কবিতাঃ রানিয়ার বুক অলক্ষ্যেও ছুঁই নাই আমি

রানিয়ার রাঙা গালে আমি ওষ্ঠ ছুঁই নাই,
সেই ছুতোয় সে কাঁদে নাই শিউলি আড়ালে!
বিউলির ডালের মত সুঘ্রাণ তার লালাঝোলে-
আঙুল ডুবাইনি বলে তাকায়ওনি অভিমানে…

রানিয়ার রাঙা গালে আমি ওষ্ঠ ছুঁই নাই,
সেই ছুতোয় সে কাঁদে নাই শিউলি আড়ালে!
বিউলির ডালের মত সুঘ্রাণ তার লালাঝোলে-
আঙুল ডুবাইনি বলে তাকায়ওনি অভিমানে…

অথচ আমি মৃত থাকি সেই আফসোসে,
হাসিটুকু হয়ে যায় বাসি, এমনই যদি হয়-
অনুভব, যদি এই হয় ভালবাসাবাসি;
তাও কম কী? রানিয়া হে, তাও তুমিই রানি!
তোমার অদম্য লোভে পুনরুজ্জীবন কামনায়-
বারবার মরণ আরাধ্য, মহাকাল ক্যানভাসে…

রানিয়ার অন্তরের ভিতর অধিক আলোড়নে-
অলৌকিক সুরবিরতি আসে না অন্তরাতে;
ছাইরঙা চোখে আমাকে দেখে নাই আলাদা,
আর তার মোলায়েম কন্ঠের মন্দ্রসপ্তকে-
তেমন কোনো অস্পষ্ট ইঙ্গিত মেলে নাই যে
আভাসে ভাবতাম মূর্ছনা সব আমার নামে।

ব্যর্থ আমি আমার এই মলিন ধরাধামে,
যতটুকু জানি, বুঝে যাই তারও কিছু বেশি!

রানিয়ার বুক অলক্ষ্যেও ছুঁই নাই আমি…

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

− 5 = 1