প্রাসঙ্গিক লেনিন


ভ্লাদিমির ইলিচ উলিয়ানভ লেনিন ১৮৭০ সালে ২২শে এপ্রিল জার শাসিত রাশিয়ার সিমবির্স্ক শহরে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পারিবারিক নাম ছিল ভ্লাদিমির ইলিচ উলিয়ানভ। ভল্গা নদীর তীরবর্তী সিমবির্স্ক নামক ছোট শহরটি রাজধানী সেন্ট পিটার্সবার্গ থেকে ১,৫০০ মাইল দুরত্বে অবস্থিত ছিল।

ইউরোপ যখন কমিউনিজমের ভূতে আকৃষ্ট ঠিক এমন একটি সময়েই লেনিন জন্ম গ্রহণ করেন।লেনিনের জন্ম এমন একটি সময়ে যখন সারা বিশ্বব্যাপী মহান কমরেড মার্ক্স-এঙ্গেলস এর মতবাদ মার্ক্সবাদ ছড়িয়ে পড়েছিল।সারা বিশ্বের নিপীড়িত শ্রেনীর মুক্তির দিশারী লেনিন তার জন্মকে সার্থক করে তুলেছেন শ্রমিক শ্রেনীর প্রথম সুসংগঠিত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে।

লেনিন সারা পৃথিবীর নিপীড়িত শ্রেনীর নেতা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন এবং আজো তিনি তার কর্মের দ্বারা অনেক বেশি প্রাসঙ্গিক। ১৮৯০ এর দশকে তরুন লেনিন সমাজতন্ত্রে দিক্ষিত হন।কমরেড মার্ক্স ও এঙ্গেলস এর মৃত্যু পরবর্তীতে দ্বিতীয় আন্তর্জাতিকের সমস্ত নেতা মার্ক্সবাদ থেকে সরে দাঁড়ান। তারা মার্ক্সবাদ কে বিক্রিত করা শুরু করেন।এমন একটি পরিস্থিতিতেই লেনিন আন্তর্জাতিক কমিউনিষ্ট আন্দোলনের হাল ধরেন।তিনি সারা বিশ্বব্যাপী মার্ক্স-এঙ্গেলসের শিক্ষাকে উর্ধে তুলে ধরার জন্য রাশিয়ার কমিউনিষ্টদের ঐক্যবদ্ধ করেন।রাশিয়ায় কমিউনিষ্ট পার্টি গড়ে তোলায় প্রধান ভূমিকা রাখেন।রাশিয়ায় যখন নারদপন্থিদের দৌড়াত্য চলছিল এবং মার্ক্সবাদীদের মধ্যে তাত্ত্বিক বিভ্রান্তি চলছিল ঠিক তখনি লেনিন মতাদর্শিক সংগ্রাম শুরু করেন।লেনিন তার সমস্ত শক্তি দিয়ে সংশোধন বাদের সাথে সংগ্রাম করেন।রাশিয়ায় বিভিন্ন আকৃতির সংশোধনবাদকে প্রতিহত করে একটি কমিউনিষ্ট পার্টি গঠন করেন।লেনিন একই সাথে প্রায়োগিক ও তাত্ত্বিক ক্ষেত্রে সংগ্রাম চালান।

মার্ক্সবাদের মৌলিক কতগুলো প্রশ্নে লেনিন মৌলিক ভূমিকা রাখেন।রাষ্ট্র প্রশ্নে লেনিন তার বিখ্যাত রাষ্ট্র ও বিপ্লব বইতে বিস্তারিত ব্যাখ্যা প্রদান করেন।লেনিন এই বইতে দেখান রাষ্ট্র কিভাবে শুকিয়ে মরবে।কমরেড লেনিন সংশোধনবাদীদের সাথে সংগ্রামের প্রক্রিয়াতেই কমিউনিষ্ট পার্টির করনীয় কি এবং তার কার্যক্রম কিভাবে পরিচালিত হবে তার দিক নির্দেশ করেন।কি করিতে হইবে বইয়ে লেনিন স্পষ্ট ভাবে সংস্কারবাদী ও অর্থনীতিবাদীদের সাথে ছেদ টেনেছেন।তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন মার্ক্সবাদীদের কার্যক্রম অর্থনীতিবাদী হতে পারে না।তিনি অর্থনীতি বাদের সাথে সংগ্রাম করে বিপ্লবী রাজনৈতিক সংগ্রামকে প্রাধান্যে নিয়ে আসেন।

দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক এর নেতা কাউটস্কি ও বার্নস্টাইন দের সাথে সংগ্রাম করে মার্ক্সবাদকে রক্ষা করেন কমরেড লেনিন।জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উভয় ক্ষেত্রেই লেনিন সমানভাবে ভূমিকা রাখেন।লেনিন একদেশে সমাজতন্ত্রের ধারনা সম্প্রসারণ করেন।তিনি দেখান যে,নিজ নিজ দেশে সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়েই বিশ্বব্যাপী সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠা সম্ভব।বিশ্বব্যাপী একক পার্টির ধারনা কে ভ্রান্ত প্রমান করেন।

একটি দেশে কিভাবে সমাজতন্ত্র আসতে পারে,তার একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে রাশিয়া,যার নেতৃত্ব দেন কমরেড লেনিন।লেনিন তার তত্ত্বকে শুধু কাগুজে হিসেবে রাখেন নি।তিনি তা প্রয়োগ করেছেন।প্রয়োগের ভেতর দিয়েই রাশিয়ায় সফল সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব সম্পন্ন হয়।

লেনিন শ্রমিক শ্রেনীর একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা বলেছেন।কারণ শ্রমিক শ্রেনীই কেবল অপরাপর সকল শ্রেনীকে মুক্তি দিতে পারে।তিনি কমিউনিষ্ট পার্টির পরিচালনার নীতিমালা প্রণয়ন করেছেন।গণতান্ত্রিক কেন্দ্রীকতার নীতিকে লেনিন প্রথম প্রয়োগ করেছেন।মার্ক্স এঙ্গেলস যেখানে খুব বেশি কাজ করতে পারেন নি।মার্ক্স-এঙ্গেলস শ্রমিক শ্রেনীর পার্টির কথা বল্লেও পার্টির পরিচালনা নীতি নিয়ে খুব বেশি বিস্তারিত কাজ করা তাদের পক্ষে সম্ভব হয় নি।সংখ্যালঘু সংখ্যাগুরুর অধীন এবং বাস্তবে কাজ না করলে কেউ কমিউনিষ্ট পার্টির সদস্য হতে পারে না লেনিন তা আমাদের সামনে উপস্থাপন করেছেন।কমউনিষ্ট পার্টি একটি জীবন্ত ধারনা এটা কোন কল্পনা নয়।লেনিন এই সত্যটি বলশেভিক পার্টি গড়ার মধ্য দিয়ে তা প্রমাণ করেছেন।

পুঁজিবাদের সর্বোচ্চ স্তর সাম্রাজ্যবাদকে তার বিখ্যাত গ্রন্থ পুঁজিবাদ সাম্রাজ্যবাদ এর সর্বোচ্চ স্তর এ বিস্তারিত ভাবে ব্যাখ্যা করেছেন।লেনিন সব সময় বাস্তব অবস্থার বাস্তব বিশ্লেষন করেছেন।মার্ক্সীয় রাজনীতি,অর্থনীতি,দর্শনকে শুধু ব্যাখায় করেন নাই তাকে ব্যাপক বিস্তৃত ভাবে সম্প্রসারণ করেছেন।

আমরা একারনেই লেনিন এর শিক্ষাকে লেনিনবাদ বলি।লেনিনবাদ মার্ক্সবাদ বিচ্ছিন্ন কিছু নয়। মার্ক্সবাদের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ।আজকের দিনে লেনিন এর শিক্ষা সবচেয়ে বেশি প্রাজ্জল।আজকের দিনে লেনিনের শিক্ষা কি সেই প্রশ্নে কিছু কথা বলা যাক।

