জুয়ায় হেরে সৌদি-যুবরাজ নিজের বউ বিক্রি করে দিলো

মাজেদ সৌদি-যুবরাজ! তাই, সবকিছু তার জন্য জায়েজ। আর এশিয়ার তথা দক্ষিণ এশিয়ার গরিব দেশের কোনো মুসলমান সামান্য কোনো ভুল করলে হাতের হাত কাটা হয়, শিরোচ্ছেদ করা হয়। তাদের পাপী হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। কিন্তু মাজেদরা বহাল তবিয়তে আরামআয়েশে লালিতপালিত হয় সৌদি-রাজপরিবারে।

সৌদি-যুবরাজদের অনেক বউ। তাই, জুয়ায় হেরে কয়েকটি বিক্রি করে দিলো এক সৌদি-যুবরাজ। এই যুবরাজের নাম মাজেদ বিন আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ। ইসলামের দেশ বলে পরিচিত সৌদিআরবের এক যুবরাজের এমন ঘৃণিত কর্মকাণ্ডে সারাবিশ্বে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

সৌদি-যুবরাজ মাজেদ তার ৯-স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে মিশরে গিয়েছিলো—অবকাশযাপনের জন্য। আর সেখানে রয়েছে বড়সড় সব ক্যাসিনো। এইসব ক্যাসিনোতে পৃথিবীর নামকরা ও অভিজাত ধনকুবেররা নিয়মিত জুয়া খেলে থাকে। এখানকার সবচেয়ে বড় ক্যাসিনো হলো সিনাই প্রদেশের গ্র্যান্ড ক্যাসিনো। আর সেই ক্যাসিনোতে ঢুকে জুয়াখেলা শুরু করে যুবরাজ মাজেদ। কিন্তু ভাগ্য সেদিন তার সহায় হয়নি। সে একের-পর-এক হারতে থাকে। একপর্যায়ে তার হারের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশী-টাকায় কমপক্ষে ২,৫০০ কোটি টাকা। এরপরও সে জুয়া খেলতে চায়। কিন্তু তখন টাকা জোগারের কোনো বন্দোবস্ত না থাকায় সে তার সঙ্গে থাকা ৯-স্ত্রীকে বাজী রেখেই আবার জুয়া খেলতে থাকে। একপর্যায়ে সে আবার হেরে যায়। আর এতে সে জুয়া খেলার নিয়মানুযায়ী তার ৫-স্ত্রীকেও হারায়।

গ্র্যান্ড ক্যাসিনোর মালিক (স্বত্বাধিকারী) আলী শামুন এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। আর তিনি জানিয়েছেন, মাজেদ তার ৫-স্ত্রীকে বিক্রয় করে ২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৬১ কোটি টাকা!) পেয়েছিলেন। তিনি তার ৫-স্ত্রীকে একব্যক্তির দিকে ঠেলে দিয়ে পুনরায় জুয়া খেলায় মনোনিবেশ করেন। এরপর তিনি তার স্ত্রীদের ফিরিয়ে নেওয়ার কোনো চেষ্টাও করেননি।

সৌদি-যুবরাজ মাজেদের বউ-বিক্রির ঘটনার ভিডিওলিংক এখানে দেওয়া হলো:

মাজেদ সৌদি-যুবরাজ। তাই, সে নিয়মিত মদ খেতে পারে। আর মদ না খেলে তার ঘুম হয় না। মদের সঙ্গে সে নিয়মিত জুয়াও খেলে থাকে। আর সে একবার জুয়া খেলতে বসলে তার কোনো হুঁশ থাকে না। সে ভয়ানক মদ্যপ আর জুয়াড়ী।
তার রয়েছে ৯-টি স্ত্রী! তবুও তার মন ভরে না। তার আরও চাই। আর তাই, বোনাস হিসাবে তার অধীনে রয়েছে অসংখ্য দাসী। আর এই দাসীদের সঙ্গে চলছে তার নিয়মিত ব্যভিচার। এদের সঙ্গে সে নিয়মিত (যখন-তখন) যৌনসঙ্গমে লিপ্ত হয়ে ফুর্তি করে থাকে।

