“সবার উপরে গোল্ডেন সত্য , তাহার উপরে নাই”

১২ মে বাংলার ইতিহাসের সবচেয়ে দীঘ সময় ধরে চলা এস এস সি পরীক্ষার রেজাল্ট হল ।

রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলাম এলাকার এক ছোট ভাইকে জিজ্ঞেস করলাম ,
রেজাল্ট কি ?
ভাই এ+ , গোল্ডেন হয় নি । (এই রেজাল্টে আপনারা বলবেন ব্যাটা খারাপ ছাত্র গোল্ডেন পায় নি )।
আরেক জন কে জিজ্ঞেস করলাম ,
রেজাল্ট কি ?
ভাই গোল্ডেন এ+ । (এই রেজাল্টে আপনারা বলবেন ভাল ছাত্র তাই ভাল রেজাল্ট করেছে )।
কিন্তু সত্যি বলতে কি, যে ছেলেটি গোল্ডেন পেয়েছে সে টো টো কম্পানির ম্যানেজার ছিল । ভাগ্য গুনে হয়ত গোল্ডেন পেয়েছে । (এটা ভাববেন না শুধু ভাগ্য দিয়ে রেজাল্ট করা সম্ভব )।

আমার কথাই বলি , ক্লাস নাইনে ওঠার আগ পর্যন্ত প্রথম সারির ষ্টুডেন্ট ছিলাম । নাইনে উঠে পাঙ্খা গজাতে শুরু করল , আমিও তাল মিলিয়ে আকাশে উড়তে থাকলাম । ক্লাস টেন এ ওঠার পর পুরাই নষ্ট হলাম । ঘুম থেকে উঠে বের হতাম , ফিরতাম দুপুরের পর । আবার বিকালে বের হতাম , আসতাম রাত ৯টা-১০টায় ।কত দিন মার খেয়েছি ।

কিন্তু দাদা , কথা হচ্ছে কথা সেটা না কথা হল গিয়ে টেষ্টে করলাম ফেল । তিনমাস পর এল বহু প্রতীক্ষিত এস এস সি পরীক্ষা । যাই হোক পরীক্ষা দিচ্ছি , পদার্থ পরীক্ষার আগের রাতে গ্যাঞ্জাম করে বাড়ি ফিরলাম রাত সাড়ে ১০টায় । শরীরে এনার্জি ছিল না বলে ঘুমিয়ে পরলাম , পরদিন সকালে পরীক্ষা দিতে গেলাম ।

বুঝতেই পারছেন কেমন পড়ালেখা করেছি । দুই মাস পর পরীক্ষার রেজাল্ট দিল । ওমা আমি গোল্ডেন এ+ পেয়েছি ।
রেজাল্টের পর মনে হল আমার মত পড়ুয়া ছাত্র এই এলাকায় নেই ।
আমি কি দেখে গোল্ডেন পেয়েছি তা আল্লাহ ই জানে । (আমার রেজাল্টে আপনারা কি বলবেন ???)

তো দাদা যা বলছিলাম পরীক্ষার রেজাল্ট কেন একটা ছেলে বা মেয়ের বিচারের মানদণ্ড হবে । কেন ভাল মন্দ হিসাবের দাঁড়িপাল্লা হবে । আমার মত রেজাল্টের সাধু এই সমাজে দরকার নেই । তাই যা বছিলাম সবকিছুতেই রেজাল্ট না টেনে রেজাল্টকে রেজাল্টের জায়গায় রাখুন মানুষকে মানুষের জায়গায় রাখুন ।

==>>২০১৩ সালে এস এস সি পরীক্ষায় সকল কৃতি ছাত্র / ছাত্রী কে আমার অভিনন্দন ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৭ thoughts on ““সবার উপরে গোল্ডেন সত্য , তাহার উপরে নাই”

  1. আমাদের স্কুলটা তেমন ভালো ছিল
    আমাদের স্কুলটা তেমন ভালো ছিল না… ২, ৩ জন A+ পেত। আমাদের সময় কয়েকজন নিশ্চিত A+ পাওয়ার ছাত্র ছিল… ওদের কেউই পায়নি। ৪ জন পেল, ৩ জন মধ্যম মানের, তবে একজন পেল যে কিনা কোন রকমে পাস করার চিন্তা করেছিল। পুরা টেস্ট পরীক্ষায় ২ সাবজেক্ট ফেইল, পরে মেয়র এর মেহেরবানিতে ফাইনাল দিতে পেরেছিল। এমন ছাত্র যদি A+ পায়! :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

  2. আমাদের কলেজে (ন্যাশনাল
    আমাদের কলেজে (ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজে) SSC এর রেজাল্টের ভিত্তিতে তৈরি করা প্রথম যেই রোল নাম্বার তৈরি করা হয়, তাতে যে প্রথম ছিল তার রোল বর্তমানে ১২৮ আর এ+ মিস করে কেবল মাত্র একই প্রতিষ্ঠানের ছাত্র বিধায় ভর্তি হতে পারা একটা ছেলের রোল ৩৩।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ 39 = 48