’উদিসা ইসলামের’ প্রতিবেদন

উদিসা ইসলামের প্রতিবেদন পড়ছিলাম বাংলা ট্রিবিউনে। ‘আলোচনা-সমালোচনায় মৃণাল হকের ভাস্কর্য’। (২১:৫২, মে ৩০, ২০১৭)

মৃণাল হকের ভাস্কর্য নিয়ে তিনি এই প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন এবং নানা জনের মতামত তুলে ধরতে ধরতে প্রতিবেদনের ভেতরে নিজের মতামতটিও ঢেলে দিয়েছেন সযত্নে। ”শিল্প সমালোচকরা বলেন” বলে শুরু করা প্রতিবেদনের পরবর্তী অংশে এসে ”শিল্প সমালোচকদের” কে ফিরিয়ে আনা হয়নি কোনো সর্বনাম দিয়ে। কারণ, অভিমতটি তিনি নিজেই দিচ্ছেন:

তার প্রতিবেদনটি থেকে তার দুটি মতামতের অংশ তুলে ধরছি,

১. ”রাজধানীতে রূপসী বাংলা হোটেলের (শেরাটন) সামনে স্থাপিত মৃণাল হকের আরেকটি আলোচিত ও গুরুত্বপূর্ণ ভাস্কর্যের নাম ‘রাজসিক’। এ ভাস্কর্যটিতে দু’টি ঘোড়া একটা গাড়ি টেনে নিয়ে যাচ্ছে। কোচোয়ান বসে আছেন সামনে, গাড়ির পেছনে একজন প্রহরী। আর গাড়িতে আছেন নবাব সলিমুল্লাহ, যিনি সপরিবারে নগরীর হালচাল দেখতে বের হয়েছেন। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, ভেতরে যে নবাব বসে আছেন, সেটি মোটেও দৃশ্যমান নয়।”

দেখুন, তিনি পরোক্ষভাবে একটি অযৌক্তিক যুক্তি দাঁড় করিয়ে দিতে ব্যগ্র হয়ে আছেন যাতে করে উস্কে দেয়া যায় মানুষকে, তাতে লাভ আছে কিন্তু! আরো একটি ’ভাস্কর্য’ অপসারণ মানে দেশে আবার নতুন করে হুলস্থুল কাণ্ড! তাতে কিন্তু ভালো কাটবে ’নিউজ হেডলাইন’।

২. ”পরীবাগ মোড়ে হাতের বামে নজরে পড়বে খুব সম্প্রতি একুশ নিয়ে মৃণালের স্থাপিত ভাস্কর্য ‘জননী ও গর্বিত বর্ণমালা’ । এতে দেখা যায়, মায়ের কোলে শহীদ সন্তান। কিন্তু মায়ের মুখের অভিব্যক্তিতে কান্না নাকি ক্ষোভ জমে আছে, তা বোঝা যায় না। বরং মনোযোগ না দিয়ে দেখলে হুট করে মনে হতে পারে শহীদমাতার মুখে এক চিলতে হাসি।”

এটি তার একান্তই ব্যক্তিগত অভিমত। সবচেয়ে বড় কথা, তার লিখা পড়ে মনে হচ্ছে, তিনি ’গভীর মনোযোগ’ দিয়ে দেখতে আগ্রহী নন কোনো এক ’বিশেষ কারণে’।

অবাক হয়ে লক্ষ করছি, তিনি মৃণাল হকের ’ভাস্কর্য’ নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করতে যেয়ে নিজেই সমালোচনা করে ফেলেছেন মৃণাল হকের এবং তিনি পরোক্ষভাবে এটাই বলতে চাইছেন যে, মৃণাল হকের ’ভাস্কর্য’ যেহেতু “মানসম্পন্ন লাগছে না” তাই ওগুলো সরিয়ে ফেলা যেতে পারে।

ওয়েট পাঠক! আপনি যে ধর্ম, বর্ণ বা মতেরই হোন না কেন, যে কোনো টাইপের ক্ষোভ প্রকাশ করার আগে একবার বিবেচনা করে দেখুন, যিনি একটি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে মৃণাল হকের ’ভাস্কর্য’কে প্রশ্নবিদ্ধ করে দিলেন নিজের অভিমত দিয়ে, তিনিই আবার তার ফেইসবুক প্রোফাইলের কভার ফটোটিতে সুপ্রীম কোর্টের সামনের ’ভাস্কর্য’ টির ইমেজ ব্যবহার করছেন!!

আসুন, ধর্ম-বর্ণ-মত সবকিছু ভুলে অন্তত এই একটি বিষয়ে সবাই মিলে মন খুলে হাসি।

http://www.banglatribune.com/others/news/211327/%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%AE%E0%A7%83%E0%A6%A3%E0%A6%BE%E0%A6%B2-%E0%A6%B9%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AF?feed_tracker=yes

শেয়ার করুনঃ

১ thought on “’উদিসা ইসলামের’ প্রতিবেদন

  1. এত দিন মৃনাল হকের ভাস্কর্যের
    এত দিন মৃনাল হকের ভাস্কর্যের ক্ষুঁত চোখে পড়নি?!! হেফাজতের আব্দারের পর সবার চোখ খুলে গেল????
    কি বিচিত্র এই দেশ

Leave a Reply

Your email address will not be published.