ইসলামে একসঙ্গে একজন মুসলমানের সর্বসাকুল্যে চার-স্ত্রী রাখার বিধান রয়েছে। আর সৌদি-যুবরাজ মাজেদরা কী করছে! তাদের কারও ৯জন আবার কারও ৯০জন পর্যন্ত স্ত্রী রয়েছে! আর শোনা যায়, প্রমাণও আছে—এদেরই কারও-কারও নাকি কয়েকশ’ স্ত্রীও রয়েছে! হায়রে ধর্ম! হায়রে সৌদিআরবের রাজা-বাদশাহ! তোমরাই বুঝি পথ দেখাবে মুসলমানের! ভোগ-বিলাসিতা আর শয়তানী ছাড়া তোমাদের জীবনে আর কী আছে?

৫-স্ত্রীকে একসঙ্গে মিশরের ক্যাসিনোতে এক জুয়াড়ীর কাছে বিক্রি করে দেওয়ার পর যুবরাজ-মাজেদ নাকি পশ্চিম-এশিয়ার কোনো এক দেশে এখন গা-ঢাকা দিয়েছে। শোনা যাচ্ছে, সৌদি-কর্তৃপক্ষ তাদের হারানো এই ৫-যুবরাণীকে দেশে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগগ্রহণ করেছে। এটি তাদের রাষ্ট্রের জন্য ভয়ানক লজ্জার ও অপমানের বিষয়। আর তাই, ঘটনাটি তারা এতোদিন গোপন রেখেছিলো। কিন্তু ধর্মের কল বাতাসে নড়ে! আর পাপ কখনও চাপা থাকে না।

মাজেদ সৌদি-যুবরাজ! তাই, সবকিছু তার জন্য জায়েজ। আর এশিয়ার তথা দক্ষিণ এশিয়ার গরিব দেশের কোনো মুসলমান সামান্য কোনো ভুল করলে তাদের হাত কাটা হয়, শিরোচ্ছেদ করা হয়। আরও কত কী করা হয়! আর সবসময় তাদের পাপী হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। কিন্তু মাজেদরা বহাল তবিয়তে আরামআয়েশে লালিতপালিত হয় সৌদি-রাজপরিবারে। এরই নাম বুঝি ধর্ম? আর এরই নাম বুঝি সৌদিআরবের মুসলমানিত্ব!

কী জঘন্য ধর্মচর্চা সৌদিআরবের! এখানে, নারীর কোনো মূল্য নাই। এরা এখনও নারীকে সামান্য পণ্য হিসাবে দেখছে। আর তাই, বাজারের যেকোনো পণ্যের মতো তারা নারীদের বেচাকেনা করছে! সৌদিরাজপরিবারের বিরুদ্ধে সুদীর্ঘকাল যাবৎ যৌনতা, অতিযৌনতা, ব্যভিচার ও লাম্পট্যের সীমাহীন অভিযোগ রয়েছে। যুবরাজ-মাজেদ তাদের এই পাপাচারিতাকে বিশ্ববাসীর সামনে প্রকটভাবে তুলে ধরেছে। এরা যে নারীলোলুপ পাষণ্ড আজ আবারও তা-ই প্রমাণিত হয়েছে। নইলে, কেউ নিজের স্ত্রীকে জুয়া খেলায় বাজী ধরে হেরে বিক্রি করে দেয়? এদের কাছে নিজের স্ত্রী কিংবা যেকোনো নারীর কোনো মূল্য বা মর্যাদা নাই।

সাইয়িদ রফিকুল হক
মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ।
০২/০৬/২০১৭

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

৩ thoughts on “জুয়ায় হেরে সৌদি-যুবরাজ নিজের বউ বিক্রি করে দিলো

    1. সংবাদটি যাচাইবাছাই করে দেখেছি
      সংবাদটি যাচাইবাছাই করে দেখেছি, আমার কাছে সত্য মনে হয়েছে। আসলে, সৌদিকর্তৃপক্ষ বিষয়টি গোপন করতে চাইছে।

      সূত্র-ভারতের সংবাদ প্রতিদিন ও ইন্ডিয়া ডটকম এবং বাংলাদেশের অনলাইন ‘নবজোয়ার’।

      আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ। আর শুভেচ্ছা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

24 + = 34