বর্তমানে আমাদের দেশে লেনিনের সমস্ত শিক্ষাকে স্বীকৃতি দিলেও প্রয়োগ ক্ষেত্রে আসলে কাউটস্কী-বার্নস্টাইন এবং ক্রুশ্চেভের মত মার্ক্সবাদ-লেনিনবাদ কে বিকৃত করছেন।
বাংলাদেশে লেনিনবাদী নামে পরিচিত, সিপিবি, বাসদ,গণসংহতি,গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি,কমিউনিষ্ট লীগ, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ইত্যাদি সকলেই লেনিনবাদের নাম করে লেনিনবাদকে কার্যত বিরোধীতা করছেন ও লেনিনবাদের বিকৃতি ঘটাচ্ছেন।তারা লেনিনের বলশেভিক পার্টি গঠনের প্রশ্নকে কার্যত আড়াল করেছেন।শ্রমিক শ্রেনীর বিপ্লবী রাজনৈতিক সংগ্রাম এর পরিবর্তে শ্রমিকদের মধ্যে অর্থনীতিবাদী আন্দোলন করছেন।তারা লেনিনের নাম করেই এসব করে চলেছেন।অথচ লেনিন খুব ভালোভাবেই কি করিতে হইবে বইতে অর্থনীতি বাদের প্রশ্নে কথা বলেছেন।রাষ্ট্র যন্ত্রকে আঘাত করার কোন রকম বিপ্লবী সংগ্রাম তারা করেন না।তারা শহুরে মধ্যবিত্তদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।লেনিন যেখানে শ্রমিকদের মধ্যে প্রধানভাবে সংগঠন গড়ে তোলায় মনোযোগ দিয়েছেন।একটি দেশে বিপ্লব করে একটি বিপ্লবী পার্টি এটাই লেনিনবাদের শিক্ষা।কিন্তু পার্টির প্রশ্নে তারা এতটাই নির্বিকার যে তা বলায় বাহুল্য।আজকের দিনে কমিউনিষ্ট পার্টি কখনোই রাষ্ট্রের চোখের সামনে কার্যক্রম চালাতে পারে না।রাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ না করে কমিউনিষ্ট পার্টি নাম নিলেই কমিউনিষ্ট পার্টি হয় না।

এরা কমিউনিষ্ট পার্টির নাম করে কার্যত কমিউনিষ্ট পার্টির নীতিকেই ভ্রান্ত ভাবে উপস্থাপন করছেন।লেনিন তার বলশেভিক পার্টিকে জনগনের জীবন্ত পার্টি হিসেবে গড়ে তুলেছেন।আর বলশেভিক পার্টি রাশিয়ায় বিপ্লবের মধ্য দিয়ে প্রমান করে দিয়েছে যে,বলশেভিক নীতি বাস্তব সম্মত।কিন্তু বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট নামধারীরা কোনভাবেই সেই বলশেভিক নীতিকে কার্যকর করেন না।

রাজনৈতিক ক্ষমতা দখলের প্রশ্নে লেনিন খুব পরিষ্কার বক্তব্য দিয়েছেন।তিনি সর্বদায় সকল সংগ্রামকে রাজনৈতিক ক্ষমতা দখলের সংগ্রামে পরিণত করার পথ নির্দেশ করেছেন।কিন্তু বাংলাদেশে তা হয় না।

আজকের দিনে লেনিন কে উর্ধে তুলে ধরতে হলে গ্রামে কৃষক শহরে শ্রমিক দের মধ্যে কাজ গড়ে তুলতে হব, শুধু কাগজে কলমে থাকলেই চলবে না।এই মুহুর্তের সবচেয়ে বড় কাজ শ্রমিক অঞ্চল গুলোতে অবস্থান নেয়া ও কৃষক আন্দোলন গড়ে তোলা। শ্রমিক কৃষকের বাস্তব সমস্যাকে প্রাধান্যে রেখে কর্মসূচি নিতে হবে।পেটি বুর্জোয়া ছাত্র বুদ্ধিজীবী দের মধ্যে যারা আসলেই বিপ্লব করতে চান তাদের উচিৎ এখনই দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে আসা।

মহান কমরেড লেনিনকে আমরা এভাবেই জীবন্ত করে রাখতে পারি। কমরেড লেনিন আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবেন যুগ যুগ।
প্রা

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

31 − = 26