তার্কিক

দিতে পারো তাহাকে হয়তো উপাধি তর্করত্ন
তাহাতেই খুশি সে;
সারাদিন তা-ইতো করে যায় যত্ন।
তর্কই পেশা তার
নেই কাজ কোনো আর;
ভালোটাও ভালো নয়
বলিবেন মহাশয়,
কারণ,মতলব একটায়
তর্কটা করা চাই।

আমরাও দিয়ে যাই বাহবা,
বারে বা!বাছাধন তর্কটা করে যা।
কেন খালে বাঁচে মাছ?
কেমনে খায় গাছ?
তা -ভাবিতেই কেটে যায় বারমাস
তার্কিক মহাশয়ের নাইকো অবকাশ।
কে আছে পক্ষে,কে তার বিপক্ষে
মন্দ ভালো কে?
তর্কের মাধ্যমে দিয়ে যান মতামত
বলে যান অবিরাম
কোন্ টা ভুল আর কোন্ টা ঠিক পথ!

তর্করত্ন মহাশয়,মহাজ্ঞানী-মহাজন
নেই তার কোনো কাজ;তবু তাকে প্রয়োজন।
দেশটা গেল বটে!
ঘিলু নেই কারো ঘটে!
রাজাদের মাথামোটা
প্রজা সব সাদামাটা!
কী হবে দেশটার?
নেই কী কোনোও প্রতিকার?
তার্কিক আছে ভাই
শুধু আজ বলা চাই;
বলুন না মহাশয়, উপায় একবার
কেমনে বাঁচে দেশ;জনতার অধিকার?

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

28 + = 38