সংযম

সৌদি আরব সহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে আজ থেকে রোজা শুরু হচ্ছে। আমাদের দেশে রোজার শুরু আগামীকাল থেকে। রোজা বা রমজান হল আরবী নবম মাস, যে মাসে কুরআন নাযিল হয়েছে বলে মুসলমানেরা বিশ্বাস করে। পুরো এক মাস জুড়ে সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকে ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা।

ইতোমধ্যেই রোজার বাজার করা শুরু হয়ে গেছে। ইফতারের মেন্যুতে কি কি নতুন আইটেম থাকবে তা নিয়ে চিন্তিত গিন্নিরা। মাসিক তেলের হিসাব নুন্যতম দ্বিগুণ হয়ে যায় রোজার শুরুতেই। রোজা উপলক্ষ্যে ইফতার পার্টি, সেহরি পার্টি তো আছেই।
অথচ রোজা মানে সংযম!
১. সেহরি, ইফতার আর রাতের খাবার খেয়ে বাকি সারাদিন না খেয়ে থাকার মধ্যে আসলেই সংযমের ছিটেফোঁটা কোন নেই। তবুও এমন গরমের দিনে পানি বা খাবার না খেয়ে থাকা হয়ত অনেকের জন্যই কষ্টকর। আসুন ধর্ম-মত নির্বিশেষে অন্যরকম রোজা পালন করি। সব রকমের খারাপ কাজ, কটূ কথা, পরনিন্দা, পরচর্চা থেকে আমরা একমাস বিরত থাকি; এটাই হবে সংযম পালন।

২. আপনি যেমন সারাদিন না খেয়ে রোজা পালন করছেন, গরমে কষ্ট পাচ্ছেন। তেমনি রিক্সাওয়ালা, অফিসের পিওন আর বাসার বুয়া ও সারাদিন না খেয়ে আপনাকে বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে, আপনার কাজে সাহায্য করছে, চুলার উত্তাপে ঘেমে নেয়ে আপনার ইফতার বানাচ্ছে। তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল হোন।

অতি ধর্মপ্রাণ ভাই-বোনদের কাছে বিনীত অনুরোধ-
১. কেউ রোজার দিনে খাওয়া-দাওয়া করলে আপনার ধর্মীয় জ্ঞান তার উপর ঝাড়া থেকে বিরত থাকুন দয়া করে। আপনার স্রষ্টার কাছে কেবল আপনার কাজের কৈফিয়ত আপনাকে দিতে হবে, অন্যদের বোঝা বইবার কোন দরকার নেই। আপনি ধর্ম-প্রচারক নন, দয়া করে নিজের ধর্ম-কর্মে মন লাগান,সবক দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

২. কোন মেয়ে রোজা না রাখলে বিদ্রুপের হাসি বা ইঙ্গিতপূর্ণ চটুল কথা বলা থেকে বিরত থাকেন। মনে রাখবেন, আপনার মা ও ওই পাঁচ থেকে সাতদিন রোজা রাখেননা।

সবার মঙ্গল হোক!

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

74 − 67 =