ভালো লাগছিল না তার। তাই আমার জন্ম হল তার মনোরজ্ঞনের জন্য। আমি রমণী- শুধুই রমণের যোগ্য। যদি বলি আমার স্রষ্টা এত কঠোর হতে পারে না, তিনি নিরাকার হয়ে পুরুষের পক্ষপাত মোটেই করতে পারেন না। আমার জন্মকে এত ঠুনকো আর ছেলেখেলার যোগ্য হতে আমি দেবো না।

যে জীবন দোয়েলের ফড়িং-এর
মানুষের সাথে তার হয়নাকো দেখা ।।

১. কোন অচিন পুরুষের পাঁজড়ের হাড্ডি থেকে আমার সৃষ্টি- আমি যদি বলি এ কথা আমি কখনও মানবো না? আমার জন্ম আমার বাবা-মায়ের রক্ত বিন্দুতে, তাদের ভালোবাসায়। আমার চিন্তা, আমার দৃষ্টিভঙ্গি, আমার স্বত্ত্বার সাথে মিলেমিশে আছে আমার পরিবারের ইতিহাস। উড়ে এসে জুড়ে বসতে আমি আর কাউকেই দেবো না।

এরকম বললে খুব বেশি কি ঔদত্ব্য দেখানো হবে?

২. কোন পুরুষ সুন্দর উদ্যানে একা একা ঘুরে ফিরছিল। এত আরাম-আয়েশ কিছুই ভালো লাগছিল না তার। তাই আমার জন্ম হল তার মনোরজ্ঞনের জন্য। আমি রমণী- শুধুই রমণের যোগ্য। যদি বলি আমার স্রষ্টা এত কঠোর হতে পারে না, তিনি নিরাকার হয়ে পুরুষের পক্ষপাত মোটেই করতে পারেন না। আমার জন্মকে এত ঠুনকো আর ছেলেখেলার যোগ্য হতে আমি দেবো না।

খুব কি ঈশ্বরবিরোধী হয়ে গেল আমার কথা?

৩. আমি নারী, তাই আমি কখনও বাবার আর কখনও স্বামীর সম্পত্তি। স্বত্বত্যাগ করে সম্প্রদান হয় আমার। অন্য পুরুষের লোভের বস্তু আমি, তাই লক্ষণরেখা টানো আমার চারপাশে, আবৃত কর আমাকে। এখানেই ক্ষ্যান্ত নেই। তুমি সন্দেহের আঙ্গুল তুললে আমি সীতা বা আয়েশা হয়ে সতীত্বের অগ্নিপরীক্ষা দেব। আবার যখন তুমি অনোন্যপায়, তখন আমি দশভূজা, আমার কাছে তোমার স্বর্গ।

যদি বলি তোমার সংযমের বাঁধ ভাঙলে তোমাকেই তার দায়িত্ব নিতে হবে? তোমার মনে সন্দেহ দানা বাঁধলে, আমি কোন পরীক্ষা আর দেবো না। তোমার পোষালে থাকো, নইলে বিদায় বন্ধু।
খুব কি ক্ষ্যাপাটে শোনালো আমাকে?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

64 − = 62