প্রেমপত্র-৯১

বাজার থেকে কিছু রক্তজবা নিয়ে আসবো,দুপুরে রক্তজবার ঝোল আর সাথে শিউলি ফুলের চাটনি। আর সন্ধ্যায় ক্যামেলিয়ার গরম গরম স্যুপ।আর রাতে উমম রজনীগন্ধার ফ্রাই আর সাথে সামান্য আমিষ মানে তুমি চলে যাবে এভাবেই চলে যাবে দিন তুমি ময়।বুঝলে উচিত ছিলো তোমার বাড়ি এক্কেবারে আমার বাড়ির পাশেই হওয়া। জানলা খুলে চোখ দুটোকে মেলে দিলেই দেখতে পাবো টুকিটাকি জিনিশপত্র শোবার ঘরে অলস চুলে বোলাচ্ছ সেই স্নিগ্ধ লাজুক আঙুলগুলো । উচিত ছিলো জানলা খুললে তোমার আমার দেখতে পাওয়া সারাটি ক্ষন।উচিত ছিলো । উচিত ছিলো রাত্রিবেলা ছাদের মাঝে শক্ত করে তোময় জড়িয়ে ধরা।উচিত ছিলো তোমার অসংলগ্ন একটু আধটু জোড়ে বলা বড্ড বেশি ভালবাসি।উচিত ছিলো শোবার ঘরে শাড়ির বাঁধন খুলতে গিয়ে আমায় দেখে মুখ লুকানো লজ্জারাঙা স্নিগ্ধ হাসা আঁচল তলে ।উচিত ঠিল কথায় কথায় ঠুতোয় নাতায় বড্ডবেশি তোমায় বলা ভালবাসি।কিন্তু দেখ মরছি অসুস্থ্যতায় ঢাকায় বসে ঐযে তুমি সাতক্ষীরাতে।

বাচ্চা পরী,

ভাবছি তোমাকে একটা কথা বলবো?ইমম প্রতিদিন ভাবি নতুন করে কি বলা যায় ।কোনদিন ভাল কবিতা আর কোনদিন গড়বড়ে কবিতা দিয়ে তারপর চুপ করে বসে থাকি,হয় বলবে ভাল হয়েছে না হয় চুপ থাকবে,তবুও তো কিছু বলবে,আমি কিছু শুনতে পাবো,এভাবেই দিন যায়।পরে ভাবি অভিমানি মেয়েটি যে আমার আজব পাগলামী সহ্য করছে তাও তো কম না,দিনকে দিন প্রতিদিন ভালবাসি কথাটি বলতে বলতে তার কান পঁচিয়ে ফেলেছি,সে আবার কানে ওষুধ দিয়ে নতুন করে শুনছে,তুমি তো সেই একটাই মেয়ে যার কাছে আমি আশা করতে পারি।আমি শত অন্যায় করবো মেয়েটা কড়া করে বঁকে মাফ করে দিবে,তার পর আবার বলবো,শোন ভালবাসিতো।ও হ্যা একটা সমস্যা মেয়েটার নিশ্চুপতা আমার ভাল লাগে না,আমি চাই সে আমার সাথে কথা বলুক,আমার সাথে পথ চলুক,আমি সারজীবন মেয়েটাকে আগলে রাখতে চাই,তার সন্তানের পিতা হতে চাই।কি এক আজব অবস্থায় দিন কাটাচ্ছি,কোলবালিশ আর কোম্বলে আর কতদিন?একটা বউ হলে ভাল হয়,আর ভাল হয় সেই মেয়েটা যদি তুমি হও,আর কথা শুনে যদি তোমার মাথা গরম হয়ে গেলে কি আসে যায়,সামনে থেকে পালিয়ে পিছনে গিয়ে বলবো,ভালবাসিতো।আর আভিমানী মেয়েটি আমি তোমার রাজপথে দাড়িয়ে,নিজেকে পুড়িয়ে বিশুদ্ধ করছি তোমাকে পাবার অপেক্ষায়।

