ভাস্কর্য সরানো হচ্ছে, নারী নেতৃত্ব নয় কেন ??

মধ্যরাতে সবাই যখন ঘুমিয়ে তখন চুপিসারে ঠিক মুসলিম আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীদের মতনই হামলা করা হলো একটি নিথর প্রাণহীন নারী ভাস্কর্যের উপর । এই ভাস্কর্য সরানোর দাবি যারা করেছিল তারা হচ্ছে জঙ্গি মুসলিম , আর যার এই ভাস্কর্য পছন্দ হয় নি সে হচ্ছে মডারেট মুসলিম । প্রধান বিচারপতি নয়,যে কাল সাপের ইসলামি ইশারায় মালাউনদের সরিয়ে দেয়া হয়েছে পাঠ্যপুস্তক থেকে ঐ একই কাল সাপের ইশারায় গভীর রাতে ভাস্কর্য সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে । কাল যেহেতু শুক্রবার তাই তৌহিদী জঙ্গি জনতাও মাঠে থাকবে এবং ভাস্কর্য সরানোর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানোরও কোন সুযোগ রইলো না ।

মুসলমানদের ইসলাম ধর্মে নাকি আছে নারী নেতৃত্ব হারাম । যদি তাই হয় তবে হেফাজতে ইসলাম এবং আওয়ামি ওলামা লীগ কেন এক বেগানা বিধবা মুসলিম নারী নেতৃত্ব মেনে নিয়ে একের পর এক পুকুর রেলওয়ের জমি দখল করছে ?? কেন হেফাজত বলছে না যে ৯০% মুসলমানের দেশে নারী নেতৃত্ব হারাম ?? কেন হেফাজতের জঙ্গিরা শাপলা চত্বরে জমায়েত হয়ে বলছে না দেশের তৌহিদী জনতা নারী নেতৃত্ব মানে না মানবে না !!

হেড অব দা কালসাপ সৌদি থেকে এসে জিহাদি জোশে মদিনা সনদ অনুসারে দেশ চালাইতে যে সব কাজ কারবার শুরু করেছে তাতে তার পরিনতি তার বাপ ভাইয়ের চাইতেও খারাপ হবে …..তার বাপও সৌদিরে ভালোবাসতে যেয়ে ওআইসিতে যোগ দেয়ার পর ইসলামি ছ্যাকাঁ খাইছে এইবার তার মেয়ের পালা ।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

4 + 4 =