বাজার থেকে কিছু রক্তজবা নিয়ে আসবো,দুপুরে রক্তজবার ঝোল আর সাথে শিউলি ফুলের চাটনি। আর সন্ধ্যায় ক্যামেলিয়ার গরম গরম স্যুপ।আর রাতে উমম রজনীগন্ধার ফ্রাই আর সাথে সামান্য আমিষ মানে তুমি চলে যাবে এভাবেই চলে যাবে দিন তুমি ময়।বুঝলে উচিত ছিলো তোমার বাড়ি এক্কেবারে আমার বাড়ির পাশেই হওয়া। জানলা খুলে চোখ দুটোকে মেলে দিলেই দেখতে পাবো টুকিটাকি জিনিশপত্র শোবার ঘরে অলস চুলে বোলাচ্ছ সেই স্নিগ্ধ লাজুক আঙুলগুলো । উচিত ছিলো জানলা খুললে তোমার আমার দেখতে পাওয়া সারাটি ক্ষন।উচিত ছিলো । উচিত ছিলো রাত্রিবেলা ছাদের মাঝে শক্ত করে তোময় জড়িয়ে ধরা।উচিত ছিলো তোমার অসংলগ্ন একটু আধটু জোড়ে বলা বড্ড বেশি ভালবাসি।উচিত ছিলো শোবার ঘরে শাড়ির বাঁধন খুলতে গিয়ে আমায় দেখে মুখ লুকানো লজ্জারাঙা স্নিগ্ধ হাসা আঁচল তলে ।উচিত ঠিল কথায় কথায় ঠুতোয় নাতায় বড্ডবেশি তোমায় বলা ভালবাসি।কিন্তু দেখ মরছি অসুস্থ্যতায় ঢাকায় বসে ঐযে তুমি সাতক্ষীরাতে।

আচ্ছা বাবু পালাবার জায়গা যদি না থাকে দিন, রাত্রি অথবা অন্ধকারে।তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?যদি আমি পড়তে পড়তে থেমে যাই- মাঝপথে,কিংবা আটকে যাই কার্নিশে তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে।যদি কেউ বলে আর আমি নেই পাহাড়, সমুদ্র, কিংবা আমার ছোট্ট ঘরটিতে।তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?

যদি আমি হারিয়ে যাই আমিতে মিশে যায় চুন-সুড়কির নগরীতে তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে।যদি নিভে যাই অন্ধকারে যদি ভেসে যাই রোদে যদি ডুবে যাই পাথরে তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে।যদি তলিয়ে যাই স্মৃতিতে যদি ক্ষয়ে যাই জলে যদি থেমে যাই চলতে প্রিয়তমা,তুমি কি আমার হাতটা একটু ধরবে?এতটুকুই বিশ্বাস করি আমি,চোখ বদ্ধ মোর প্রার্থনায়,তুমি আসছো,তুমি আসবেই,তোমাকে যে আসতেই হবে স্বপ্নপরী।

আমি জানি তুমি আছো আমার অগোছালো বিছানায়,যেখানে ভোরের আলো যেখানে ছুঁয়ে যায়,আমার টুথব্রাশ খুঁজে পাওয়া তো টুথপেস্ট খুঁজে না পাওয়ায়।আমার নাস্তার টেবিলে, আমাকে জোর করে খাইয়ে দেয়ায়।তোমার চুল টেনে পনি টেল করে দেয়ায় কোথায় নেই তুমি?আমার কান্না জড়ানো চোখে,আমার অভিমানে, আমার আবদারে, আমার অভিযোগে।কোন ভুল হয়ে যাওয়ায়, আমার শংকিত চোখে,তোর বুকে আশ্রয় খোঁজায়। আমি নাই কোথায় তোমার?তোমার প্রথম বন্ধুর গল্প বলায়, তোমার এ্যলমেলো পরীক্ষায় তোমার এক ঘুমবহুল আড়মোড়া বিকেলে,গোসলের সময় চোখে সাবান জলের জ্বলুনিতে,টিভি দেখার সময় ভুল করে তুমি আমাকেই দেখ।রাজারানীর গল্পে আর বকে ঘুমপাড়ানোতে,তোমার ঘুমন্ত মুখের দিকে নির্নিমেশে চেয়ে থাকায়, সব কিছু ভুলে যাওয়ায়,আমাকে পাগলের মত খুজায় কোথায় নেই আমি, বলো কোথায়?

আমি প্রতিবারই মুগ্ধ হই,নতুন সৌন্দর্য খুঁজে পাই তোমাতে।অত:পর আমি চাই খুব করে চাই এমন একদিন, সেদিন তোমার কোলে আমার সন্ধ্যা নামুক।বৃষ্টি হয়ে ঝপঝপিয়ে প্রেমের বান ডাকুক তোমার হৃদয়ে শুধু আমারই জন্যে
ইতি,
আমি।

ফেসবুক মন্তব্য
শেয়ার করুনঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

16 − = 9